ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২০ জুন ২০১৯ | ৬ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

কুপারম্যানকে উপদেষ্টা নিয়োগ: মানবাধিকার কর্মীদের ক্ষোভ প্রকাশ


অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ১১:৪৭ এএম, ১৮ জানুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার
কুপারম্যানকে উপদেষ্টা নিয়োগ: মানবাধিকার কর্মীদের ক্ষোভ প্রকাশ

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প মুসলিমবিদ্বেষী চার্লস এম কুপারম্যানকে উপ জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা হিসেবে নিয়োগ দেয়ায় ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন মানবাধিকার কর্মীরা। প্রায় এক দশক ধরে একটি মুসলিমবিদ্বেষী গ্রুপের বোর্ড সদস্য হিসেবে সক্রিয় ছিলেন কুপারম্যান। গত সপ্তাহে জাতীয় নিরাপত্তা উপদেষ্টা জন বোল্টনের সহকারী হিসেবে তাকে নিয়োগ দেয়া হয়।

গত চার দশকের বেশি সময় ধরে জাতীয় নিরাপত্তা নীতি ও কর্মসূচিতে তার অভিজ্ঞতার কারণেই তাকে এ পদে বসানো হয়েছে বলে এক বিবৃতিতে ট্রাম্প দাবি করেন। ২০০১ থেকে ২০১০ সাল পর্যন্ত তিনি সেন্টার ফর সিকিউরিটি পলিশির (সিএসপি) পরিচালকদের বোর্ডের একজন হয়ে কাজ করেছেন তিনি।

বিভিন্ন সম্প্রদায়ের মধ্যে ঘৃণা-বিদ্বেষ পর্যবেক্ষণ করে আসছে সাউদার্ন পোভার্টি ল’ সেন্টার (এসপিএলসি)। প্রতিষ্ঠানটি সিএসপিকে একটি মুসলিমবিদ্বেষী গোষ্ঠী হিসেবে আখ্যায়িত করেছে। মুসলমানদের বিরুদ্ধে তারা বিভিন্ন ষড়যন্ত্র তত্ত্ব প্রচার করে বেড়াচ্ছে। সিএসপির দাবি, মুসলমানরা মার্কিন সরকারে অনুপ্রবেশ করে ইসলামিক আইন প্রতিষ্ঠা করতে চায়।

কুপারম্যানে নিয়োগ বাতিলের দাবি জানিয়েছে আমেরিকান ইসলামিক রিলেশনস অন কাউন্সিল (সিএআআর)। সংস্থাটির সরকারবিষয়ক বিভাগের পরিচালক রবার্ট ম্যাকাও বলেন, ট্রাম্প ফের মুরগির খামারে শেয়াল ছেড়ে দিলেন। কারণ মার্কিন জাতীয় নিরাপত্তা অগ্রাধিকারের মধ্যে এমনিতেই ইসলাম বিদ্বেষ সুদৃঢ়ভাবে প্রতিষ্ঠিত রয়েছে। তার পর সেখানে একজন ইসলামবিদ্বেষীকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে।

তিনি বলেন, কুপারম্যানের নিয়োগ অবশ্যই বাতিল করা উচিত। মার্কিন সরকারে তার কোনো জায়গা হওয়া উচিত নয়।

অমৃতবাজার/ইকরামুল