ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ আগস্ট ২০১৯ | ৭ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ফিঞ্চ-শনের ব্যাটে ভর করে অস্ট্রেলিয়ার জয়


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৪:১৬ পিএম, ২৩ মার্চ ২০১৯, শনিবার
ফিঞ্চ-শনের ব্যাটে ভর করে অস্ট্রেলিয়ার জয়

ব্যাটসম্যান হারিস সোহেলের সেঞ্চুরি বিফল করে সিরিজের প্রথম ওয়ানডেতে পাকিস্তানের বিপক্ষে অস্ট্রেলিয়াকে ৮ উইকেটে সহজ জয় এনে দিলেন অধিনায়ক অ্যারণ ফিঞ্চ ও শন মার্শ। ফিঞ্চ সেঞ্চুরি করে ১১৬ রানে আউট হন। তবে ৯১ রানে অপরাজিত থাকেন শন। এই জয়ে পাঁচ ম্যাচ সিরিজে ১-০ ববধানে এগিয়ে গেল অস্ট্রেলিয়া।

শারজাহতে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং বেছে নেন পাকিস্তানের অধিনায়ক শোয়েব মালিক। দুই ওপেনার ইমাম উল হক ও শান মাসুদ ৩৫ রানের জুটি গড়েন। ইমাম ১৭ রানে থামলেও রানের চাকা সচল রাখেন মাসুদ। তবে বেশি দূর যেতে পারেননি। ৬২ বলে ৪০ রান করে আউট হন তিনি।

এরপর দলকে শক্ত ভিত গড়ে দেন দুই মিডল-অর্ডার ব্যাটসম্যান হারিস সোহেল ও উমর আকমল। সর্তক থাকলেও দেখেশুনেই রান তুলছিলেন তারা। ধীরে ধীরে এই জুটি বড় হচ্ছিলো। তাই দলীয় ১৭৬ রানে ও ৩৮তম ওভারে এই জুটিতে ভাঙন ধরান অস্ট্রেলিয়ার পেসার কটলার নাইল। ৩টি ছক্কায় ৫০ বলে ৪৮ রান করা আকমলকে ফিরিয়ে দেন নাইল।

পরের দিকে অধিনায়ক মালিক ১১ রানে থামলেও সোহেলকে সঙ্গ দিয়েছেন ফাহিম আশরাফ ও ইমাদ ওয়াসিম। পঞ্চম উইকেটে আশরাফকে নিয়ে ৮ ওভারে ৫৭ ও ষষ্ঠ উইকেটে ওয়াসিমকে নিয়ে ৩ ওভারে ৩৩ রান যোগ করেন সোহেল। শেষ ওভারের প্রথম বলে ২৭তম ওয়ানডে ক্যারিয়ারে প্রথম সেঞ্চুরি তুলে নেন সোহেল। সেঞ্চুরি তুলে ১০১ রানে অপরাজিত থাকেন সোহেল। তার ১১৫ বলের ইনিংসে ৬টি চার ও ১টি ছক্কা ছিলো। শেষ পর্যন্ত নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৫ উইকেট হারিয়ে ২৮০ রান সংগ্রহ করে পাকিস্তান। অস্ট্রেলিয়ার কালটার-নাইল ২টি উইকেট নেন।

জবাবে ২৮১ রানের লক্ষ্যে ভালো শুরু করে অস্ট্রেলিয়ার দুই ওপেনার উসমান খাজা ও ফিঞ্চ। সদ্যই শেষ হওয়া ভারতের বিপক্ষে সিরিজে ২টি সেঞ্চুরিতে ৩৮৩ রান করেছিলেন খাজা। তাই দুর্দান্ত ফর্মে থেকে এই সিরিজটি শুরু করেন তিনি। কিন্তু এ ম্যাচে ২৪ রানে বেশি করতে পারেননি খাজা। দলীয় ৬৩ রানে খাজা ফিরে গেলে ক্রিজ ফিঞ্চের সঙ্গী হন শন। দু’জনে পাকিস্তান বোলারদের বিপক্ষে দেখেশুনে খেলতে থাকেন।

দ্রুত উইকেট ও কন্ডিশনের সাথে মানিয়ে নিয়ে রান তোলায় মনোযোগি হন ফিঞ্চ ও শন। এতে দলের স্কোর সামনের দিকে সহজেই এগিয়ে যেতে থাকে। এক পর্যায়ে দু’শও ছাড়িয়ে যায় অস্ট্রেলিয়ার সংগ্রহ। তখন ফিঞ্চ ৯৬ ও শন ৬৮ রানে অপরাজিত ছিলেন।

৩৯তম ওভারের তৃতীয় বলে পাকিস্তানরে অধিনায়ক মালিককে ছক্কা মেরে ১০৫ ম্যাচের ওয়ানডে ক্যারিয়ারের ১২তম ও পাকিস্তানের বিপক্ষে প্রথম সেঞ্চুরির স্বাদ পান ফিঞ্চ। সেঞ্চুরি তুলে দলের জয় নিশ্চিতের পথেই হাটচ্ছিলেন ফিঞ্চ। তবে তার এই ব্যক্তিগত আশা পূরণ হয়নি। ১১৬ রানে আউট হন তিনি। সেই সাথে তাকে নিয়ে সমালোচকদের মুখও বন্ধ করে দিলেন ফিঞ্চ।

১৩৫ বল মোকাবেলা করে ৮টি চার ও ৪টি ছক্কা মারেন তিনি। বেশ কিছুদিন ধরে রান খড়ায় ভুগচ্ছিলেন ফিঞ্চ। ভারত সিরিজে বলার মত কেবলমাত্র ৯৩ রানের একটি ইনিংস খেলেছিলেন এই ডান-হাতি ব্যাটসম্যান। দ্বিতীয় উইকেটে শনের সাথে ১৮৮ বলে মূল্যবান ১৭২ রান যোগ করেন ফিঞ্চ। যা অস্ট্রেলিয়ার জয়ের ভিত গড়ে দেয়।

ফিঞ্চ যখন ফিরেন তখন অস্ট্রেলিয়ার জয়ের জন্য প্রয়োজন ছিলো ৮ উইকটে হাতে নিয়ে ৪৫ বলে ৪৬ রান। দলের এই প্রয়োজন তৃতীয় উইকেটে মিটিয়েছেন শন ও পিটার হ্যান্ডসকম্ব। ১ ওভার বাকী রেখে অস্ট্রেলিয়ার জয় নিশ্চিত করেন শন ও হ্যান্ডসকম্ব। ৪টি চার ও ২টি ছক্কায় ১০২ বলে শন ৯১ ও হ্যান্ডসকম্ব ২৭ বলে অপরাজিত ৩০ রান করেন। ম্যাচ সেরা হয়েছেন অস্ট্রেলিয়ার ফিঞ্চ।

আগামীকাল একই ভেন্যুতে অনুষ্ঠিত হবে সিরিজের দ্বিতীয় ওয়ানডে।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:
পাকিস্তান: ২৮০/৫, ৫০ ওভার (সোহেল ১০১*, উমর ৪৮, কালটার-নাইল ২/৬১)।
অস্ট্রেলিয়া: ২৮১/২, ৪৯ ওভার (ফিঞ্চ ১১৬, শন ৯১*, আব্বাস ১/৪৪)।
ফল: অস্ট্রেলিয়া ৮ উইকেটে জয়ী।
ম্যাচ সেরা: অ্যারন ফিঞ্চ (অস্ট্রেলিয়া)।
সিরিজ: পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ১-০ ব্যবধানে এগিয়ে গেল অস্ট্রেলিয়া।

অমৃতবাজার/আরএইচ