ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯ | ১১ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ধান পুড়িয়ে ফেলা দেশের জন্য অশনি সংকেত: মোশাররফ


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৪:৩৬ পিএম, ১৭ মে ২০১৯, শুক্রবার
ধান পুড়িয়ে ফেলা দেশের জন্য অশনি সংকেত: মোশাররফ

ধানের মূল্য না পেয়ে অনেক কৃষক জমিতে আগুন দিয়ে ধান পুড়িয়ে ফেলছেন। এটা দেশের জন্য অশনি সংকেত বলে মন্তব্য করেছেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন। শুক্রবার রাজধানীর গুলশানে বিএনপি চেয়ারপারসনের রাজনৈতিক কার্যালয়ে বুদ্ধ পূর্ণিমা উপলক্ষে দেশের বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের সঙ্গে শুভেচ্ছা বিনিময় অনুষ্ঠানে তিনি এসব কথা বলেন।

খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেছেন, ‘ধানের মূল্য না পেয়ে অনেক কৃষক জমিতে আগুন দিয়ে ধান পুড়িয়ে ফেলছেন। এটা দেশের জন্য অশনি সংকেত। এটাকে ছোট করে দেখার কোনও সুযোগ নেই। কিন্তু সরকার কৃষকের সমস্যাকে পাশকাটিয়ে যাচ্ছে ও অবহেলা করছে।’

দেশের মানুষ এখন নিরাপদে নেই অভিযোগ করে বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘আজকে মানুষের মধ্যে কোনও শান্তি নেই, কারণ দেশে গণতন্ত্র নেই। গায়ের জোরে সরকার পরিচালিত হচ্ছে। দেশের কৃষকরা তাদের উৎপাদিত ধানের মূল্য পাচ্ছে না। মূল্য না পাওয়ার কারণের তারা পাকা ধান জমিতে পুড়িয়ে ফেলছে। এটা দেশের জন্য খুবই অশনি সংকেত। কেননা আমাদের দেশ কৃষি নির্ভর। ভাত হচ্ছে আমাদের প্রধান খাদ্য। সেই দেশের কৃষকরা পাকা ধান পুড়িয়ে দিচ্ছে, এটা ছোট করে দেখার সুযোগ নেই।’

দেশে ২৫ থেকে ৩০ লাখ টন ধান মজুদ আছে খাদ্য মন্ত্রীর বক্তব্যে ড. খন্দকার মোশাররফ হোসেন বলেন, ‘সরকার বলছে খাদ্য মন্ত্রণালয় কিছু চাল বিদেশে রফতানি করার চেষ্টা করছে। অন্যদিকে, আবার দেখা যাচ্ছে, সরকার চাল আমদানি করছে। এখানেই প্রশ্ন তৈরি হচ্ছে। কৃষকদের কাছ থেকে যদি বেশি দামে ধান কেনা হতো, তাহলে তারা পুড়িয়ে ফেলতো না।’

মোশাররফ হোসেন অভিযোগ করে বলেন, ‘আপনারা বলছেন দেশে খাদ্য মজুদ বেশি আছে, তাহলে আমদানি করা হচ্ছে কেন? গুঞ্জন আছে, যারা বাংলাদেশ থেকে টাকা পাচার করতে চাচ্ছে, তাদের সুযোগ করে দেওয়ার জন্য ধান-চাল আমদানির কথা বলা হচ্ছে।’

অনুষ্ঠানে বৌদ্ধ সম্প্রদায়ের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রাঙ্গামাটির মৈত্রী বৌদ্ধ বিহারের সদস্য কৌণ্ডণ্য ভিক্ষু, পাঞ্চা বংশ ভিক্ষু, সুশীল বড়ুয়া, জন গোমেজ ও জিয়া পরিষদের নেতা সুভাষ চন্দ্র চাকমা। এছাড়া উপস্থিত ছিলেন বিএনপির স্থায়ী কমিটির সদস্য ড. আব্দুল মঈন খান, নজরুল ইসলাম খান, আমির খসরু মাহমুদ চৌধুরী, ভাইস চেয়ারম্যান বরকত উল্লাহ বুলু, সেলিমা রহমান প্রমুখ।

অমৃতবাজার/আরএইচ