ঢাকা, শনিবার, ২০ জুলাই ২০১৯ | ৫ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

প্রধানকোচ স্টিভ রোডসকে বিদায়


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৩১ এএম, ০৯ জুলাই ২০১৯, মঙ্গলবার
প্রধানকোচ স্টিভ রোডসকে বিদায়

 

আগামী বছর অনুষ্ঠিতব্য টি২০ বিশ্বকাপ পর্যন্ত চুক্তি থাকলেও সে পর্যন্ত জাতীয় দলের কোচ হয়ে থাকা হচ্ছে না স্টিভ রোডসের। অনেক আগেই তাকে বাংলাদেশের প্রধান কোচের দায়িত্ব থেকে বিদায় নিতে হচ্ছে।

গতকাল সোমবার বিসিবির মিডিয়া কমিটির চেয়ারম্যান জালাল ইউনুস গণমাধ্যমকে বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন।

তিনি বলেন, সমঝোতার ভিত্তিতে তার সঙ্গে (রোডসের সঙ্গে) চুক্তি বাতিল করা হয়েছে। আগামী ২২ জুলাই বোর্ড সভায় শ্রীলংকা সফরে কোচের দায়িত্ব কে পালন করবেন, সে বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে।

বিশ্বকাপ এখনো চলছে, কিন্তু বাংলাদেশের বিশ্বকাপ শেষ হয়েছে অনেক আগেই। মাত্র তিন ম্যাচে জয় নিয়ে পয়েন্ট তালিকার আটে ছিল বাংলাদেশ।

বড় কোনো দলের বিপক্ষে জিততে না পারায় ভেস্তে গেছে সেমির স্বপ্ন। ফলে, বিদায় নিতে হয়েছে টাইগারদের।

গত রোববার বিশ্বকাপ মিশন শেষে ঢাকায় ফিরেছে জাতীয় ক্রিকেট দল। এরই মধ্যে চলছে শ্রীলংকা সফরের প্রস্তুতি।

বিসিবির নির্বাহী প্রধান নিজামউদ্দিন চৌধুরী জানিয়েছেন, সূচি চূড়ান্ত না হলেও, এ মাসের শেষের দিকে তিন ম্যাচের ওয়ান্ডে সিরিজ খেলতে শ্রীলংকা সফরে যাবে বাংলাদেশ।

জানা গেছে, বিশ্বকাপ চলাকালে কিছু ব্যাপারে সিদ্ধান্ত নেয়ার ক্ষেত্রে ও ড্রেসিংরুমে খেলোয়ারদের সঙ্গে সম্পর্কটা ভাল যায়নি রোডসের। ফলে, বিশ্বকাপে টাইগারদের সেমির ট্রেন মিস করার জন্য তাকেই দায়ী করা হয়। যার ফলাফল গতকালের বরখাস্ত।

তবে, সাকিব ও মুশফিক ছাড়া টাইগারদের কোন ব্যাটসম্যান ভালো করতে পারেননি। ফলে, শুধু তাকে দায়ী করা ঠিক হবে কিনা, তা নিয়ে রয়েছে প্রশ্ন।

গুঞ্জন হচ্ছিল শ্রীলংকা সফরই হতে যাচ্ছে রোডসের শেষ মিশন। তবে, তার আগেই নিজেদের সিদ্ধান্ত জানিয়ে দিল বিসিবি।

আগামী বছর অস্ট্রেলিয়ায় অনুষ্ঠিতব্য টি২০ বিশ্বকাপের আসর বসবে। সেখানে নেতৃত্ব দেয়ার কথা ছিল রোডসের। এরপরই বিদায় নেয়ার কথা ছিল তার। কিন্তু চুক্তির ১৬ মাস আগেই রোডসকে সরিয়ে দিল বিসিবি।

সাবেক কোচ হাথুরুসিংহের বিদায়ের পর ২০১৮ সালের ৭ জুন তাকে নিয়োগ দেয় বিসিবি। শুরুটা তেমন ভাল করতে পারেননি রোডস। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে টেস্ট মিশন দিয়ে তার বাংলাদেশ যাত্রা শুরু হয়। সে ম্যাচে ২-০ ব্যবধানে হেরেছিল সাকিবরা।

যদিও ক্যারিবিয়ানদের মাটিতে ওয়ান্ডেতে ঘুরে দাঁড়ায় টাইগাররা। সে সিরিজে ৩-১ ব্যবধানে জয় পায় মাশরাফিরা।

তবে তার সাফল্য ছিল উল্লেখ করার মতো। ২০১৮ সালে সংযুক্ত আরব আমিরাতে অনুষ্ঠিত এশিয়া কাপে তার নেতৃত্বে ফাইনাল খেলে বাংলাদেশ। যদিও ভারতের কাছে অল্পের জন্য হেরে যায় টাইগাররা।

এছাড়া, নিদাহাস ট্রফিতে ফাইনাল খেলা এবং বিশ্বকাপের আগে আয়ারল্যান্ডে অনুষ্ঠিত ত্রিদেশীয় সিরিজে চ্যাম্পিয়ন হওয়া ছিল বাংলাদেশের জন্য সবচেয়ে বড় পাওয়া। এর মধ্য দিয়ে আন্তর্জাতিক কোনো টুর্নামেন্টে চ্যাম্পিয়ন হয় টাইগাররা।

ইংল্যান্ড অ্যান্ড ওয়েলসে চলতি বিশ্বকাপে শুরুটা ভালই করেছিল বাংলাদেশ। নিজেদের প্রথম ম্যাচে দক্ষিণ আফ্রিকার বিপক্ষে বড় জয় দিয়ে বিশ্বকাপ মিশন শুরু করে টাইগাররা।

কিন্তু স্বাগতিক ইংল্যান্ড থেকে শুরু করে নিউজিল্যান্ড, অস্ট্রেলিয়া এমনকি যাদের হারিয়ে সেমিতে যাওয়ার স্বপ্ন ছিল সাকিবদের সেই দুই চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ভারত ও পাকিস্তানের কাছে হেরে আসর থেকে চূড়ান্তভাবে ছিটকে পড়ে টাইগাররা।

বড় দলগুলোর সঙ্গে এক সাকিব আল হাসান ও মুশফিকুর রহিম ছাড়া নিজেদের নামের বিচার কেউই করতে পারেননি। ফলে দল হেরেছে। সঙ্গে কপাল পুড়েছে প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের।

শেষ পর্যন্ত প্রধান এ কোচকে বরখাস্ত করলো দেশের ক্রিকেটের সর্বোচ্চ সংস্থা বিসিবি।

অমৃতবাজার/এএস