ঢাকা, বুধবার, ২৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১৪ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

টস জিতে বোলিংয়ে বাংলাদেশ


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৭:৪২ পিএম, ১০ নভেম্বর ২০১৯, রোববার
টস জিতে বোলিংয়ে বাংলাদেশ

 

সিরিজ নির্ধারণী ম্যাচে আজ ভরতের মুখোমুখি বাংলাদেশ। তিন ম্যাচ টি-টোয়েন্টি সিরিজের প্রথমটিতে ৭ উইকেটের জয় পাওয়া বাংলাদেশ, দ্বিতীয়টিতে হার মানে ৮ উইকেটে। আজ নাগপুরে সিরিজ নিষ্পত্তির এ ম্যাচে টস জিতে বোলিং নিয়েছে বাংলাদেশ।

বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায় শুরু হওয়া এ ম্যাচে যারা জিতবে সিরিজ যাবে তাদেরই ঘরে।  অঘোষিত ফাইনাল। ভারত-বাংলাদেশ দুই দলই আজ সিরিজ দখলের লড়াইয়ে। কিন্তু পরিসংখ্যান বলছে, নাগপুরের এই মাঠে ভারতের জয়ের রেকর্ড খুব একটা ভাল নয়।

তাইতো ভারতের মাটিতে ঐতিহাসিক সিরিজ জয়ের হাতছানি দেখছে বাংলাদেশ। এমন ম্যাচে টাইগাররা যে মরণ কামড় দেবে তা বলাবাহুল্য। তবে ঘরের মাঠে সিরিজ জয়ের সুযোগ এত সহজে ছাড়তে চাইবেন না ক্যাপ্টেন রোহিত শর্মা। তার উপর বিরাট কোহলির অনুপস্থিতিতে দল পরিচালনার দায়িত্ব রয়েছে তার কাঁধে। তিনি সেই দায়িত্ব সর্বোতভাবে পালনের চেষ্টা করবেন।

তবে বাংলাদেশকে ভালো খবর দিচ্ছে নাগপুরের উইকেট। রাজকোটের ব্যাটিংবান্ধব উইকেটে সুবিধা করতে পারেননি বাংলাদেশি বোলাররা। আবার ব্যাটসম্যানরাও পারেনি প্রয়োজনীয় রান তুলতে। যাতে হারতে হয়েছে বড় ব্যবধানে। তবে খুশির খবর হচ্ছে, নাগপুরের উইকেট ততটা ব্যাটিং সহায়ক নয়, অনেকটা দিল্লির মতই স্লো।

তিন মাস আগেই নাকি নতুন মাটি ফেলা হয়েছে নাগপুরের এ উইকেটে। এসব ক্ষেত্রে বল ঠিকভাবে ব্যাটে আসে না, আসে থেমে থেমে। এমন মন্থর উইকেটেই তো অভ্যস্ত বাংলাদেশি ব্যাটসম্যান- বোলাররা। যেখানে স্ট্রোকের ফুলঝুড়ি ছুটিয়ে রানের বন্যা বইয়ে দেয়াটা নিতান্ত কঠিন।

অন্যদিকে রাজকোটের উইকেটে যেখানে ১৮৫ রানকে চ্যালেঞ্জিং স্কোর বলা হচ্ছিল। সেখানে নাগপুরের উইকেটে ১৫৫ রানকেই বলা হচ্ছে চ্যালেঞ্জিং। দেখা যাক, দিল্লির মত এবার নাগপুরের সুবিধাটা কাজে লাগাতে পারেন কিনা বাংলাদেশ।

এদিকে আজকের ম্যাচে একটি করে পরিবর্তন আছে উভয় দলেই। বাংলাদেশ দলে দুটি পরিবর্তনের আভাস থাকলেও শেষ পর্যন্ত এ ম্যাচে খেলছেন কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ। মোসাদ্দেকের পরিবর্তে দলে নেয়া হয়েছে মিঠুনকে। অন্যদিকে, ক্রুনাল পান্ডিয়াকে বসিয়ে এ ম্যাচে ভারত খেলাচ্ছে আরেক হার্ডহিটার মানিশ পান্ডেকে। 

বাংলাদেশ দল:

লিটন দাস, মোহাম্মদ নাঈম, সৌম্য সরকার, মুশফিকুর রহিম, মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ (অধিনায়ক), মোহাম্মাদ মিথুন, আফিফ হোসেন, মোস্তাফিজুর রহমান, আল আমিন হোসেন, আমিনুল ইসলাম এবং শফিউল ইসলাম।

ভারত দল:

রোহিত শর্মা, শিখর ধাওয়ান, লোকেশ রাহুল, শ্রেয়াস আয়ার, মানিশ পাণ্ডে, ঋষভ পান্ট, শুভম দুবে, ওয়াশিংটন সুন্দর, যুজবেন্দ্র চাহাল, দিপক চাহার, খলিল আহমেদ।