ঢাকা, রোববার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এথেন্সে বাংলাদেশ দূতাবাসের রেমিট্যান্স দিবসের বর্ষপূর্তি


অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৫:১৪ পিএম, ০৩ মার্চ ২০১৮, শনিবার
এথেন্সে বাংলাদেশ দূতাবাসের রেমিট্যান্স দিবসের বর্ষপূর্তি

বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রবাহ বৃদ্ধির লক্ষে গত এক বছর যাবত গ্রীসের এথেনস্থ বাংলাদেশ দূতাবাস প্রতি মাসের প্রথম শুক্রবারকে মাসিক রেমিট্যান্স দিবস হিসেবে পালন করে আসছে। এই দিন আনুষ্ঠানিক ভাবে রাষ্ট্রদূতসহ দূতাবাসের সকল কর্মকর্তা-কর্মচারী গ্রীসে বসবাসকারী প্রবাসী বাংলাদেশীদের বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণে উদ্বুদ্ধ করতে এথেন্সে ও গ্রীসের প্রত্যন্ত অ ল মানোলদাতে অবস্থিত বৈধ মানি ট্রান্সফার এজেন্সি থেকে বাংলাদেশে রেমিট্যান্স প্রেরণ করেন। 

বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণের বিষয়টি নিশ্চিত করতে জনসচেতনতা বাড়াতে দূতাবাস এ সংক্রান্ত বিভিন্ন ধরনের লিফলেট প্রচার করাসহ দূতাবাসে আগত প্রবাসী বাংলাদেশী ও গ্রীসের প্রত্যন্ত অ লে বসবাসরত প্রবাসী বাংলাদেশীদেরকে বিষয়টি অবহিত করে। বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণের গুরুত্ব এবং হুন্ডির মাধ্যমে রেমিট্যান্স প্রেরণের ক্ষতিকর দিক তুলে ধরে দূতাবাস একটি নাটিকা তৈরি করে এবং আয়োজন করে রেমিট্যান্স বিষয়ক সেমিনার।

/

গত দুই বছর আন্তর্জাতিক অভিবাসী দিবসে সর্বোচ্চ রেমিট্যান্স প্রেরণকারী ৫ জনকে রেমিট্যান্স সম্মাননা প্রদান করা হয়। দূতাবাস কর্তৃক গৃহীত এ সকল কার্যক্রমের ফলে এক বছরে রেমিট্যান্স প্রেরণে গ্রীসের অবস্থান ২৬তম থেকে ২০তম স্থানে উঠে এসেছে(বাংলাদেশ ব্যাংকের তথ্য মতে)।

এ ছাড়া, বর্তমানে প্রবাসী বাংলাদেশীগণ হুন্ডির কুফল সম্পর্কে যথেষ্ট সচেতন হয়েছেন এবং এর শাস্তি ও সামাজিকভাবে হেয় প্রতিপন্ন হওয়ার পরিবেশ সৃষ্টি হওয়ায় এর প্রকোপ কমে এসেছে। রেমিট্যান্স প্রেরণ দিবসের এক বছর পূর্তি অনুষ্ঠানে রাষ্ট্রদূত জসীম উদ্দিন হুন্ডির বিরুদ্ধে সামাজিক আন্দোলন অব্যাহত রেখে গ্রীস প্রবাসীগণ রেমিট্যান্স বৃদ্ধিতে যে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন তা ধরে রাখতে উপস্থিত সকলকে আন্তরিকভাবে অনুরোধ করেন।

রাষ্ট্রদূত আরও উল্লেখ করেন যে, প্রধানমন্ত্রীর ভিশন-২০২১ এবং ভিশন-২০৪১ সফল করতে গ্রীস প্রবাসীর এ অগ্রণীয় ভূমিকা অন্যান্য সকল দেশের প্রবাসীদের জন্য অনুকরণীয় হয়ে থাকবে। রাষ্ট্রদূত মোঃ জসীম উদ্দিন আজ এথেন্সে অবস্থিত ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড, বাংলাদেশ-এর এথেন্স শাখায় উপস্থিত হয়ে বৈধপথে রেমিট্যান্স প্রেরণের মাধ্যমে এ কর্মসূচীর সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

/

এ সময় রাষ্ট্রদূতের সাথে দূতাবাসের কাউন্সিলর ড. সৈয়দা ফারহানা নূর চৌধুরী এবং প্রথম সচিব সুজন দেবনাথসহ দূতাবাসের কর্মকর্তা-কর্মচারীগণও রেমিট্যান্স প্রেরণ করেন। এ সময় গ্রীসের বাংলাদেশ কমিউনিটির নেতৃবৃন্দসহ বিভিন্ন রাজনৈতিক, সামাজিক, সাংস্কৃতিক, ব্যবসায়িক ও বিভাগ ও জেলা ভিত্তিক আ লিক সংগঠনের নেতৃবৃন্দ এবং বিপুল সংখ্যক প্রবাসী বাংলাদেশী নাগরিকগণ রাষ্ট্রদূতের সাথে বাংলাদেশে বৈধপথে রেমিট্যান্স প্রেরণ করেন।

এই উপলক্ষে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত স্বাধীনতার মাস মার্চে গ্রীস প্রবাসী বাংলাদেশী নাগরিকদের দেশপ্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণ অব্যাহত রাখার আহবান জানান। উপস্থিত সকলকে বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণের জন্য রাষ্ট্রদূত ধন্যবাদ জানান। তিনি ন্যাশনাল ব্যাংক লিমিটেড, বাংলাদেশ এথেন্স শাখাসহ বিভিন্ন বাংলাদেশী মানি ট্রান্সফার এজেন্সিকে ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন।

উপস্থিত প্রবাসী বাংলাদেশী নেতৃবৃন্দ দূতাবাসের এই দীর্ঘ প্রচেষ্টাকে সাধুবাদ জানায় । তারা বলেন, রেমিট্যান্স প্রেরণে রাষ্ট্রদূতের সশরীরে উপস্থিতি তাদেরকে উৎসাহিত করেছে এবং তাঁরা বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণ করতে উদ্বদ্ধু হয়েছেন। হুন্ডি ব্যবসায়ীদের প্রতি এটি একটি সতর্ক বার্তা হিসেবে উল্লেখ করে বক্তারা দূতাবাসকে এই আয়োজনের জন্য ধন্যবাদ জানান । বৈধ পথে রেমিট্যান্স প্রেরণ কার্যক্রম অব্যাহত থাকবে বলে প্রবাসীরা রাষ্ট্রদূতকে প্রতিশ্রুতি দেন।

অমৃতবাজার/প্রণব/শাওন