ঢাকা, শুক্রবার, ২৫ মে ২০১৮ | ১১ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

কুয়েতে চার বাংলাদেশি প্রবাসীর মৃত্যু


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:২৩ এএম, ০২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, শুক্রবার
কুয়েতে চার বাংলাদেশি প্রবাসীর মৃত্যু

গত ছয় দিনে কুয়েতে হৃদরোগে ও স্ট্রোকে আক্রান্ত হয়ে চার বাংলাদেশি প্রবাসীর মৃত্যু হয়েছে। প্রত্যকের মরদেহ কুয়েতের স্থানীয় হাসপাতালের হিমাগারে রাখা হয়েছে। আইনি প্রক্রিয়া সম্পন্ন হলে দেশে পাঠানো হবে।

নিহতরা হলেন-কালা মিয়া, কালাম, মাঈন উদ্দিন ও তুহেল আহম্মেদ। এদের মধ্যে কালা মিয়া ও কালামের বাড়ি ফেনী জেলায়। অপর দুইজনের মধ্যে মাঈন উদ্দিনের বাড়ি নারায়ণগঞ্জ ও তুহেল আহম্মেদের বাড়ি সিলেট জেলায়।

২৭ জানুয়ারি হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে চিকিৎসাধীন অবস্থায় হাসপাতালে মারা যান কালা মিয়া। তিনি ফেনীর দাগনভূঁইয়া উপজেলার উত্তর কৈখালী গ্রামের মকবুল মিয়ার ছেলে কালা মিয়া। এ ঘটনার তিন দিনের মাথায় ৩০ জানুয়ারি রাত ১০টায় খাওয়া দাওয়া শেষে রুমে ফেরার সময় কুয়েতের হাসাবিয়া সবজি গলিতে হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা যান কালাম।

এ ছাড়াও নারায়ণগঞ্জের আড়াইহাজার ঘোড়াদি গ্রামের সোনালি মিয়ার ছেলে মাঈন উদ্দিন গত ৩১ জানুয়ারি দুপুরে ডিউটি থেকে বাসায় ফিরে ঘুমাতে গেলে ঘুমের মধ্যে স্ট্রোক করে মারা যান। তিনি কুয়েত মারাফিয়া কম্পানিতে কর্মরত ছিলেন। তা ছাড়াও ৩১ জানুয়ারি মধ্যরাতে ঘুমের মধ্যেই স্ট্রোক করে মারা যান তুহেল আহম্মেদ নামের আরেকজন। তিনি সিলেট বিয়ানীবাজার চরখাই উপজেলার মান্দার গ্রামের ফখরুল ইসলামের ছেলে।

তাদের মৃত্যুর বিষয়ে বিশিষ্ঠজনরা মনে করছেন, ‘হৃদরোগ ও মৃত্যু ঝুঁকি কমাতে খাদ্যাভ্যাস পরিবর্তন, অতিরিক্ত চর্বিযুক্ত খাবার বাদ দেয়া, নিয়মিত ব্যায়াম ও বিনোদনের ব্যবস্থা করা, ব্লাড প্রেসার ও ডায়বেটিস চেক করাসহ প্রবাসীদের সচেতন করতে কমিউনিটি সংগঠনগুলোর উদ্যোগী হওয়া প্রয়োজন।

অমৃতবাজার/জয়