ঢাকা, সোমবার, ১৯ আগস্ট ২০১৯ | ৪ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বাংলাদেশের সামনে অস্ট্রেলিয়ার পাহাড়সম লক্ষ্য


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৭:৫৩ পিএম, ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৭:৫৪ পিএম, ২০ জুন ২০১৯, বৃহস্পতিবার
বাংলাদেশের সামনে অস্ট্রেলিয়ার পাহাড়সম লক্ষ্য

 

বাংলাদেশের বিপক্ষে ব্যাটিংয়ে নেমে অজি ব্যাটসম্যানদের তাণ্ডবে বাংলাদেশের বিপক্ষে বিশাল সংগ্রহ দাঁড় করেছে অস্ট্রেলিয়া। ৪৯ ওভার শেষে অজিদের ইনিংসে বৃষ্টি আঘাত হানার আগেই তাদের সংগ্রহ দাঁড়ায় পাঁচ উইকেটে ৩৬৮ রান।

এর আগে টস জিতে ব্যাটিংয়ে নেমে ৯.৩ ওভারে স্কোরবোর্ডে ৫০ রান যোগ করেন দুই ওপেনার অ্যারন ফিঞ্চ ও ডেভিড ওয়ার্নার। আর মাত্র ১৬.৩ ওভারেই দলীয় শত রানে পৌঁছায় এই জুটি।

উইকেটে থিতু হওয়ার পর থেকেই বাংলাদেশি বোলারদের উপর চড়াও হয়ে একের পর এক বাউন্ডারি-ওভার বাউন্ডারি হাঁকাতে থাকেন ওয়ার্নার-ফিঞ্চ। কোন ভাবেই উইকেট পাচ্ছিলেন না বাংলাদেশী বোলাররা। মাশরাফি, মোস্তাফিজ, সাকিব, রুবেল মিরাজরা ইনিংসের প্রথম ২০ ওভার বল করেও দলকে ব্রেক থ্রু এনে দিতে ব্যর্থ হন।

অবস্থা বেগতিক দেখে ২১তম ওভারে এসে পার্টটাইম বোলার সৌম্য সরকারের হাতে বল তুলে দেন মাশরাফি। সুযোগ পেয়ে অধিনায়ককে হতাশ করেননি পার্টটাইমার সৌম্য। নিজের প্রথম ওভারের পঞ্চম বলেই অ্যারন ফিঞ্চকে আউট করার মধ্য দিয়ে অজিদের উদ্বোধনী জুটি ভাঙেন সৌম্য।

টুকটাক বোলিং করা জাতীয় দলের ওপেনার সৌম্য বোলিংয়ে এসেই অস্ট্রেলিয়ান অধিনায়ক অ্যারন ফিঞ্চকে ক্যাচ তুলে দিতে বাধ্য করেন। রুবেলের হাতে ক্যাচ তুলে দিয়ে ফেরার আগে ৫১ বলে ৫টি চার ও দুই ছক্কায় ৫৩ রান করেন ফিঞ্চ। সাজঘরে ফেরার আগে উদ্বোধনীতে ডেভিড ওয়ার্নারের সঙ্গে ১২১ রানের জুটি গড়েন।

ফিঞ্চ আউট হওয়ার পর মনে হয়েছিলো এবার বুঝি অজিদের চেপে ধরবে টাইগাররা। কিন্তু না, সেটা আর হতে দিলেন না ক্রিজে নতুন আসা উসমান খাজা ও আরেক ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। বাংলাদেশি বোলারদের উপর রীতিমত তাণ্ডব চালিয়ে ২৩.৩ ওভারে গড়েন ১৯২ রানের আগ্রাসী জুটি।

হ্যাঁ পাঠক, শেষ পর্যন্ত আউট হন মারকুটে বাঁহাতি ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার। তার আউটের মধ্যে দিয়েই ভাঙে অজিদের দ্বিতীয় উইকেট জুটি। তবে কোন স্বীকৃত বোলার নয়, এবারো বাংলাদেশ শিবিরের ত্রাতা সেই সৌম্য সরকার। ৪৫তম ওভারে বল হাতে এসে আবারো সেই রুবেলে হাতে ধরা পড়তে বাধ্য করেন ওয়ার্নারকে। ১৬৬ রানের অনবদ্য ইনিংস খেলে আউট হন ওয়ার্নার। ১৪৭ বল খেলে চৌদ্দটি চার ও পাঁচটি ছক্কায় সাজানো তার ইনিংসটি।

পরে খাজাকেও আউট করেন সৌম্য। ব্যক্তিগত ৮৯ রান করে উইকেটের পিছনে মুশফিকের গ্লাভসে ধরা পড়েন খাজা। ৭২ বল মোকাবেলায় দশটি বাউন্ডারির সাহায্যে ইনিংসটি সাজান তিনি। আর খাজাকে আউট করার মধ্যদিয়েই ক্যারিয়ারে প্রথমবারের মত তিন উইকেট পেলেন বাঁহাতি ব্যাট করা ডানহাতি এই মিডিয়াম পেসার। ৪৯টি ওয়ানডে খেলা সৌম্য মাঝে মধ্যে হাত ঘুরিয়ে এর আগে মাত্র একটি উইকেটই ছিলো তার ঝুলিতে।

এদিকে বড় স্কোর গড়ার পথে অজি শিবিরের আরেক মারকুটে গ্লেন ম্যাক্সওয়েল আউট হন মাত্র ১০ বলে ৩২ রান করে। রুবেলের থ্রোতে রান আউট হওয়ার আগে তিনটি ছক্কা আর দুটি চারে এই ঝোড়ো ইনিংস খেলেন ম্যাক্স। পরে লেগ বিফোরের ফাঁদে ফেলে স্মিথকে (১) দ্রুত সাজঘরে ফেরান কাটার মাস্টার মোস্তাফিজ। ফলে ৪৭.১ ওভারে ৩৫৪ রানে পঞ্চম উইকেট হারায় অজিরা। তবে শেষ ওভারের আগেই নামে বৃষ্টি।

ইতিমধ্যে বিশ্বকাপের পয়েন্ট টেবিলের তৃতীয় পজিশনে আছে অস্ট্রেলিয়া। ৫ ম্যাচে ৪ জয়ে অজিদের সংগ্রহ ৮ পয়েন্ট। আর পাঁচ ম্যাচে দুই জয়ে ৫ পয়েন্ট নিয়ে পঞ্চম অবস্থানে রয়েছে বাংলাদেশ।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

অস্ট্রেলিয়া: ৫০ ওভারে ৩৮১/৫ (ফিঞ্চ ৫৩, ওয়ার্নার ১৬৬, খাওয়াজা ৮৯, ম্যাক্সওয়েল ৩২, স্টয়নিস ১৭*, স্মিথ ১, কেয়ারি ১১*; মাশরাফি ৮-০-৫৬-০, মুস্তাফিজ ৯-০-৬৯-১, সাকিব ৬-০-৫০-০, রুবেল ৯-০-৮৩-০, মিরাজ ১০-০-৫৯-০, সৌম্য ৮-০-৫৮-৩)।

অমৃতবাজার/এএস