ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৬ আগস্ট ২০১৮ | ১ ভাদ্র ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

হ্যাটস অফ পৃথুলা


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৫:২১ পিএম, ১৩ মার্চ ২০১৮, মঙ্গলবার
হ্যাটস অফ পৃথুলা

বাংলাদেশের মেয়ে, আমাদের গর্ব #পাইলট_পৃথুলা_রশীদ কর্তব্য পালনকালীন সময়ে নিজের জীবন স্যাক্রিফাইস করে সর্বোচ্চ চেষ্টা করেছেন দশ জন যাত্রীর জীবন বাঁচাতে। হ্যাটস অফ পৃথুলা। মাথা নুয়ে আসে আপনাদের মতো সাহসী মানুষগুলোর জন্য। যেখানেই থাকুন খুব ভালো থাকুন। সৃষ্টিকর্তার কাছে প্রার্থনা করি আপনার কর্তব্যবোধ এবং স্যাক্রিফাইসের যথাযথ পুরষ্কার যেন আপনি পান।

আপনার টাইমলাইনে Describe Yourself এ আপনি লিখেছেন--" Ordinary Girl with extraordinary love for aviation, literature & floofy animals. " জীবনের সব থেকে প্রিয় কাজটি করতে করতে শেষ যাত্রা শুরু করলেন আপনি। এমন ভাগ্য সকলের হয় না। এই ছোট্ট জীবনে আপনি নিজেকে প্রমাণ করে গেলেন। আপনি হারিয়ে যাবেন না। বীরেরা কখনো হারিয়ে যায় না।

আর একটা কথা বলতে চাই শেষে আমাদের দেশের so called পুরুষ নামধারী কিছু অ-মানুষের জন্য। যারা বলছেন পৃথুলা মেয়ে ছিল বলেই প্লেন ক্রাশ ঘটেছে ব্লা ব্লা। আরো বলছেন NSU তে কি প্লেন চালানো শিখায় কিনা ইত্যাদি।

শুনুন----- Seriously!!! আরে মানুষের বাচ্চার মতো দেখতে পশুগুলোকেই তো আমরা মেয়েরা গর্ভে ধারণ করে জন্ম দিচ্ছি। সেখানে প্লেন চালানো আবার কোন ব্যাপার? পুরুষের মতো দেখতে জানোয়ারগুলো যখন আড়াই মাস, নয় বছরের শিশু থেকে শুরু করে ভাগ্নী, ছাত্রী, কন্যাকে রেপ করে মনুষ্যত্বের জলাঞ্জলি দিচ্ছে ঠিক তখন পৃথুলারা আমাদেরকে চিৎকার করে কাঁদতে শেখাচ্ছে। বেঁচে থাকাটাই যে BLESSING তা জানাচ্ছে।

অশিক্ষিত মূর্খগুলো এটা কি জানে পৃথুলা NSU তে লিটারেচারে পড়ছিল। পাইলট হলেই যে সাহিত্যের সঙ্গে সখ্য তৈরি করা যাবে না এমন নিয়ম কোথাও নেই। অমানুষগুলোর তা জানা নেই। আফসোস এসব মূর্খদের জন্য।

পৃথুলাদের জন্ম শুধু একটা কাজ করার জন্য হয় না। ওরা বছরের পর বছর জীবনের ঘানি বোঝার মতো টেনে চলে না। বরং ছোট্ট জীবনে পৃথিবী কে অনেক কিছু দিয়ে চলে যায়।

#RESPECT_পৃথুলা

ফেসবুক থেকে নেওয়া।

অমৃতবাজার/মাসুদ