ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

শুরু হচ্ছে ‘গাজী টায়ার্স ক্রিকেটার্স হান্ট সিজন-২’


মাসুদ রানা

প্রকাশিত: ০১:১৮ পিএম, ০৪ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার | আপডেট: ০১:২২ পিএম, ০৪ নভেম্বর ২০১৭, শনিবার
শুরু হচ্ছে ‘গাজী টায়ার্স ক্রিকেটার্স হান্ট সিজন-২’

বাংলাদেশের একাধিকবার পেসার হান্টের আয়োজন করা হলেও সেটা নিয়মিত হয়নি। তবে সেখানে ব্যাটসম্যান, স্পিনার কিংবা উইকেটরক্ষকদের উঠে আসার সুযোগ ছিল না। তাই সবাইকে সুযোগ করে দেওয়ার জন্য গত বছর অনুষ্ঠিত হয় গাজী টায়ারস্‌ ক্রিকেটার্স হান্টের প্রথম সিজন। খুব শিগগিরই প্রতিযোগিতাটির দ্বিতীয় সিজন শুরু হতে যাচ্ছে।

সারাবিশ্বে বাংলাদেশের ক্রিকেট দলের অবস্থান বদলে যাচ্ছে, তারই ধারাবাহিকতাকে ধরে রাখতে ভবিষ্যত ক্রিকেটার তৈরিতে গাজী টায়ারস্‌ ক্রিকেটার্স হান্ট অঙ্গীকারাবদ্ধ বলেই জানিয়েছে আয়োজকরা।

এ কর্মসূচির প্রথম সিজনের সারাদেশে ২৫ হাজারেরও বেশি ক্রিকেটারদের মধ্য থেকে ৬৮ জন ক্রিকেটারকে প্রাথমিকভাবে বাছাই করা হয়। যাদেরকে নিয়ে গাজী গ্রুপের ডিরেক্টর অব কোচিং এবং বাংলাদেশ জাতীয় দলের প্রাক্তন কোচ মোহাম্মদ সালাহউদ্দীনের নেতৃত্বে সাবেক জাতীয় ক্রিকেটার ও কোচরা, বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে (বিকেএসপি) একটি বুট ক্যাম্প করে। পরবর্তী সময়ে সেখান থেকে চূড়ান্তভাবে ২২ জনকে গত বছর নভেম্বরের ২ তারিখে গ্র্যান্ড ফিনালে বিজয়ী হিসেবে নির্বাচিত করা হয়।

বিজয়ী ২২ জনকে ক্রিকেট কিট সেট, ‘গোলাম দস্তগীর গাজী ক্রিকেট স্কলারশিপ’ প্রদান করার ঘোষণা এবং ঢাকা প্রফেশনাল ক্রিকেট লীগে খেলার সুযোগ করে দেয়া হয়।

গাজী টায়ারস্‌ ক্রিকেটার্স হান্টের দ্বিতীয় সিজন সম্পর্কে প্রতিযোগিতার প্রজেক্ট কো-অর্ডিনেটর আল রাশেদ প্রধান অমৃতবাজারকে জানান, ‘খুব শিগগিরই এবারের আসর শুরু হবে। তবে দিন তারিখ এখনও নির্ধারিত হয়নি। প্রেস কনফারেন্স ও বিসিবির সাথে বৈঠকের মাধ্যমে বিস্তারিত জানানো হবে।’

তিনি আরও জানান, গত বছর আমরা ৮টি বিভাগীয় সদরে প্রতিযোগিতার আয়োজন করি। তবে এবার আমরা বিভাগীয় সদরের বাইরেও আরও কিছু জায়গায় আয়োজন করবো।

এই আয়োজনের মূল লক্ষ্য একেবারে তৃণমূল থেকে প্রতিভাবান ক্রিকেটারদেরকে তুলে আনা। যারা তাদের প্রতিভা প্রকাশিত করার কোন অবলম্বন খুঁজে পান না। আমরা চাই তাদেরকে সেই সুযোগ করে দিতে যেন তারা বাংলাদেশের হয়ে পার‌ফর্ম করতে পারে। এমনটাই বলেন আল রাশেদ প্রধান।

তিনি আরও বলেন, গত বছর আমরা বেশ কিছু প্রতিভাবান ক্রিকেটার পেয়েছিলাম। তারা এখন পেশাদার লিগে খেলছে। আমরা আমাদের এই প্রক্রিয়া বন্ধ করতে চাই না। আমরা বিসিবির জন্য ভবিষ্যত টাইগারদের একটা যথাযথ পাইপলাইন প্রস্তুত করতে চাই।

অমৃতবাজার/মাসুদ

Loading...