ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৯ জুন ২০১৮ | ৫ আষাঢ় ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

পটল চিরে পাওয়া গেল ৫৫ হাজার ইউরো!


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০১:২৯ পিএম, ২৩ মে ২০১৮, বুধবার
পটল চিরে পাওয়া গেল ৫৫ হাজার ইউরো!

থরে থরে সাজানো পটল। আঙুল দিয়ে চাপতেই ফেটে যেতে থাকে পটলগুলো। ভেতর থেকে বেরিয়ে আসে ইউরো। সব মিলিয়ে ৫৫ হাজার ইউরো! গত সোমবার রাতে কলকাতার নেতাজি সুভাষচন্দ্র আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে দুইজন যাত্রীর দুই ব্যাগ তল্লাশি চালিয়ে ওই ইউরোগুলো উদ্ধার করা হয়। খবর আনন্দবাজার পত্রিকা।

শুল্ক দফতর সূত্রে জানা যায়, বড় বড় পটল চিরে, তার ভেতরে ঢুকিয়ে দেওয়া হয়েছিল সরু করে মোড়া ৫০০ ইউরোর নোট। এর পরে চেরা অংশ আঠা দিয়ে লাগিয়ে দেওয়া হয়। বাইরে থেকে বোঝার কোনও উপায় ছিল না যে ভেতরে নোট রয়েছে।

শুল্ক অফিসাররা জানিয়েছেন, গ্রেফতার হওয়া দুই যাত্রীর বাড়ি বিহারে। এখন তাদের একজন থাকেন থাকেন খড়দহে। অন্য জন উত্তরপ্রদেশের রুদ্রপুরে।

সোমবার রাতে উড়োজাহাজে করে ব্যাঙ্কক যাবেন বলে তারা কলকাতার নেতাজি সুভাষচন্দ্র আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে পৌঁছন। দু’জনের কাছে একই রকম দেখতে কালো রঙের দু’টি ব্যাগ ছিল। ছিল একটি করে হাত ব্যাগও।

শুল্ক অফিসাররা জানিয়েছেন, এক একটি কালো ব্যাগে কমপক্ষে ১০ কিলোগ্রাম করে পটল ছিল। সেগুলো বিমানের পেটের ভেতরে পাঠিয়ে দেন ওই দুই যুবক। তার পরে হাত ব্যাগ নিয়ে তারা অভিবাসন পেরিয়ে শুল্ক অফিসারদের কাছে পৌঁছান। তাদের গতিবিধি দেখে সন্দেহ হয় অফিসারদের। পাসপোর্ট পরীক্ষা করে দেখা যায়, মাঝেমধ্যেই ওই দু’জন ব্যাঙ্কক যান।

সন্দেহ বাড়তে থাকায় কালো ব্যাগ দু’টি বিমানের পেট থেকে ফিরিয়ে আনা হয়। ব্যাগ খুলে দেখা যায়, থরে থরে সাজানো পটল। আঙুল দিয়ে চাপতেই ফেটে যেতে থাকে পটলগুলো। ভেতর থেকে বেরিয়ে আসে ইউরো। সব মিলিয়ে ১১০টি ৫০০ ইউরোর নোট ছিল পটলের ভেতরে।

দু’জনের ট্রাউজার্সের পকেট থেকে পাওয়া গিয়েছে পাঁচ হাজার মার্কিন ডলার। সব মিলিয়ে বাজেয়াপ্ত হওয়া মুদ্রার মূল্য ভারতীয় রুপিতে ৪৬ লক্ষ ৭১ হাজার ৫০০ বলে শুল্ক দফতর সূত্রে জানা গিয়েছে।

অমৃবাজার/জয়