ঢাকা, সোমবার, ১৮ জুন ২০১৮ | ৪ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

চার হাজার টাকায় ফোরজি স্মার্টফোন


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৮:৫১ পিএম, ১৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, রোববার
চার হাজার টাকায় ফোরজি স্মার্টফোন

তথ্যপ্রযুক্তির উৎকর্ষ সাধনে সাশ্রয়ী মূল্যে ফোরজি স্মার্টফোন উন্মোচন করল মোবাইল হ্যান্ডসেট কোম্পানি ‘উই’। রোববার রাজধানীর একটি হোটেলে গ্রামীণফোনের সাথে ‘উই টি১’ মডেলের হ্যাডসেটটি আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করেন বিটিআরসির মহাপরিচালক স্পেকট্রাম ম্যানেজমেন্ট ব্রিগেডিয়ার জেনারেল মো. নাসিম পারভেজ।

এসময় গ্রামীণফোনের সিইও মাইকেল ফোলি, ডেপুটি সিইও ইয়াসির আজমান, মাইক্রোম্যাক্স ইনফরমেটিক্স লিমিটেডের সহ প্রতিষ্ঠাতা ভিকাস জৈন এবং আমরা হোল্ডিংস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ ফরহাদ আহমেদ উপস্থিত ছিলেন।

৫ ইঞ্চির এইচডি ডিসপ্লের এই হ্যান্ডসেটের সঙ্গে আছে ২.৫ ডি কার্ভড গ্লাস। ব্যাকআপের জন্য রয়েছে ২২০০ মিলিঅ্যাম্পিয়ার আওয়ারের ব্যাটারি। ১ জিবি র‌্যামের এই ফোনটিতে ১.৩ গিগাহার্জের এমটিকে ৬৭৩৭ প্রসেসর রয়েছে। স্টোরেজের জন্য এতে ৮ জিবি র‌ম ব্যবহার করা হয়েছে। যা মাইক্রোএসডি কার্ডের মাধ্যমে বাড়িয়ে নেয়া যাবে।

অ্যানড্রয়েড ৭.০ নুগাট অপারেটিং সিস্টেম চালিত এই ফোনটিতে ৫ মেগাপিক্সেলের ফ্রন্ট ও রিয়ার ক্যামেরা আছে। ফোনটি কিনলে গ্রাহকরা উইর ৫০ জিবি ক্লাউড স্টোরেজ বিনামূল্যে ব্যবহারের সুযোগ পাবেন। আকর্ষণীয় প্যাকেজিংয়ে ফোনটির মূল্য নির্ধারণ করা হয়েছে ৪ হাজার ৪৪৪ টাকা।

ফোনটির সঙ্গে গ্রামীণফোনের আকর্ষণীয় বান্ডেল অফার রয়েছে। ২০ ফেব্রুয়ারি থেকে এই ব্যান্ডেল অফার উপভোগ করা যাবে। ফোনটি কিনে গ্রামীণফোনের ফোরজি সিম ব্যবহার করলে ৪ জিবি ফ্রি ইন্টারনেট, ৫০ মিনিট টক টাইম বিনামূল্যে পাওয়া যাবে। এছাড়াও ২৯ টাকায় ১ জিবি ইন্টারনেট নেয়া যাবে। ২৯ টাকায় ১ জিবি ইন্টারনেট অফার উপভোগ করা যাবে ৬ মাসে ১২ বার। এছাড়া হ্যান্ডসেটটিতে ১ বছরের বিক্রয়োত্তর সেবা এবং ১৫ দিনের আর্লি লাইফ ফেইলর সুবিধা পাওয়া যাবে।

সাশ্রয়ী মূল্যে ফোরজি স্মার্টফোন চালুর প্রেক্ষাপট ব্যাখ্যা করে আমরা হোল্ডিংস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক সৈয়দ ফরহাদ আহমেদ বলেন, দেশের সবচেয়ে বড় মোবাইল ফোন অপারেটর গ্রামীণফোনের সাথে আমরা ফোরজি স্মার্টফোনের জন্য পার্টনারশিপ করেছি। আমরা বিশ্বাস করি, দুটি প্রতিষ্ঠানের একসাথে পথ চলার মাধ্যমে আমরা দীর্ঘ পথ পাড়ি দিতে পারবো এবং সাশ্রয়ী মূল্যের ফোরজি স্মার্টফোনের মাধ্যমে প্রান্তিক পর্যায়ে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে অগ্রণী ভূমিকা রাখতে পারবো।

ফরহাদ আহমেদ বলেন, বাংলাদেশের তথ্যপ্রযুক্তি খাতে আমাদের লক্ষ লক্ষ তরুণরা নেতৃত্ব দেবে। প্রবাসে আমাদের ভাই-বোনেরা ভিডিও কলের মাধ্যমে এদেশে তাদের পরিবারের সাথে যোগাযোগ রক্ষা করছে। আমাদের এই টেকনোলোজি ব্যবহার করেই একদিন এদেশেও গুগল-ফেসবুকের জন্ম হবে। আমাদের দেশের মানুষের জীবনব্যবস্থা, শিক্ষা, লিঙ্গ সমতা ইত্যাদি ক্ষেত্রে ইতিবাচক ভূমিকা পালন করবে ছোট্ট একটি স্ক্রিন থেকে।

উই শিগগির বাংলাদেশের পতাকাবাহী `মেড ইন বাংলাদেশ` আন্তর্জাতিক মোবাইল হ্যান্ডসেট ব্র্যান্ড হতে যাচ্ছে বলেও তিনি উল্লেখ করেন।

অমৃতবাজার/সুজন