ঢাকা, শনিবার, ১৭ আগস্ট ২০১৯ | ২ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে শিশু একাডেমিতে বইমেলা শুরু কাল


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৭:১৮ পিএম, ১৫ মার্চ ২০১৮, বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৭:২০ পিএম, ১৫ মার্চ ২০১৮, বৃহস্পতিবার
বঙ্গবন্ধুর জন্মদিন উপলক্ষে শিশু একাডেমিতে বইমেলা শুরু কাল

বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৯৯ তম জন্মদিন ও জাতীয় শিশু দিবস উপলক্ষে আগামীকাল ১৬ মার্চ থেকে স্বাধীনতা দিবস ২৬ মার্চ পর্যন্ত এগারো দিনব্যাপী বই মেলার আয়োজন করেছে বাংলাদেশ শিশু একাডেমি।

আগামীকাল শুক্রবার বেলা ১১টায় বইমেলার উদ্বোধন করবেন ইমিরেটাস অধ্যাপক ড.আনিসুজ্জামান। প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী মেহের আফরোজ চুমকি।

বৃহস্পতিবার এক সংবাদ সম্মেলনে এসব তথ্য জানান বাংলাদেশ শিশু একাডেমির পরিচালক আনজীর লিটন।

এসময় বাংলাদেশ শিশু একাডেমির চেয়ারম্যান কথাসাহিত্যিক সেলিনা হোসেন এবং একাডেমির অন্যান্য কর্মকর্তা উপস্থিত ছিলেন।

সেলিনা হোসেন বলেন, বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ঐতিহাসিক ৭ মার্চের ভাষণ একটি সময়োপযোগী অর্থবহ ভাষণ। এ প্রজন্মকে এই ভাষণের সুদূরপ্রসারী তাৎপর্য ও ব্যাখা সম্পর্কে শিশুদের জানাতে ও বোঝাতে হবে যাতে তারা এর গুরুত্ব উপলব্ধি করতে পারে।

তিনি বলেন, একজন শিশুকে গড়ে তুলতে হলে ইন্টারনেট স্কীলকে বাদ দিয়ে নয়, বইপড়াকেও উদ্বুদ্ধ করতে হবে। তাদেরকে মানুষ হিসেবে গড়ে তুলতে মৌলিক সত্যের জায়গা হচ্ছে এসব শিশুদের আলোকিত মানুষ হিসেবে গড়ে তোলা। অভিভাবকদের দায়িত্ব শিশুদের বই পড়ায় আগ্রহী করে বইয়ের সাথে সম্পৃক্ত করা।

আনজীর লিটন বলেন, শিশুদের প্রতি বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের অকৃত্রিম ভালোবাসার কথা স্মরণ করেই ১৭ মার্চ তার জন্মদিনটিকে জাতীয় শিশু দিবস হিসেবে ঘোষণা করা হয়েছে। বঙ্গবন্ধুর ১৭ মার্চ জন্ম না হলে বাংলাদেশের স্বাধীনতার স্বপ্ন অধরাই থেকে যেতো।

তিনি বলেন, শিশুরাই ছিল তার আগামীর সোনার বাংলা গড়ার স্বপ্নের রূপকার। শত ব্যস্ততার মাঝেও শিশুদের মাঝেই জাতির পিতা তার জন্মদিনটি অতিবাহিত করতেন। জীবনের শেষ জন্মদিনটিতেও এর ব্যতিক্রম ঘটেনি।

সংবাদ সম্মেলনে জানানো হয়, সবার জন্য উন্মুক্ত এ মেলা প্রতিদিন বেলা ৩ টা থেকে রাত আটটা এবং ছুটির দিন শুক্র-শনিবার সকাল ১০ টা থেকে রাত ৮টা পর্যন্ত চলবে। এবার ৬৬ টি বেসরকারি প্রকাশনা সংস্থা এবং ৭ টি সরকারি প্রতিষ্ঠান মেলায় অংশ নিচ্ছে। বইমেলায় প্রতিদিন আলোচনাসভা, সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠান, শিশুদের চিত্রাঙ্কন, গান, নাচ, আবৃত্তিসহ বিভিন্ন বিষয়ে প্রতিযোগিতার আয়োজন থাকবে। এছাড়া বঙ্গবন্ধু এবং মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে মুক্তিযোদ্ধা, লেখক, বুদ্ধিজীবীরা শিশুদের সঙ্গে আলোচনায় অংশ নেবেন।

অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রথমবারের মতো ‘দৌড়াই বাংলাদেশ’ এই শিরোনামে শিশুদের জন্য এক ম্যারাথনের আয়োজন করা হয়েছে।-বাসস

অমৃতবাজার/শাওন