ঢাকা, শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৫ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে যুক্তরাজ্যের ভূমিকা চান প্রতিমন্ত্রী


যুক্তরাজ্য প্রতিনিধি,

প্রকাশিত: ১২:৩৬ পিএম, ২৯ মার্চ ২০১৯, শুক্রবার
রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসনে যুক্তরাজ্যের ভূমিকা চান প্রতিমন্ত্রী

 

বাংলাদেশ থেকে রোহিঙ্গাদের মিয়ানমারে ফিরিয়ে নেওয়া ও সেদেশে তাদের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে যুক্তরাজ্য সরকারকে ‘বিশেষ ভূমিকা’ নেওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

বৃহস্পতিবার যুক্তরাজ্যের লন্ডনে বাংলাদেশ হাই কমিশন আয়োজিত স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবস উপলক্ষে আয়োজিত এক অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এ আহ্বান জানান তিনি।

হাই কমিশনের প্রেস মিনিস্টার মো. আশিকুন নবী চৌধুরীর পাঠানো এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী যুক্তরাজ্য সরকার, ব্রিটিশ ও বাংলাদেশি-ব্রিটিশ জনগণ এবং গণমাধ্যমকে রোহিঙ্গা সমস্যা সমাধানে সমর্থন ও সহযোগিতা দেওয়ার জন্য ধন্যবাদ জানান। তিনি তাদের এ সমর্থন রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন শেষ না হওয়া পর্যন্ত অব্যাহত রাখার আহ্বান জানান।

তিনি বলেন, “আমরা আশা করি যুক্তরাজ্য জাতিসংঘে অব্যাহত কূটনৈতিক নেতৃত্ব পালন করবে যাতে রোহিঙ্গারা তাদের মাতৃভূমিতে নিরাপদ পরিবেশে ফিরে যেতে পারে।”

হাই কমিশনার সাইদা মুনা তাসনীম অনুষ্ঠানে অতিথিদের অভ্যর্থনা জানান এবং স্বাগত বক্তব্য দেন।

তিনি বলেন, “বাংলাদেশ-যুক্তরাজ্যের মধ্যে সম্পর্ক আরও ঘনিষ্ঠ ও বেগবান হয়েছে। আগামী বছর যুক্তরাজ্যে জাতির পিতার জন্মশতবার্ষিকী ও ২০২১ সালে বাংলাদেশ-যুক্তরাজ্য কূটনৈতিক সম্পর্কের ৫০ বছর উদযাপনে বাংলাদেশ হাই কমিশন, লন্ডন যুক্তরাজ্য সরকার এবং প্রবাসী বাংলাদেশিদের সঙ্গে নিরলস কাজ করে যাচ্ছে।”

অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন যুক্তরাজ্যের প্রতিরক্ষা প্রতিমন্ত্রী আর্ল হোয়ে, কমনওয়েলথের সেক্রেটারি জেনারেল পেট্রিসিয়া স্কটল্যান্ড এবং আইএমও এর সেক্রেটারি জেনারেল কিটাক লিম, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগের (সমন্বয় ও সংস্কার) সচিব মো. শামসুল আরেফিন, সুলতান মাহমুদ শরীফ, কণ্ঠশিল্পী রুনা লায়লা, যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক সৈয়দ সাজিদুর রহমান ফারুক ও শমী কায়সার।

এর আগে হাউজ অব কমন্সে যুক্তরাজ্য আওয়ামী লীগ আয়োজিত স্বাধীনতা ও জাতীয় দিবসের এক আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি হিসেবে যোগ দেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী শাহরিয়ার আলম।

যুক্তরাজ্য ও বাংলাদেশের সুসম্পর্কের কথা তুলে ধরে তিনি বলেন, “আমরা আশা করি আগামী বছর দুই দেশ একসঙ্গে মিলে আমাদের দ্বিপাক্ষীক সম্পর্কের ৫০ বছর পূর্তি ঢাকা ও লন্ডনে উদযাপন করবো। এছাড়া বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এবং সাবেক ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী স্যার এডওয়ার্ড হিথ ও ব্যারন হ্যারল্ড উইলসনের বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্কও বিশেষভাবে উদযাপন করা হবে।”

অমৃতবাজার/এএস