ঢাকা, মঙ্গলবার, ০২ জুন ২০২০ | ১৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৭ বঙ্গাব্দ

সারাদেশে চালু হয়েছে বঙ্গবন্ধু ভ্রাম্যমাণ বইমেলা


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৫:১৩ পিএম, ০৫ জানুয়ারি ২০২০, রোববার
সারাদেশে চালু হয়েছে বঙ্গবন্ধু ভ্রাম্যমাণ বইমেলা

 

জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের জন্মশতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে শ্রাবণ প্রকাশনীর আয়োজনে শুরু হওয়া ভ্রাম্যমাণ বঙ্গবন্ধু বইমেলায় ঢল নেমেছে শিক্ষার্থীদের। রাজধানীসহ সারাদেশের স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয়ে চলবে এ ভ্রাম্যমাণ বইমেলা।

‘বঙ্গবন্ধুকে জানো- দেশকে ভালোবাসো’ এই স্লোগান গত বছরের ৩১ জুলাই রাজধানীর শাহবাগে জাতীয় জাদুঘরের সামনে শ্রাবণ প্রকাশনীর উদ্যোগে এ মেলার উদ্বোধন তথ্যমন্ত্রী হাছান মাহমুদ।

২০ মাসব্যাপী এ বইমেলা চলবে ২০২১ সালের ২৬ মার্চ পর্যন্ত। এসময়ে সারাদেশের প্রতিটি জেলা ও উপজেলায় যাবে ভ্রামন্যমাণ বইমেলা।

নামমাত্র মূল্যে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে এসকল বই কোমলমতী শিক্ষার্থী থেকে শুরু করে তরুণ প্রজম্মকে বঙ্গবন্ধুকে জানার ব্যবস্থা করে মন্ত্রীপরিষদ বিভাগ ও শ্রাবণ প্রকাশনী।

মেলার আটমাসে রাজধানীর অন্তত ২০টি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে গেছে বইমেলা। ইতিমধ্যে মুন্সিগঞ্জ ও ব্রাক্ষ্মণবাড়িয়ায় হয়েছে এ বইমেলা। পর্যাক্রমে অন্যান্য জেলার পৌঁছাবে শ্রাবণ বইগাড়ি।

শ্রাবণ প্রকাশনীর প্রকাশক রবিন আহসান বলেন, ‘ভ্রাম্যমাণ এ বইলেমায় বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে নির্বাচিত ১০০টি বই রাখা হয়েছে। যেখানে শ্রাবণ প্রকাশনী থেকে রয়েছে ২০টি। বঙ্গবন্ধু বিশ্বের মানুষের কাছে পরিচিত হওয়া, কিভবে তিনি আন্দোলন ও সংগ্রামের মধ্যে নেতা হয়ে উঠলেন, স্বাধীনতা আন্দোলন থেকে শুরু করে দেশ গঠনে তার ভূমিকা নিয়ে এসব বইতে ব্যাপক আলোচনা রয়েছে।’

‘একইসঙ্গে শিশু-কিশোরদের জন্য বঙ্গবন্ধু জন্মশতবর্ষ উদযাপন উপলক্ষে তিনটি বই একসঙ্গে করে নাম দেয়া হয়েছে ‘এক প্যাকেট ইতিহাস’। মাত্র ৫০ টাকায় এ তিনটি বই থেকে মুক্তিযুদ্ধ ও ভাষা আন্দোলনের ইতিহাস এবং বঙ্গবন্ধুর জীবনী সম্পর্কে জানতে পারবে তারা।’

তিনি বলেন, ‘সাশ্রয়ী মূল্যে বইগুলো পাওয়ায় শিক্ষার্থীরা অনেক খুশি। যেখানেই যাচ্ছি শিক্ষার্থীদের ঢল নামছে। তবে তরুণদের তুলনায় শিশু-কিশোরদের বেশি আগ্রহ লক্ষ্য করা গেছে।’

এ প্রকাশক বলেন, শুধুমাত্র বাণিজ্যিক চিন্তা করে নয়, বঙ্গবন্ধুকে নতুন প্রজন্মের কাছে পূর্ণাঙ্গভাবে তুলে ধরতেই আমাদের এ আয়োজন। পাঠকদের জন্য ৪০ শতাংশ অফারে বইগুলো বিক্রি হচ্ছে। বইমেলায় শুধু শ্রাবণ প্রকাশনী নয়, বাংলা একাডেমি থেকে শুরু করে অন্যান্য প্রকাশনা প্রতিষ্ঠানের বইও এখানে পাওয়া যাচ্ছে।

মেলায় বঙ্গবন্ধুর লেখা- ‘অসমাপ্ত আত্মজীবনী’, ‘কারাগারের রোজনামচা’ প্রিজন ডায়েরিস’সহ শেখ সাদির- ‘বঙ্গবন্ধু পূর্ণ জীবন’, এ কে আব্দুল মোমেনের- ‘বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ’, অম্লান দেওয়ানের-‘বিশ্বজয়ী বঙ্গবন্ধু’, রাজীব পারভেজের- ‘নেতৃত্বে বঙ্গবন্ধু’, শেখ আদনান ফাহাদের -‘বঙ্গবন্ধুর রাজনৈতিক আদর্শ ও গণমাধ্যম ভাবনা’ প্রভৃতি বই পাওয়া যাচ্ছে।

অমৃতবাজার/এএস