ঢাকা, রোববার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২০ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

কৃষিভিত্তিক রোবট বানিয়ে প্রথম ঝিনাইদহের ২ শিক্ষার্থী


ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০২:৫০ পিএম, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার | আপডেট: ০২:৫১ পিএম, ২৮ জানুয়ারি ২০২০, মঙ্গলবার
কৃষিভিত্তিক রোবট বানিয়ে প্রথম ঝিনাইদহের ২ শিক্ষার্থী কৃষিভিত্তিক রোবট নিয়ে গবেষণায় ব্যস্ত বাপ্পী ও দেবাশীষ। ছবি: সংগৃহীত

কৃষিতে তথ্যপ্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানো আর সেইসঙ্গে কৃষিক্ষেত্রে উৎপাদন খরচ কমানোর লক্ষ্যে ঝিনাইদহ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ইলেক্ট্রনিক্স বিভাগের দুই শিক্ষার্থী এবার বানিয়েছেন কৃষিভিত্তিক রোবট। নিজেদের বানানো এই রোবটির নাম তারা দিয়েছেন ‘স্মার্ট এগ্রো রোবট’।

রোবটটির প্রধান প্রকৌশলী বক্তিয়ার আহম্মেদ বাপ্পী জানান, রোবটটি সয়ংক্রিয় ভাবে সূর্যের আলো থেকে সোলার প্যানেলের মাধ্যমে চার্জ নিয়ে কাজ করবে কৃষকের সারিযুক্ত জমিতে।

ক্ষুদে এই বিজ্ঞানী আরও জানান, গ্রামের মাঠে কৃষকের জমিতে কীটনাশক স্প্রে করতে দেখে তার ধারণা হয় একটি রোবট তৈরি করার। যার মাধ্যমে স্প্রে করা যাবে শরীরের জন্য ক্ষতিকর কীটনাশক। তার সহপাঠী দেবাশিষ কুমার বিশ্বাসকে সাথে নিয়ে দীর্ঘ ২ মাস ৭ দিনের প্রচেষ্টায় সফল হন রোবটটি তৈরী করতে।

ইতোমধ্যে ঝিনাইদহ, যশোর, মেহেরপুরসহ বিভিন্ন জেলায় ইনোভেশন সোসেসিং, তথ্যপ্রযুক্তি মেলায় প্রদর্শন করা হয়েছে বাপ্পী ও দেবাশীষের রোবটটি । প্রদর্শনীতে তাদের ‘স্মার্ট এগ্রো রোবট’ অর্জন করেছে প্রথম স্থান।

বাপ্পী আরও জানান, রোবটটি সারিযুক্ত কৃষি জমিতে সার, কীটনাশক প্রয়োগ, সেচ প্রদান ও আগাছা দমন করবে সংক্রিয় ভাবে। এমনকি কখন জমিতে সেচের প্রয়োজন তাও নির্ধারন করবে সে। স্মার্ট ফোনের মাধ্যমে নিয়ন্ত্রন করা এই রোবটটি।

বাপ্পী বলেন, রোবটটি প্রোটো টাইপ করা হয়েছে। সরকারি বা কোন অনুদান পেলে রোবটটির পূর্ণরূপ দেওয়া সম্ভব।

সহকারী দেবাশিষ কুমার বিশ্বাস বলেন, দেশের কৃষিতে প্রযুক্তির ব্যবহার বাড়ানোর লক্ষ্যে তাদের এই প্রচেষ্টা। যার মাধ্যমে কৃষকের উৎপাদন খচর কমবে সেই সাথে বাড়বে ফসলের আবাদ। এসময় রোবটটি আরও বড় করতে সরকারের সংশ্লিষ্ট মহলের দৃষ্টি আকর্ষন করেন তিনি।

এ ব্যাপারে ঝিনাইদহ পলিটেকনিক ইনস্টিটিউটের ভারপ্রাপ্ত অধ্যক্ষ আব্দুর রশিদ মল্লিক বলেন, রোবট তৈরীতে শিক্ষার্থীদের সকল প্রকার সহযোগিতা করা হয়েছে। এ ধরনের উদ্যোগকে সব সময় প্রতিষ্ঠান স্বাগত জানানো হয়। কৃষি ক্ষেত্রে রোবটটি কাজে লাগালে দেশের কৃষিতে যুক্তহবে নতুন মাত্রা, যেটি সহায়ক হবে উন্নত বাংলাদেশ গড়ার।

অমৃতবাজার/বিপাশ/এসএইচএম