ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ০২ এপ্রিল ২০২০ | ১৮ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বেগম জিয়ার মুক্তি নিয়ে বিএনপি দ্বিধান্বিত: তথ্যমন্ত্রী


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৪:১৩ পিএম, ১৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, শনিবার
বেগম জিয়ার মুক্তি নিয়ে বিএনপি দ্বিধান্বিত: তথ্যমন্ত্রী ছবি-অমৃতবাজার ।

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি নিয়ে বিএনপি নিজেই দ্বিধান্বিত বলে মন্তব্য করেছেন তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ।

আজ শনিবার সকালে রাজধানীর মোহাম্মদপুরে শরীরচর্চা কলেজ ময়দানে অগ্রণী ব্যাংকের বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা উদ্বোধন শেষে সাংবাদিকদের এসংক্রান্ত প্রশ্নের জবাব দেন তিনি।

এসময় সাংবাদিকরা প্রশ্ন করেন- `বিএনপি একদিকে বলছে আন্দোলনের মাধ্যমেই খালেদা জিয়াকে মুক্ত করা হবে, অন্যদিকে তারা আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদককে ফোন করে প্রধানমন্ত্রীর সাথে আলাপ করতে চেয়েছে, তারা কি আন্দোলন থেকে সরে আসছে! আবার শোনা যাচ্ছে তার পরিবার চায় প্যারোলে মুক্তি- আসলে বিষয়টি কেমন?`

এর জবাবে তথ্যমন্ত্রী বলেন, `প্রথমত: বেগম খালেদা জিয়ার পক্ষ থেকে প্যারোলের কোনো আবেদন করা হয়নি। আপনারা দেখছেন, তার পরিবারের বরাত দিয়ে এক ধরণের কথা, আবার দলের পক্ষ থেকে আরেক ধরণের কথা বলা হচ্ছে। একদিকে আন্দোলনের ডাক, অন্যদিকে আমাদের সাধারণ সম্পাদককে ফোনে বেগম জিয়াকে মুক্তি দেবার অনুরোধ করে তারা আসলে কি চান, সেটা এখনো স্পষ্ট করতে পারেননি।`

এসময় মন্ত্রী আরো জানান `বেগম জিয়া শুধুমাত্র প্যারোলে মুক্তির আবেদন করলেই সরকারের বিবেচনা করার সুযোগ থাকে, এছাড়া তাকে মুক্তি দেয়ার ক্ষেত্রে সরকারের কোনো এখতিয়ার নেই। বিএনপি নেতারা প্রতিদিন বেগম জিয়ার জামিন নিয়ে কথা বলেন, আর বলেন সরকার বাধা দিচ্ছে। বেগম জিয়া কোনো রাজনৈতিক বন্দী নন, তিনি দুর্নীতির দায়ে সাজা ভোগ করছেন। এবং বাংলাদেশে আইন ও আদালত স্বাধীন। সুতরাং তাকে জামিন পেতে হলে আদালতের মাধ্যমেই পেতে হবে। তারা (বিএনপি) আইন আদালতের তোয়াক্কা করেন না, কিন্তু সবাইকেই আইন মেনে চলতে হয়।`

আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ প্যারোলের বিষয়টি স্পষ্ট করে বলেন, `প্যারোল হচ্ছে তার অপরাধ ও শাস্তি মেনে নিয়ে মুক্তির আবেদন। তবে, এখনো পর্যন্ত বেগম জিয়ার পক্ষ থেকে প্যারোলের আবেদন করা হয়নি।`

প্রতিহিংসার রাজনীতি করে বিএনপি, আওয়ামী লীগ নয় বলে উল্লেখ করে তিনি বলেন, আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ‘জননেত্রী শেখ হাসিনা জিঘাংসা বা প্রতিহিংসার রাজনীতি করেন না, বরং বিএনপি করে। ২০০৪ সালে বিএনপির আমলে প্রধানমন্ত্রী বেগম জিয়ার সরকারের পৃষ্ঠপোষকতায়, তার পুত্র তারেক রহমানের পরিচালনায় ২১শে আগস্ট গ্রেনেড হামলা পরিচালিত হয়েছিল শেখ হাসিনাকে হত্যার উদ্দেশে।`

অমৃতবাজার/এসএস