ঢাকা, রোববার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | ২ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

পশ্চিমবঙ্গে সহিংসতায় নিহত ৬


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ১২:৪৫ পিএম, ২৮ আগস্ট ২০১৮, মঙ্গলবার
পশ্চিমবঙ্গে সহিংসতায় নিহত ৬

পশ্চিমবঙ্গে তিন স্তর বিশিষ্ট পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন নিয়ে সহিংসতার জেরে এই পর্যন্ত ৬ জনের মৃত্যু হয়েছে। রাজ্যটির বিভিন্ন জেলায় `কার দখলে কোন পঞ্চায়েত যাবে এবং কে হবেন পঞ্চায়েত প্রধান, কে হবেন উপ-প্রধান` মূলত তা নিয়েই চলছে এই লড়াই। মঙ্গলবার সকালে ধানক্ষেত থেকে উদ্ধার করা হয় এক তৃণমূল কর্মীর ক্ষতবিক্ষত রক্তাক্ত দেহ ৷

সোমবার রাতে মোটরবাইকে করে ঝাড়গ্রামে দাদা প্রসূন ষড়ঙ্গীর বাড়ি যাচ্ছিলেন ওই তৃণমূল কর্মী ৷ সেই সময় দুষ্কৃতীর দল তাকে খুন করে বলে অভিযোগ উঠছে ৷ প্রসূনবাবু তার ভাইয়ের মৃত্যুকে রাজনৈতিক খুন বলে দাবি করছেন। ইতিমধ্যেই গোটা ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে ঝাড়গ্রাম থানার পুলিশ ৷

এর আগে সোমবার শাসক দল তৃণমূল কংগ্রেসের দলীয় কোন্দলের মধ্যে পড়ে মালদহ জেলার গোপালপুরে মারা গেলেন দুই জন। এছাড়াও আহত হয়েছেন এক শিশুসহ মোট পাঁচ জন।

জানা গেছে, স্থানীয় পঞ্চায়েতে বোর্ড গঠন নিয়ে সোমবার সকাল থেকে উত্তপ্ত হয়ে ওঠে মালদহের হুকুমতটোলা, কালীটোলা, বালুটোলাসহ বিভিন্ন গ্রাম। শুরু হয় বোমাবাজি ও গুলিবৃষ্টি। এদিন সকালে রাস্তায় বেরিয়ে সেই বোমাবাজি ও গুলিবৃষ্টির মধ্যে পড়ে মারা যান ওই দুই জন।

পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন প্রক্রিয়া শুরু হওয়ার সঙ্গে সঙ্গেই রাজ্যজুড়ে মাথাচাড়া দিয়ে ওঠা এই সহিংসতায় শনিবার উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুরে গুলিবিদ্ধ হয়ে খুন হন এক তৃণমূল কর্মী। এরপর সোমবার মালদহের গোপালপুরে দু’জনের মৃত্যু হয়। অন্যদিকে, পুরুলিয়ার জয়পুরে গুলিবিদ্ধ হয়ে মৃত্যু হয়েছে দুই বিজেপি কর্মীর। এবার ঝাড়গ্রামে খুন হলেন তৃণমূল কর্মী।

এদিকে রাজ্যে পঞ্চায়েত বোর্ড গঠন নিয়ে জেলায় জেলায় সহিংসতায় উদ্বেগ প্রকাশ করেছেন পশ্চিমবঙ্গের মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সোমবার তিনি মন্ত্রীসভার বৈঠক ডেকে সবাইকে নির্দেশ দিয়েছেন, জেলাতে যাতে পঞ্চায়েতের বোর্ড গঠন নিয়ে কোনো রকম অশান্তি না ছড়ায় সে দিকে খেয়াল রাখার।

অমৃতবাজার/জয়