ঢাকা, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯ | ১৩ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নিউজিল্যান্ডের সেই নারী পুলিশ বিশ্বব্যাপী ব্যাপক প্রশংসিত


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ১০:২৪ পিএম, ২২ মার্চ ২০১৯, শুক্রবার
নিউজিল্যান্ডের সেই নারী পুলিশ বিশ্বব্যাপী ব্যাপক প্রশংসিত

 

নিউজিল্যান্ডের প্রধানমন্ত্রী জাসিন্ডা আরডার্ন ক্রাইস্টচার্চে দুটি মসজিদে সন্ত্রাসী হামলার পর মাথায় ওড়না জড়িয়ে মুসলিম জাতির সঙ্গে সংহতি প্রকাশ করেছিলেন । প্রধানমন্ত্রীর এই পদক্ষেপ বিশ্বব্যাপী ব্যাপক প্রশংসিত হয়।

এবারও আরও একটি ঘটনা বিশ্ববাসীর দৃষ্টি কাড়লো। গতকাল বৃহস্পতিবার ক্রাইস্টচার্চের মেমোরিয়াল পার্ক সমাধিক্ষেত্রে একজন নারী পুলিশকে মাথায় ওড়না পরে এবং বুকে লাল গোলাপ নিয়ে পাহাড়া দিতে দেখা যায়।

ছবিটি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে শেয়ার দিলে মুহূর্তেই তা ভাইরাল হয়ে যায়। নেটিজেনরা ওই নারী পুলিশের এই ছবিটিকে সংহতি, সম্মান ও নিরাপত্তার প্রতীক হিসেবে আখ্যা দিয়েছেন। তাদের মতে, এই তিনটি বিষয়ের সমন্বয়ে এটি ‘অত্যন্ত শক্তিশালী’ একটি ছবি।

জানা গেছে, ওই নারী পুলিশ সদস্যের নাম মাইকেল ইভানস। তিনি মাথায় কেলভিন ক্লেইন স্কার্ফ জড়িয়ে, বুকের ওপর লাল গোলাপ নিয়ে এবং বুশমাস্টার সেমি-অটোমেটিক রাইফেল হাতে নিয়ে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করেন।

ছবিটি তুলেছেন নিউজিল্যান্ডের জনপ্রিয় অনলাইন নিউজ পোর্টাল ‘স্টাফ’ এর ফটো সাংবাদিক আলডেন উইলিয়ামস।

তিনি বলেন, “সাংবাদিকতা জীবনে অনেক পুলিশ সদস্যের ছবি তুলেছি। কিন্তু মাথায় হিজাব, হাতে অ্যাসল্ট রাইফেল আর বুকে লাল গোলাপ- এর মতো অসধারণ সামঞ্জস্যের এরকম ছবি আগে কখনো দেখেনি। এমনকি ওই নারী পুলিশ সদস্য যদি এগুলোর যেকোনো একটি নিয়ে নিরাপত্তার দায়িত্ব পালন করতো, সেটা হতো ভিন্ন কিছু।”

তিনি বলেন, “অধিকাংশ গণমাধ্যম কর্মীরা সেখানে স্বেচ্ছাসেবকের দায়িত্ব পালন করতে আসা মগরেল মবদের ছবি তোলায় ব্যস্ত ছিল। তখন আমি আমি এই ছবিটি তুলি।”

ছবিটি প্রথমে শেয়ার করা হয় ’স্টাফ’ এর লাইভ ব্লগে। সেখানে মুহূর্তেই এটি ব্যাপকভাবে শেয়ার হয়। পরে সেটি ফটোগ্রাফার উইলিয়ামস তার ইনস্টাগ্রাম অ্যাকাউন্টেও শেয়ার করেন। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমের এই প্লাটফর্মে মাত্র কয়েক ঘণ্টায় ছবিটি এত পরিমাণে লাইক পায়, যা অন্য সবগুলো ছাড়িয়ে যায় মুহূর্তেই।

ছবিটি নিয়ে অনেকে কমেন্টও করেছেন। একজন লিখেছেন, “ছবিটি নিউজিল্যান্ডের সহিষ্ণুতা, সমবেদনা এবং মানবতার এক বলিষ্ঠ উদাহরণ।”

আরেকজন লিখেছেন, “ছবিটি অবিশ্বাস্য, সুন্দর এবং শক্তিশালী।”

অমৃতবাজার/এএস