ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ১০ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

জানুয়ারিতে জুভেন্টাস ছাড়ছেন দিবালা!


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০২:১৪ পিএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার
জানুয়ারিতে জুভেন্টাস ছাড়ছেন দিবালা!

আগামী বছর জানুয়ারিতে জুভেন্টাস ছেড়ে দিচ্ছেন পাওলো দিবালা এবং ইতোমধ্যেই ইংল্যান্ড ও স্পেনের বিভিন্ন বড় ক্লাব থেকে তাকে প্রস্তাব দেয়া হয়েছে বলে ইঙ্গিত দিয়েছেন আর্জেন্টাইন এই তারকার সাবেক ক্লাব পালেরমোর স্বত্বাধিকারি মরিজিও জামপারিনি।

গত মাসে জুভেন্টাসের হয়ে শিয়েভোর বিপক্ষে সিরি-আ মৌসুম শুরু করেছেন এই তরুন ফরোয়ার্ড। কিন্তু আন্তর্জাতিক বিরতিকে সামনে রেখে ল্যাজিওর বিপক্ষে ২-০ গোলের জয়ের ম্যাচটিতে তিনি ছিলেননা। পালমার বিপক্ষে ২-১ গোলের জয়ের ম্যাচটিতে মাত্র ১০ মিনিট মাঠে ছিলেন।

সাম্প্রতীক সময়ে আন্তর্জাতিক পরিসরেও ২৪ বছর বয়সী এই ফরোয়ার্ডের সময়টা ভাল যাচ্ছেনা। বিশ্বকাপের বেশীরভাগ ম্যাচেই বেঞ্চে বসে থাকা দিবালা সর্বশেষ দুটি আন্তর্জাতিক ম্যাচেও মূল একাদশে জায়গা পাননি।

জামপারিনির সহায়তায় ২০১৫ সালে পালেরমো থেকে জুভেন্টাসে পাড়ি জমিয়েছিলেন ডিবালা। কিন্তু তার মত একজন খেলোয়াড়কে মূল একাদশের বাইরে রাখার জন্য জুভেন্টাসের কোচ মাসিমিলিয়ানো আলেগ্রির সমালোচনা করেছেন জামপারিনি।

আগামী ট্রান্সফার উইন্ডোতে দিবালার লা লিগায় চলে আসার বিষয়ে মত দিয়েছেন জামপারিনি। এ সম্পর্কে তিনি বলেন, ‘প্রতি ম্যাচেই তাকে বাইরে রাখা হচ্ছে, বিষয়টি বেশ দু:খজনক। আলেগ্রির কারনেই সে বদলী বেঞ্চে রয়েছে। দুই বছর আগে আমি দিবালাকে বলেছিলাম ইতালিতে নয়, স্পেনে চলে যেতে। সে অবশ্যই জুভেন্টাস ছাড়বে, কারন জুভেন্টাস তার জন্য ১২০ মিলিয়ন ইউরো দাবী করেছে। আমার মনে হয় জানুয়ারিতে সে স্পেনে পাড়ি জমাবে। ইতেমধ্যেই ইংল্যান্ড ও স্পেন থেকে তার কাছে প্রস্তাব এসেছে। জুভেন্টাস দলে অনেক তারকা খেলোয়াড় রয়েছে। আর সে কারনেই দু:খ লাগে এরপরেও জাতীয় দলে তাকে বসিয়ে রাখা হয়।’

এর আগে বার্সেলোনার সঙ্গে দিবালার আলোচনার গুঞ্জন শোনা গিয়েছিল। এছাড়া ক্রিস্টিয়ানো রোনাল্ডোকে ১১২ মিলিয়ন চুক্তিতে জুভেন্টাসে ছেড়ে দেবার পর রিয়াল মাদ্রিদের পক্ষ থেকেও তাকে প্রস্তাবের কথা চারিদিকে ছড়িয়ে পড়েছিল। এদিকে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের পক্ষ থেকে তার প্রতি আগ্রহ দেখানো হয়েছে। সম্ভবত পল পগবা তুরিনে ফিরছেন, এমন গুঞ্জনের পরেই দিবালাকে নেবার বিষয়টি ম্যান ইউ’র পক্ষ থেকে আলোচনায় আসে।

অমৃতবাজার/সুজন