ঢাকা, শনিবার, ১৯ আগস্ট ২০১৭ | ৪ ভাদ্র ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

বরকতময় পানি জমজম


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৮:২৬ এএম, ১১ আগস্ট ২০১৭, শুক্রবার | আপডেট: ০৮:৩১ এএম, ১১ আগস্ট ২০১৭, শুক্রবার
বরকতময় পানি জমজম

জমজম কূপ। মক্কার মসজিদুল হারামের অভ্যন্তরে অবস্থিত একটি কূপ বিশেষ। পবিত্রতা ও বৈশিষ্ট্যে জমজম কূপের পানি পৃথিবীর সকল পানির চেয়ে উত্তম। জমজম কূপের পানি পান করলে মানুষের পিপাসা নিবারণ হয়। অনেক রোগ-ব্যাধি থেকে মুক্তি লাভ হয়। মানুষের নানাবিধ উপকারে আসে। এ পানি আল্লাহ তাআলার সুমহান কুদরতের নির্দশন। এক কথায় বরকতময় পানির নাম জমজম।

জমজমের পানি পান প্রসঙ্গে হাদিসে পাকে মহানবী (সাঃ) বলেছেন, ‘জমজমের পানি যে নিয়তে পান করবে, তার সেই নিয়ত পূরণ হবে। রোগমুক্তির নিয়তে পান করা হলে আল্লাহ তাআলা ওই ব্যক্তিকে আরোগ্য দান করবেন।

আবার পিপাসা মেটানোর জন্য পান করলে আল্লাহ তাআলা পিপাসা দূর করবেন। ক্ষুধা দূর করার উদ্দেশ্যে পান করলে আল্লাহ তাআলা ক্ষুধা দূর করে তৃপ্তি দান করবেন। যেহেতু জমজমের পানি পবিত্র ও বরকতময়। তাই এ পানি দাঁড়িয়ে কেবলামুখী হয়ে তিন নিঃশ্বাসে পান করা প্রিয়নবী (সাঃ) সুন্নাত। জমজমের পানি পান করার সময় এ দোয়া করাও উত্তম-

উচ্চারণ: আল্লাহুম্মা ইন্নি আস`আলুকা ইলমান নাফি`আ, ওয়ারিজকান ওয়াসিয়া, ওয়াশিফা`আন মিন কুল্লি দা।

অর্থ: হে আল্লাহ, আমি আপনার নিকট কল্যাণকর জ্ঞান, প্রশস্থ রিযিক এবং যাবতীয় রোহ থেকে আরোগ্য কামনা করিতেছি।

অমৃতবাজার/শাওন

Loading...