ঢাকা, শনিবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৭ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

মেসির আরও একটি অবিশ্বাস্য রেকর্ড


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৬:২১ পিএম, ২৫ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, রোববার
মেসির আরও একটি অবিশ্বাস্য রেকর্ড

লিওনেল মেসির বার্সেলোনায় অভিষেক হয় ২০০৪ সালে। এই ক্লাবটির হয়ে খেলেছেন ৬২২ ম্যাচ। দীর্ঘ সময়ে বার্সার হয়ে করেছেন অনেক রেকর্ড এবং ভেঙেছেন অনেক দিনের জমে থাকা অনেক বিশ্বরেকর্ডও। গতকাল জিরোনার বিপক্ষে গোল করে লা লিগায় ৩৬টি আলাদা দলের বিপক্ষে গোল করার রেকর্ড করলেন মেসি।

ফুটবলে যে ১১টি ক্লাবের বিপক্ষে বার্সার মেসি গোল পাননি, জিরোনা ছিল তাদের একটি। গতরাতে জিরোনার বিপক্ষে গোল করেন মেসি। লা লিগায় এতদিন ৩৫টি ভিন্ন ক্লাবের বিপক্ষে গোল করে রিয়াল তারকা রাউল গঞ্জালেজ এবং অ্যাথলেটিক বিলবাওয়ের আরিৎজ আদুরিজের সাথে রেকর্ড ভাগাভাগি করা মেসি কাল জিরোনার বিপক্ষে গোল করে এই রেকর্ডটাও নিজের দখলে নিলেন মেসি।

এদিকে লা লিগায় লিওনেল মেসির অ্যাসিস্ট সংখ্যাই সর্বোচ্চ (১৪৮)। গোল করানোর রেকর্ডে রিয়াল মাদ্রিদের সাবেক মিডফিল্ডার মিকেলের সঙ্গে (১৪৭ অ্যাসিস্ট) রেকর্ড ভাগাভাগি করছিলেন এই আর্জেন্টাইন ক্ষুদে জাদুকর। জিরোনার বিপক্ষে ম্যাচের ৫ মিনিটের মাথায় সুয়ারেজের প্রথম গোলে সহায়তা করে মিকেলকে টপকে সর্বোচ্চ গোল করানোর রেকর্ডটি শুধুই নিজের করে নেন মেসি।

এদিকে লা লিগায় টানা ৩২ ম্যাচ অপরাজিত রয়েছে বার্সেলোনা। দলের সাবেক কোচ লুইস এনরিকের সময় রিয়াল সোসিয়েদাদের বিপক্ষে জয় দিয়ে এই অপরাজিত থাকার ধারা শুরু করেছিল কাতালানরা। এনরিকের অধীনে ৭ ম্যাচ অপরাজিত থাকার পর এ মৌসুমে ভালভার্দের অধীনে ২৫ ম্যাচের একটি ম্যাচেও হারেনি স্প্যানিশ জায়ান্ট দলটি। এই সময়ে ২৭টি জয় এবং ৫টি ম্যাচে ড্র নিয়ে মাঠ ছেড়েছে বার্সা। লা লিগায় বেশিসংখ্যক ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড সোসিয়েদাদের। ১৯৭৮-৭৯ এবং ১৯৭৯-৮০ এই দুই মৌসুম মিলিয়ে টানা ৩৮ ম্যাচ অপরাজিত ছিল সোসিয়েদাদ।

চলতি মৌসুমে রিয়ালকে হারানোর সুখস্মৃতি রয়েছে পুঁচকে জিরোনার। স্বপ্ন ছিল বার্সার মাঠেও অঘটনের সৃষ্টি করা। কিন্তু ম্যাচের সময় বার্সা খেলার মাধ্যমে জানান দিল, তারা এবারের লা লিগা চ্যাম্পিয়ন হওয়ার সবচেয়ে বড় দাবিদার। প্রথম পিছিয়ে পড়েও জিরোনাকে ৬-১ গোলে হারিয়েছে আর্নেস্তো ভালভার্দের দল। আজকের জয় দিয়েই ২০০৯-১০ মৌসুমে পেপ গার্দিওলার বার্সার টানা ৩১ লা লিগা ম্যাচ অপরাজিত থাকার রেকর্ড ভেঙে দিল ভালভার্দের বার্সা (৩২)। জিরোনার বিপক্ষে মূল অবদানটা লুইস সুয়ারেজের। হ্যাটট্রিক করেছেন এই উরুগুইয়ান স্ট্রাইকার। ২ গোল করেছেন লিওনেল মেসি। বার্সার অন্য গোলটি এসেছে দলের নতুন সেনসেশন ফিলিপ কুতিনহোর পা থেকে।

অমৃতবাজার/সবুজ/মাসুদ