ঢাকা, সোমবার, ২২ অক্টোবর ২০১৮ | ৭ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

গ্রীসে প্রবাসীদের আলোচনা সভায় প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী নুরুল ইসলাম


অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৪:১০ পিএম, ৩১ জুলাই ২০১৮, মঙ্গলবার
গ্রীসে প্রবাসীদের আলোচনা সভায় প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী নুরুল ইসলাম

বর্তমান সরকার প্রবাসীদের কল্যাণের জন্য সর্বতোভাবে তাদের পাশে আছে। প্রবাসীদের কল্যাণের লক্ষ্যে নানা ধরণের কর্মসূচিও গ্রহণ করেছে সরকার। ২৯শে জুলাই বাংলাদেশ দূতাবাস কর্তৃক আয়োজিত এক আলোচনা সভায় প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রী নুরুল ইসলাম বিএসসি এসব কথা বলেন।

দূতাবাস চত্বরে আয়োজিত এই সভায় সভাপতিত্ব করেন গ্রীসে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত মো. জসীমউদ্দিন। বাংলাদেশ কমিউনিটি ইন গ্রীসের নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ব্যবসায়ী সংগঠন এবং বিভিন্ন জেলা ও আঞ্চলিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশিরা এ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রী তাঁর বক্তব্যে প্রবাসীদের কল্যাণে বর্তমান সরকারের গৃহীত কার্যক্রমের কথা উল্লেখ করেন। বিমান বন্দরে প্রবাসীদের হয়রানি বন্ধে প্রবাসীকল্যাণ ডেস্ক, প্রবাসীদের জন্য হাসপাতাল ও শিক্ষা কেন্দ্র এবং শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে প্রবাসীদের সন্তানদের ভর্তির সুযোগ নিশ্চিতকরণে সরকারের বিভিন্ন পদক্ষেপ সম্পর্কে তিনি প্রবাসীদের অবহিত করেন। প্রবাসীদের জন্য তিনটি বিমান বন্দরে হেল্প ডেস্ক স্থাপন, বিমান বন্দরে এম্বুলেন্স সার্ভিস চালু, প্রবাসীদের সন্তানদের স্কলারশিপ প্রদান এবং তাদের পরিবারের সদস্যদের চিকিৎসার জন্য হাসপাতাল স্থাপনের উদ্যোগসহ নানা কর্মসূচি সম্পর্কেও তিনি তার বক্তব্যে উল্লেখ করেন।

নুরুল ইসলাম বিএসসি বলেন, প্রবাসীকল্যাণ ব্যাংক থেকে প্রবাসীদের জন্য ঋণপ্রদান করা হচ্ছে। প্রবাসে মৃত্যু হলে বাংলাদেশি নাগরিকদের পরিবার দেশে ৩ লক্ষটাকা এবং বিমান বন্দরে মৃত ব্যক্তির পরিবার লাশ পরিবহণের জন্য ৩৫ হাজার টাকা করে পাচ্ছেন বলেও মন্ত্রী উল্লেখ করেন। এ ছাড়া, অসুস্থ ও পঙ্গু ব্যক্তিদের জন্য ১ লক্ষ টাকা প্রদান করা হচ্ছে, বিদেশগামী সকল কর্মীকে বীমাকরে দেশের বাইরে আসার বিষয়টিও নিশ্চিত করার উদ্যোগ গ্রহণ করা হয়েছে। প্রবাসীদের “সোনার ছেলে” হিসেবে আখ্যায়িত করে রেমিটেন্স প্রেরণে তাদের অবদানের কথা কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ করেন তিনি।

মন্ত্রী আরো বলেন, প্রবাসীদের জন্য বাংলাদেশে আবাসন সুবিধা নিশ্চিতকরণে বর্তমান সরকার ইতোমধ্যে ঢাকা, চট্টগ্রাম, কুমিল্লা, যশোরসহ বেশকয়েকটি স্থানে বিশেষ আবাসন প্রকল্প হাতে নিয়েছে। প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয় কর্তৃক প্রদত্ত সেবাসমূহ পাওয়ার জন্য গ্রীসে বসবাসরত সকল প্রবাসী বাংলাদেশিগণকে মন্ত্রণালয়ের আওতায় রেজিষ্ট্রশনকরে ডাটাবেজভূক্ত হওয়ার জন্য ও তিনি অনুরোধ করেন।গ্রীসের আইনকানুন অনুসরণ পূর্বক জীবনযাপনের মাধ্যমে দেশের ভাবমূর্তি উজ্জ্বল করতে মন্ত্রী প্রবাসীদের আহ্বান জানান।

সভার শুরুতে সূচনা বক্তব্য রাখেন রাষ্ট্রদূত জসীমউদ্দিন। রাষ্ট্রদূত গ্রীসের প্রবাসীদেরকল্যাণে গৃহীত সরকার এবং দূতাবাসের বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরেন। তিনি বলেন, প্রবাসীদের কল্যাণে নতুন নতুন উদ্যোগ গ্রহণের মাধ্যমে এথেন্সে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস ইতোমধ্যেই উদ্ভাবনী দূতাবাস হিসেবে পরিচিতি লাভ করেছে। যার ফলশ্রুতিতে এ বছর মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর কাছ থেকে বিশেষ সম্মান জনক জনপ্রশাসন পদক-২০১৮ পেয়েছে এথেন্সে অবস্থিত বাংলাদেশ দূতাবাস। প্রবাসী বাংলাদেশিদের কল্যাণ ও বহিঃবিশ্বে বাংলাদেশ ব্র্যান্ড সৃষ্টিতে উদ্ভাবনী অবদান রাখায় শ্রেষ্ঠ প্রতিষ্ঠান হিসেবে প্রথমবাররে মতো এই পদক প্রদান করা হয় গ্রীসের এথেন্সস্থ বাংলাদশে দূতাবাসকে।

এ সময় আরো সভায় উপস্থিত ছিলেন, সর্বস্তরের প্রবাসীরা বিপুল করতালির মাধ্যমে দূতাবাসের জনপ্রশাসন পদক প্রাপ্তির ঘোষণাকে অভিনন্দন জানান। এ ছাড়া, রাষ্ট্রদূত প্রবাসীদের পক্ষথেকে প্রবাসীকল্যাণমন্ত্রীর কাছে তাদের কল্যাণের জন্য বিভিন্ন বক্তব্য তুলে ধরেন। দেশে এবং বিদেশে প্রবাসীদের সামগ্রিক কল্যাণ নিশ্চিত করার লক্ষ্যে দূতাবাস গৃহীত বিভিন্ন উদ্যোগের বিষয়ে রাষ্ট্রদূত মন্ত্রীকে অবহিত করেন। গ্রীস প্রবাসী বিভিন্ন স্তরের ব্যক্তিবর্গও অনুষ্ঠানে বক্তব্য রাখেন। এ ছাড়া, জনাব মো. সেলিমরেজা, ডিজি, বি.এম.ই.টি. ও জনাব মরন কুমার চক্রবর্তী, বোয়েসেল অনুষ্ঠানে সংক্ষিপ্ত বক্তব্য রাখেন। সভার সমাপনী ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন দূতাবাসের কাউন্সেলর (শ্রম) ড. সৈয়দা ফারহানা নূর চৌধুরী।

প্রবাসীকল্যাণ ও বৈদেশিক কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের মাননীয় মন্ত্রীর এই সফর গ্রীস প্রবাসীদের মধ্যে বিপুল উৎসাহ সৃষ্টি করেছে।

অমৃতবাজার/মিঠু