ঢাকা, শুক্রবার, ২১ সেপ্টেম্বর ২০১৮ | ৫ আশ্বিন ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

যে লক্ষণগুলো দেখে একজন ‘খারাপ’ মানুষ চিনে নেয়া যায়!


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০২:১১ পিএম, ১১ জুলাই ২০১৮, বুধবার
যে লক্ষণগুলো দেখে একজন ‘খারাপ’ মানুষ চিনে নেয়া যায়!

জীবনে চলার পথে হরেক রকম মানুষের সঙ্গে প্রতিনিয়ত জড়িয়ে যায় আমাদের জীবন। মানবিক সম্পর্কই হচ্ছে মানব জীবনের সবচাইতে বড় সত্য। সম্পর্ক ভাঙে, সম্পর্ক গড়ে। আমরা ভালোবাসায় যেমন আপ্লুত হই, মমতায় যেমন আবেগী হই, তেমনই প্রতারণায় ভাঙে মন কিংবা আঘাতে নীলও হয়ে যাই। সবই জীবনের অংশ।

কিন্তু তবুও, জীবনের পথে নিজেকে নিরাপদ রাখতে ভালো-মন্দ মানুষ চিনে নেয়াটা জরুরী। যারা খারাপ প্রকৃতির মানুষ, তারা সাধারণত অত্যন্ত ধুর্ত হয়ে থাকেন। এতটাই ধূর্ত যে প্রায়ই নিজের খারাপ দিকগুলো আড়াল করে রাখেন সেই চালাকির পেছনে। আজ যে মানুষ অন্যের ক্ষতি করলো, কাল সে আপনারও ক্ষতি করতেই পারে- এই সত্যটি তাই ভুলে গেলে চলবে না।

যে লক্ষণ দেখে একজন খারাপ মানুষকে সহজে চিনে নেয়া যায়। এগুলোর বেশীরভাগ যদি কোনো মানুষের সঙ্গে মিলে যায়, বুঝে নেবেন তার কাছ থেকে দূরে থাকাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ! এমন মানুষের সঙ্গে কোনোরকম ঘনিষ্ঠ সম্পর্ক করার আগে অবশ্যই ভালো করে ভেবে দেখবেন।

১. অন্যের দুর্ভাগ্যে মুখে মুখে সহানুভূতি জানালেও মনে মনে তারা খুশি হয়ে ওঠেন। অন্যের কষ্ট তাদেরকে পীড়া দেয় না।

২. তারা সকলের জীবনেই খুব সূক্ষ্মভাবে হলেও খবরদারি করতে চান।অন্যের জীবনে নিজের ইচ্ছা খাটাতে চান।

৩. তাদের সঙ্গে আপনার অনেক কিছুই মেলে না। ফলে একসঙ্গে থাকলে প্রায়ই অন্যরকম অস্বস্তি হয়। মন খুলে আচরণ করতে পারেন না। কখনো আপনার অবচেতন মন তাদেরকে ভয় পায়।

৪. অন্যের প্রতি আপনার মনোভাব তারা বিরূপ করে তোলে নানান ভাবে। বাজে গসিপ ও মিথ্যা বদনামের সাহায্য নেয়া তাদের স্বভাব।

৫. কারণে-অকারণেই তারা মিথ্যা বলে থাকে। প্রয়োজন না হলেও মিথ্যা বলে।

৬. নিজের স্বার্থ উদ্ধারে যে কোনো সীমা অতিক্রম করতে পারে তারা। নীচ আচরণ তাদের জন্য কোনো ব্যাপার নয়।

৭. নিজের খারাপ কাজের জন্যেও তারা কখনোই অনুতপ্ত নয়।বরং এসব কাজকে তারা খারাপ মনেও করে না।

৮. তারা হিংসুক এবং নিষ্ঠুর প্রকৃতির মানুষ। কোনো কারণ ছাড়াই সূক্ষ্ম চালে অন্যের ক্ষতি করতে তাদের দ্বিধা হয় না।

৯. তারা কৌশলে দায়িত্ব এড়িয়ে যায়। নিজের দায়িত্ব অন্যের উপরে চাপিয়ে দেয়।

১০. তাদের ব্যাপারে আপনজনেরাই নেগেটিভ মন্তব্য করে থাকে।

১১. তারা বন্ধু হিসেবে মোটেও সুবিধের নয়। স্বার্থপর মানুষ কখনোই ভালো বন্ধু হতে পারে না।

১২. তারা নানান ভাবে মানুষের মাঝে বৈষম্য করতে ও মানুষকে হেয় করতে ভালোবাসে। নারী-পুরুষের বৈষম্যেও তারা ভীষণভাবে সম্মত হয়ে থাকে।

১৩. তারা ছলে-বলে-কৌশলে অন্যকে প্রতারিত করে থাকে। এত সূক্ষ্ম চালে যে ধরা মুশকিল হয়ে যায়।

১৪. তারা চোখের পলকে সবকিছুকেই অস্বীকার করতে পারে। নিজের দোষ মুহূর্তের মাঝে ঢেকে ফেলতে পারে।

১৫. তারা ঝগড়াটে প্রকৃতির হয়। কৌশলে ঝগড়ার পরিস্থিতি তৈরি এদের প্রিয় কাজ।

১৬. তাদের কোনো চেহারাই সত্য নয়। একেকজনের সঙ্গে একেক রকম আচরণ করে তারা। যেন একজন মানুষ, অনেকগুলো চেহারা। তথ্য সূত্র: ইয়োর ট্যাংগো, সাইকোলজি টু ডে

অমৃতবাজার/সবুজ