ঢাকা, রোববার, ১৫ ডিসেম্বর ২০১৯ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মেসির একমাত্র গোলে ব্রাজিলের সাথে আর্জিন্টিনার জয়


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৯:৪৪ এএম, ১৬ নভেম্বর ২০১৯, শনিবার
মেসির একমাত্র গোলে ব্রাজিলের সাথে আর্জিন্টিনার জয়

 

নিষেধাজ্ঞা কাটিয়ে আন্তর্জাতিক প্রীতি ম্যাচে জয় দিয়ে যাত্রা শুরু করলেন মেসি। তাও আবার চিরপ্রতিদ্বন্দ্বি ব্রাজিলের বিপক্ষে। কোপা আমেরিকায় এই ব্রাজিলের কাছেই সেমিফাইনালে হেরে বিদায় নিয়েছিল আর্জেন্টিনা। সে টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয়েছিল সেলেসাওরা। এ জয়ের মধ্যদিয়ে সেই প্রতিশোধ নিল মেসিরা।

ফিফা ফ্রেন্ডলি ম্যাচে শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) বাংলাদেশ সময় রাত ১১টা ১৩ মিনিটে সৌদি আরবের কিং সৌদ ইউনির্ভাসিটি স্টেডিয়ামে মুখোমুখি হয় দু’দল।

আর্জেন্টাইন অধিনায়ক লিওনেল মেসির গোলে প্রথমার্ধের ১৩ মিনিটের মাথায় এগিয়ে যায় আর্জেন্টিনা। এই এক গোলই তাদের জয়ের জন্য যথেষ্ট প্রমাণিত হয়।

কোপা আমেরিকায় হারের পর আর্জেন্টিনার এটি টানা ষষ্ঠ জয়। তবে আর ঘরের মাঠে সেই শিরোপা জয়ের পর থেকেই কিছুটা ব্যাকফুটে ব্রাজিল। কোপার ফাইনালের পর তাদের পঞ্চম ম্যাচে তাদের এটি দ্বিতীয় পরাজয়।

অথচ ম্যাচের প্রথম গোল পেতে পারত ব্রাজিলই। ১০ মিনিটের মাথায় পেনাল্টি পেয়েছিল তারা। কিন্তু পোস্টের বাইরে শট করে বসেন গ্যাব্রিয়েল হেসুস। যে কারণে পুড়তে হয় সহজ সুযোগ মিসের যন্ত্রণায়।

তার ১ মিনিটের মাথায় পেনাল্টি পায় আর্জেন্টিনাও। মেসির নেয়া সেই শট ঠেকিয়ে দিয়েছিলেন ব্রাজিল গোলরক্ষক অ্যালিসন বেকার। কিন্তু ফিরতি শটে দলকে এগিয়ে দেন আর্জেন্টাইন অধিনায়ক। চোট পাওয়ার কারণে এদিন মাঠে নামতে পারেননি ব্রাজিল তারকা নেইমার।

শুরুতেই গোল হজম করে ম্যাচে ফিরতে মরিয়া হয়ে পড়ে ব্রাজিল। কিন্তু এতে কাজের কাজ হয়নি কিছুই। উলটো ২২ মিনিটে ক্যাসেমিরো এবং ২৭ মিনিটে হলুদ কার্ড দেখেন দানিলো। কিন্তু তেমন কোনো জোরালো আক্রমণ করতে পারেনি তারা।

বিরতির আগে একটি হলুদ কার্ড অবশ্য দেখেছে আর্জেন্টিনাও। ডি পল হলুদ কার্ড পান ৪৩ মিনিটের সময়। এর দুই মিনিট পর আর্জেন্টাইন গোলরক্ষক আনদ্রাদা ডি বক্সের বাইরে এসে বল ক্লিয়ার করতে গেলে ফাঁকায় পেয়ে যান হেসুস। কিন্তু এ সুযোগটিও হাতছাড়া করেন তিনি। ফলে পিছিয়ে থেকেই মাঠ ছাড়তে হয় ব্রাজিলকে।

দ্বিতীয়ার্ধে ফিরেও কোনো গোল করতে পারেনি দুই দল। উল্টো বেড়েছে হলুদ কার্ডের সংখ্যা। এবার আর্জেন্টিনার পক্ষে হলুদ কার্ড দেখেন নিকলাস তালিয়াফিকো এবং লিওনেল পারেদেস। ব্রাজিলের পক্ষে সতর্কবার্তা স্বরুপ কার্ড দেখেন এডের মিলিটাও।

পুরো ম্যাচজুড়েই বল দখলে এগিয়ে ছিলো ব্রাজিল। ম্যাচের প্রায় ৬৬ শতাংশ সময় নিজেদের দখলে বল রাখে তারা। কিন্তু গোলমুখে শট নিতে পারে মাত্র ১টি। অন্যদিকে ৮ বার লক্ষ্য বরাবর শট নিয়েও একটির বেশি গোল পায়নি আর্জেন্টিনা। তবে মেসির করা সেই এক গোলই জিতিয়ে দেয় ম্যাচ।

অমৃতবাজার/এএস