ঢাকা, শুক্রবার, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯ | ১০ ফাল্গুন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

‘বন্দেমাতরম’ গাইতে অস্বীকার, মুসলিম শিক্ষককে বেধড়ক মারধর!


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৩:৫৪ পিএম, ০৮ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার
‘বন্দেমাতরম’ গাইতে অস্বীকার, মুসলিম শিক্ষককে বেধড়ক মারধর!

ভারতে সাধারণতন্ত্র দিবসে জাতীয় সংগীত ‘বন্দেমাতরম’ গাইতে অস্বীকার করায় এক মুসলিম শিক্ষককে বেধড়ক মারধর করার অভিযোগ উঠেছে। স্থানীয় বাসিন্দারাই ওই শিক্ষককে পিটুনি দেয়। ঘটনাটি ঘটেছে, বিহার রাজ্যের কাটিহার জেলার আবদুল্লাপুরের একটি স্কুলে। ঘটনার পর বেশ কয়েকদিন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে মারধরের সেই ভিডিও ভাইরাল হয়েছে।

জানা গেছে, ওই শিক্ষকের নাম আফজল হুসাইন। গত ২৬ জানুয়ারি ভারতের সাধারণতন্ত্র দিবসে (রিপাবলিক ডে) জাতীয় পতাকা উত্তোলনের পর ভারতের জাতীয় সংগীত বন্দেমাতরম গাইতে অস্বীকার করেন শিক্ষক আফজল। এর পরেই খেপে যায় স্থানীয়রা। তখনই তার ওপর ঝাঁপিয়ে পড়ে স্থানীয় কিছু লোকজন। স্থানীয়রা জোর করতে থাকে ওই শিক্ষককে বন্দেমাতরম গাইতে হবে। কিন্তু তিনি বন্দেমাতরম গাইতে অস্বীকার করায় তাকে বেধড়ক মারধর করা হয়।

আফজল হুসাইন এনটিভি অনলাইনকে বলেন, ‘আমি ইসলাম ধর্মে বিশ্বাসী। আমার ধর্ম আমাকে বন্দেমাতরম গাওয়ার সম্মতি দেয় না। তা ছাড়া ভারতের সংবিধানে কোথাও লেখা নেই আমাকে বন্দেমাতরম গাইতেই হবে। তা ছাড়া, সেদিন আমার ওপর যেভাবে হামলা হয়েছিল, তাতে আমার প্রাণও চলে যেতে পারত।’

তবে ওইদিনের ঘটনা প্রসঙ্গে বিহারের কাটিহার জেলার শিক্ষা কর্মকর্তা দীনেশ চন্দ্র দেব জানান, এই ধরনের ঘটনার কোনো অভিযোগ এখনো পাইনি। অভিযোগ পেলে অবশ্যই তদন্ত করে দেখা হবে।

অন্যদিকে এ ঘটনায় বিহারের শিক্ষামন্ত্রী কে এন প্রসাদ জানান, ভারতের জাতীয় সংগীতকে অপমান করার অধিকার কারোরই নেই। এ রকম কেউ করে থাকলে তাকে ক্ষমা করা হবে না।

অমৃতবাজার/পিকে