ঢাকা, রোববার, ৩১ মে ২০২০ | ১৬ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

শিশুদের শারীরিক প্রেম: ভবিষ্যত কি?


মাহমুদুর রহমান

প্রকাশিত: ০৩:০৬ পিএম, ০৫ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বুধবার | আপডেট: ১০:২৬ এএম, ০৬ ফেব্রুয়ারি ২০২০, বৃহস্পতিবার
শিশুদের শারীরিক প্রেম: ভবিষ্যত কি? ছবি- ইটাখোলা মুড়ায় অপ্রাপ্তবয়স্কদের অসামাজিক কার্যকলাপ

ক`দিন আগে স্বপরিবারে বেড়াতে গিয়েছিলাম কুমিল্লা। শহরের কোলাহল থেকে দূরে। ওখানে আমার বন্ধু থাকে পরিবার নিয়ে। ৩০ জানুয়ারি ও ১ ফেব্রুয়ারি কুমিল্লা শহরের আশপাশের বেশ কিছু পুরাকীর্তি ও বন বাদার চষে বেড়িয়েছি। 

আমার পরিবারে দু`জন দেবশিশু রয়েছে। মেয়ে মিমোজা মাহমুদের বয়স পাঁচ। ছেলে নাজিদ নুরাজের বয়স দুই বছর প্রায়। ওরা খুব উপভোগ করেছে এবারের কুমিল্লা ভ্রমণ।

শুধু আমার মনেই খচখচ করছে। একটি দৃশ্য কিছুতেই মাথা থেকে সরছে না। আমরা যেসব জায়গায় গিয়েছি তার মধ্যে উল্ল্যেখযোগ্য ইটাখোলা মুড়ার পোড়াকীর্তি। বাংলাদেশ পল্লী উন্নয়ন একাডেমি(বার্ড) এর পাশেই একটি স্কুলের দেয়াল ঘেঁষা এই দর্শনীয় ঐতিহাসিক স্থানটি। 

আমরা যখন ইটাখোলা মুড়াতে যাই তখন বেলা ১২টা। নিরিবিলি পরিবেশ। আমার সন্তানেরা উচ্ছ্বসিত। উঁচু সিঁড়ি বেয়ে যখন আমরা মূল স্থাপনার মাঝামাঝি গেলাম তখন এক টুরিস্ট ভদ্রলোক সলজ্জিত হয়ে দাঁড়িয়েছিলেন। তিনি এর কেন্দ্রবিন্দুতে যাচ্ছিলেন না। তার ৬-৭ বয়সি মেয়েটি বার বার বাবার হাত ধরে টানছিলো ভেতরে যেতে। 

লক্ষ্য করলাম, ভেতরে এক কুঠুরিতে গাদাগাদি করে একজোড়া ছেলে মেয়ে বসে। আমি ভেতরে গেলাম। ছেলেমেয়ে দুটো একে অন্যের কাছ থেকে নিজেদের ছাড়িয়ে ধাতস্থ হলো। ওদের দেখে বোঝা গেলো কারোর বয়সই আঠারো ছোঁয়নি। 

ওখান থেকে বেড়িয়ে ইটাখোলা মুড়ার পেছন দিকে গিয়েই লজ্জায় আমার কান গরম হয়ে গেলো। স্কুল ড্রেস পড়া এক ছোট্ট মেয়ের গোপনাঙ্গ মর্দন করে যাচ্ছে তার ছোট্ট `প্রেমিক`! আমাকে দেখে ওরা নিজেদের জামাকাপড় ঠিক করতে করতে কিছুই হয়নি ওমন মুখ করে স্বাভাবিকভাবে কথা বলতে লাগলো।

ওই ছাত্রীটি বড়জোর ষষ্ঠ শ্রেণিতে পড়বে হয়তো। ছেলেটি ওর সহপাঠী হবে। 

বিষয়টি প্রত্নতত্ব অধিদপ্তরের টিকেট কাউন্টারে থাকা দায়িত্বশীল ও দারোয়ানকে সঙ্গেসঙ্গে জানালাম। তাদের তেমন কিছু করার নেই বলে জানিয়েছেন। কারণ হিসেবে বললেন, তারা স্থানীয় ছেলে-মেয়েদের ভয়ে ভীত।

আমি নিজেকে আধুনিকমনা দাবি করি। প্রাপ্তবয়স্ক নারীপুরুষকে হরহামেশা কতো কিছুতেই দেখছি। ওটা তাদের ব্যাক্তিগত বিষয় বলে উড়িয়ে দেই। এই শিশুদের বেলা বিষয়টি আমাকে খুব ভাবাচ্ছে। 

স্কুল ফাঁকি দিয়ে শিশুছাত্রীটি তার যৌন আকাঙ্খা পূর্ণ করতে যাচ্ছে নির্জন স্থানে। শিশু প্রেমিকের সঙ্গে তার এই শারীরিক সম্পর্কের ভবিষ্যত কি? নাকি প্রাপ্তবয়স্কদের মতো ওদের বিষয়গুলোও আমরা দেখে দেখে একদিন অভ্যস্ত হয়ে যাবো?

অন্তত আঠারো বছর বয়স হওয়া পর্যন্ত কি আমরা আমাদের সন্তানদের খেয়াল রাখতে পারি না? দিতে পারি না একটু নৈতিক শিক্ষা? 

মাহমুদুর রহমান, অনলাইন এক্টিভিস্ট

অমৃতবাজার/এমআর