ঢাকা, রোববার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে গাঁজা বৈধ করবে মালয়েশিয়া


অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৭:২৯ পিএম, ২৬ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বুধবার
এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে গাঁজা বৈধ করবে মালয়েশিয়া

এশিয়ার প্রথম দেশ হিসেবে চিকিৎসা ক্ষেত্রে গাঁজা বৈধ করার চিন্তাভাবনা করছে মালয়েশিয়া। মঙ্গলবার দেশটির পানি, ভূমি এবং প্রাকৃতিক সম্পদমন্ত্রী জাভিয়ের জয়াকুমার বলেছেন, গাঁজার চিকিৎসা মূল্য নিয়ে গত সপ্তাহে মন্ত্রিসভার বৈঠকে ‘সংক্ষিপ্ত’ আলোচনা হয়েছে। খবর ব্লুমবার্গের।

চিকিৎসায় ব্যবহৃত গাঁজার তেল রাখা, প্রক্রিয়াজাতকরণ ও বিতরণে অভিযুক্ত এক ব্যক্তিকে গত মাসে মৃত্যুদণ্ড দেন মালয়েশিয়ার আদালত। ২৯ বছর ওই ব্যক্তির মৃত্যুদণ্ডের রায়কে কেন্দ্র করে মালয়েশিয়ায় ক্ষোভের সঞ্চার হয়। এরপর দেশটির ৯৩ বছর বয়সী প্রধানমন্ত্রী মাহাথির মোহাম্মদ বলেছেন, এ বিষয়ে আদালতের রায় ও প্রাসঙ্গিক আইন রিভিউ করা হবে।

প্রাকৃতিক সম্পদমন্ত্রী জাভিয়ের বলেন, ওই ব্যক্তির মৃত্যুদণ্ডের সাজা বাতিলের ব্যাপারে মন্ত্রিসভা একমত হয়েছে। কিন্তু চিকিৎসা ক্ষেত্রে গাঁজার বৈধতার পক্ষে সমর্থন আদায় করা ‘একটি অসাধ্য যুদ্ধ’ বলেও মনে করেন তিনি।

তিনি বলেন, এই ইস্যু মানুষজনকে বোঝাতে কিছুটা সাহসের প্রয়োজন রয়েছে। আমার ব্যক্তিগত মত হচ্ছে, যদি গাঁজার চিকিৎসা মূল্য থাকে, তাহলে এটি একটি নিয়ন্ত্রিত আইটেম হতে পারে; যা স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয় চিকিৎসার জন্য ব্যবহার করতে পারে।

আগামী মাসে কানাডাজুড়ে চিকিৎসা ক্ষেত্রে গাঁজাকে বৈধ করবে দেশটির সরকার। এছাড়া জার্মানি ও যুক্তরাষ্ট্রের কয়েকটি অঙ্গরাজ্য কানাডার উদাহরণ অনুসরণ করছে।

দক্ষিণপূর্ব এশিয়ার দেশগুলোতে মাদক চোরাচালানের অপরাধ মৃত্যুদণ্ড। ইন্দোনেশিয়ায় প্রায় মাদক চোরাকারবারীদের মৃত্যুদণ্ড কার্যকর করার খবর পাওয়া যায়। আর ফিলিপিন্সের প্রেসিডেন্ট রদ্রিগো দুতের্তে ক্ষমতা গ্রহণের পর মাদকের বিরুদ্ধে যুদ্ধে দেশটিতে এখন পর্যন্ত কমপক্ষে চার হাজার মানুষের মৃত্যু হয়েছে।

তবে চিকিৎসা ক্ষেত্রে গাঁজা বৈধ করার বিষয়টি কেবল মালয়েশিয়াই নয়, থাইল্যান্ড সরকারেরও বিবেচনাধীন রয়েছে। থাইল্যান্ডের স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের অধীনে সরকারি ফার্মাসিউটিক্যাল সংস্থা দেশটির সেনা সরকারকে চিকিৎসা ক্ষেত্রে গাঁজার ব্যবহারের রাজি করানোর চেষ্টা করছে।

কিন্তু মালয়েশিয়ায় মাদক চোরাচালানের কয়েকটি অপরাধের সাজা এখনও মৃত্যুদণ্ড। তাই নতুন আইনে কিভাবে গাঁজাকে চিকিৎসা ক্ষেত্র, বিনোদন বা অন্য ব্যবহারের মধ্যে আলাদা করা হবে সেটাই একটা চ্যালেঞ্জ।

প্রাকৃতিক সম্পদমন্ত্রী জাভিয়ের বলেন, প্রমাণের অভাবে গাঁজার চিকিৎসা মূল্য নিয়ে দেশটির স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের এখনও সন্দেহ রয়েছে। তবে স্বাস্থ্য, পরিবেশ ও বাণিজ্য মন্ত্রণালয়গুলোর সঙ্গে এ নিয়ে আলোচনা করবেন বলে জানিয়েছেন এই মন্ত্রী।

তিনি বলেন, কয়েকটি দেশ গাঁজাকে চিকিৎসা ক্ষেত্রে বৈধ করেছে। যদি চিকিৎসা ক্ষেত্রে গাঁজার ব্যবহার করা হয়, তাহলে এটা কাজে লাগানো যাবে। কোনও সামাজিক উদ্দেশ্যে নয়, চিকিৎসা ক্ষেত্রে- হ্যাঁ, এটা শুধু চিকিৎসা ক্ষেত্রে ব্যবহারের অনুমতি দেয়া হবে।

অমৃতবাজার/মিঠু