ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯ | ১০ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ঐক্যফ্রন্টের অবস্থা দেখে করুণা হয়: তথ্যমন্ত্রী


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৭:৪৮ পিএম, ১০ জুন ২০১৯, সোমবার
ঐক্যফ্রন্টের অবস্থা দেখে করুণা হয়: তথ্যমন্ত্রী

 

ড. কামাল হোসেনের নেতৃত্বাধীন জাতীয় ঐক্যফ্রন্টের অবস্থা দেখে তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদের হাসি পায়, আবার করুণাও হয়। সোমবার সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের নিজ দপ্তরে সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে তিনি এ কথা বলেন।

তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ বলেন, শিষ্টাচার বিএনপির থেকে শিখতে হবে না। বিএনপি মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীরের উচিত তার চেয়ারপারসন খালেদা জিয়াকে শিষ্টাচার শেখানো।

তিনি বলেন, তারেক রহমান দুর্নীতি মামলায় ১০ বছর সাজাপ্রাপ্ত ও ২১ আগস্ট হামলা মামলায় যাবজ্জীবন দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি। আইনগতভাবে বাংলাদেশের আদালত স্বাধীন। আদালত কারো বিরুদ্ধে দণ্ড দিলে সেটি যদি সরকারি কর্মকর্তা হয়, এমন সরকার দলীয় এমপিও হয় তার বিরুদ্ধে শাস্তি কার্যকর করা সরকার ও রাষ্ট্রের দায়িত্ব। রাষ্ট্রের দায়িত্ব কোনো শাস্তিপ্রাপ্ত আসামির শাস্তি নিশ্চিত করা। অবশ্যই একদিন তারেকের শাস্তি কার্যকর হবে।

ড. হাছান মাহমুদ বলেন, ঐক্যফ্রন্টের অবস্থা দেখে আমার হাসি পায়, আবার করুণাও হয়। তাদের নিজেদের মধ্যে ঐক্য নেই। তাদের অনেক নেতা দল ছেড়ে চলে যাচ্ছেন। এজন্য ঐক্য ধরে রাখতে তারা নাকি আজ বৈঠক ডেকেছে। যাদের নিজেদের মধ্যে ঐক্য নেই তারা কিভাবে আন্দোলন করবে।

তথ্যমন্ত্রী আরো বলেন, ইতোমধ্যে কয়েকজন নেতা ঐক্যফ্রন্ট ছাড়ার ঘোষণা দিয়েছেন। যারা নিজেদের ঐক্য ধরে রাখতে পারে না তারা সরকারের বিরুদ্ধে বৃহত্তর ঐক্য করার ঘোষণা দেয়। এগুলো সব হাস্যকর।

এমপি হিসেবে শপথ নিয়েই বিএনপির রুমিন ফারহানা সংসদকে অবৈধ বলেছেন এমন বক্তব্যের প্রতিক্রিয়ায় তথ্যমন্ত্রী বলেন, ব্যারিস্টার রুমিন ফারহানা নিজেকেই অবৈধ বলেছেন।

তার মানে সংসদ সদস্য হিসেবে তিনিও অবৈধ। তাদের কাজ ও কথার ঠিক নাই। প্রথমে বলেছেন, কোন অবস্থায় তারা সংসদ সদস্য হিসেবে শপথ নেবেন না। পরে তারা শপথ নিলেন, এমনকি নারী সংসদ সদস্যের ভারটাও নিলেন।

অমৃতবাজার/এএস