ঢাকা, রোববার, ০৫ এপ্রিল ২০২০ | ২১ চৈত্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘সংবিধানকে ধ্বংস করতে চাচ্ছে ভারত সরকার’


অনলাইন ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৩:৩৪ পিএম, ০৮ জানুয়ারি ২০২০, বুধবার
‘সংবিধানকে ধ্বংস করতে চাচ্ছে ভারত সরকার’ জেএনইউ প্রাক্তন ছাত্রনেতা কানহাইয়া কুমার। ছবি: সংগৃহীত

রবিবার সন্ধ্যায় জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয়ে হওয়া হামলার পর সরব হয়ে উঠেছেন বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন শিক্ষার্থীরা। মঙ্গলবার সিপিআই(এম) নেতা সীতারাম ইয়েচুরি ও প্রাক্তন ছাত্রনেতা কানহাইয়া কুমার কেন্দ্রকে এই হিংসাত্মক আক্রমণের জন্য ভারত সরকারকে পাল্টা আক্রমণ করে বলেন, ‘সরকার সংবিধানকে ধ্বংস করতে চাচ্ছে।`

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তনদের এক বৈঠকে মিলিত হয়ে সীতারাম ইয়েচুরি বলেন, তিনি জানতে চান কেন জেএনইউয়ের ছাত্র সংগঠনের নেত্রী ঐশী ঘোষের বিরুদ্ধে এফআইআর দায়ের হল। সিপিআই(এম)-এর সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘আমরা সংবিধানকে রক্ষা করতে চাই। এবং যদি কেউ জাতীয়তা-বিরোধী থেকে থাকে, সেটা হল সরকার, যারা সংবিধানকে ধ্বংস করতে চেষ্টা চালাচ্ছে।’

বিশ্ববিদ্যালয়ের প্রাক্তন ছাত্রনেতা কানহাইয়া কুমার সরকারকে হুঁশিয়ারি জানিয়ে বলেন, ‘জেএনইউকে শত্রু বানিয়ে সরকার বড় ভুল করেছে। তারা এমন এক শত্রু বেছেছে যারা বুদ্ধিমান ও অধ্যয়নশীল।`

তিনি আরও বলেন, ‘জেএনইউয়ের প্রতি ঘৃণা কেবল কোনও বিশ্ববিদ্যালয় বা আদর্শের প্রতি ঘৃণা নয়। বরং দেশ কেমন হওয়া উচিত সেই চিন্তার প্রতিও... জেএনইউতে কোনও মেয়ে পাঠাগার থেকে বেরিয়ে এসে একা হেঁটে যেতে পারে। এই ক্যাম্পাসে ৪০ শতাংশ শিক্ষার্থীই ‘আদিবাসী` বা দরিদ্র পরিবারের।`

উল্লেখ্য, রবিবার সন্ধ্যায় জওহরলাল নেহরু বিশ্ববিদ্যালয় চত্বরে মুখোশধারী দুষ্কৃতিকারীরা হাম‌লা চালায় শিক্ষার্থী ও অধ্যাপকদের উপর। লোহার রড, লাঠি ইত্যাদি নিয়ে তারা চড়াও হয় সকলের উপরে। প্রায় তিন ঘণ্টা তারা তাণ্ডব চালায়। ঘটনায় আহত হন ৩৪ জন। পুলিশ এফআইআর দায়ের করলেও এখনও পর্যন্ত কাউকে গ্রেফতার করতে পারেনি।

অমৃতবাজার/এসএইচএম