ঢাকা, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯ | ১৩ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

এক প্যাকেট কন্ডোমের দাম ৬৫ হাজার টাকা!


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৩:৫৬ পিএম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, শুক্রবার
এক প্যাকেট কন্ডোমের দাম ৬৫ হাজার টাকা!

ভেনিজুয়েলায় যৌন সংসর্গে লিপ্ত হওয়ার বিষয়টি দিন দিন মাথা ব্যথার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। সঙ্গম বা যৌন সংসর্গে লিপ্ত হওয়ার আগে অন্তত দশবার ভাবতে হচ্ছে দেশটির নাগরিকদের! যৌন সংসর্গ বা স্বাভাবিক যৌন জীবনে কোনও রকম বাধা-নিষেধ নেই সে দেশে। খবর জি নিউজ।

কিন্তু ভেনিজুয়েলায় গর্ভপাত করানো নিষিদ্ধ। তাই সুরক্ষিত যৌন জীবন অত্যন্ত জরুরি দেশটির নাগরিকদের কাছে। ভাবছেন, তাতে সমস্যা কোথায়! সমস্যা হল, বর্তমানে ভেনিজুয়েলায় কনডম বা গর্ভনিরোধক ওষুধের দাম এখন আকাশ ছোঁয়া!

সস্তার কনডম কিনে অনাকাঙ্খিত গর্ভধারণের ঝুঁকি নিতে নারাজ সে দেশের তরুণ প্রজন্ম। আর ভাল মানের কন্ডোম মানেই তা বিদেশ থেকে আমদানি করা। ফলে সেগুলির দামও অনেক বেশি।

গণমাধ্যমের তথ্য অনুযায়ী, এক প্যাকেট কন্ডোমের দাম প্রায় ৭৫৫ থেকে ৮০০ মার্কিন ডলার। অর্থাৎ, ভারতীয় মূদ্রায় যা প্রায় ৫৭ হাজার টাকা এবং বাংলাদেশী মুদ্রায় যা প্রায় ৬৫ হাজার টাকা। গর্ভনিরোধক ওষুধের দামও কিন্তু কম নয়!

তাই অপারগ হয়ে সোনা বা হিরের দামেই নিজেদের যৌন জীবন সুরক্ষিত করতে বাধ্য হচ্ছে ভেনিজুয়েলার মানুষ। লম্বা লাইন দিয়ে ‘আকাশ ছোঁয়া’ দামেই কিনছেন কনডম বা গর্ভনিরোধক ওষুধ।

কারণ, সস্তার গর্ভনিরোধক ব্যবস্থা মাঝ পথে ব্যর্থ হলে গর্ভধারণের একটা ঝুঁকি থেকেই যায়। আর একবার গর্ভধারণের পর গর্ভপাত করানোর কোনও উপায় নেই! কারণ, ভেনিজুয়েলায় গর্ভপাত করানো কঠোর শাস্তিযোগ্য অপরাধ।

সুতরাং, হয় যৌন জীবনে অকাল অবসর, না হয় সোনার দামে কনডম বা গর্ভনিরোধক ওষুধ কেনা ছাড়া ভেনিজুয়েলার নাগরিকদের কাছে আর কোনও উপায় নেই আপাতত!

অমৃতবাজার/পিকে