ঢাকা, রোববার, ২৫ আগস্ট ২০১৯ | ১০ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

‘প্লিজ জানতে চাইবেন না…’


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৪:২৫ পিএম, ১৩ সেপ্টেম্বর ২০১৮, বৃহস্পতিবার
‘প্লিজ জানতে চাইবেন না…’

সে হিরোইন। স্বপ্নচারিনী। তার মুখে বলিরেখা! সে যে সদা সুন্দরী, চির যৌবনা। চোখে কাজল, মুখে মেকআপ, বাহারি পোশাক সবসময় টিপটপ তারা। কিন্তু সত্যি কি এটা কাঙ্খিত!

অফস্ক্রিন বা অনস্ক্রিন সপ্তাহে সাত দিন চব্বিশ ঘন্টা কী ঝকঝকে লাগতে হবে তাদের? সোশ্যাল মিডিয়ায় প্রশ্ন ছুড়ে দিলেন অভিনেত্রী স্বস্তিকা মুখোপাধ্যায়। তিনি সম্প্রতি ট্যুইটারে লিখেছেন, ‘আমি ২০ বছর বয়সে যেমন দেখতে ছিলাম, এখনও তেমন কেন দেখতে নই! প্লিজ জানতে চাইবেন না। কারণ আমি তো ভিনগ্রহের প্রাণী নই। কারণ এই পৃথিবীতে সব অভিনেতারই বয়স হয়, মৃত্যুও হয়।’

অভিনেত্রীর কথায়, ‘অভিনেত্রীর যা বয়স, তার থেকে কম দেখাতে হবে! এ তো কাঙ্খিত হতে পারে না। সারাক্ষণ যে সুন্দর বা অল্প বয়সী দেখতে লাগবে, সেটাও বাধ্যতামূলক নয়। তাছাড়া আমি একজন অভিনেত্রী। যে চরিত্রে অভিনয় করছি, সেটা ঠিকঠাক করা আমার কাজ। বাকি গুলো নয়। শুরু থেকে একট ঠোঁট কাটা স্বাভাবের নায়িকা। সোজা কথা স্পষ্ট ভাবে বলতে কখনও দ্বিধা বোধ করেননি। আজও তারই প্রমান দিলেন আরও একবার।


আসলে ছাঁচে ফেলা গতানুগতিক জীবন তার না পছন্দ। সমাজের তোয়াক্কাও তিনি করেন না তেমন। খোলা আকাশে ডানা মেলে উড়ে বেড়ানো তার স্বভাব। তাইতো কিছুদিন আগে সোশ্যাল মিডিয়ায় স্তনের ছবি পোস্ট করতে দু’বার ভাবেননি তিনি।

কিছুদিন আগে, প্রখ্যাত শিল্পী মারিয়াস স্পারলিচের ছবি নিজের ইনস্টা অ্যালবামে পোস্ট করেছেন স্বস্তিকা। যার ক্যাপশনে দিয়েছেন, ‘নারী শরীরের স্তনবৃন্তের ছবি সোশ্যাল মিডিয়া পোস্ট করতে দেয় না।’ একই সঙ্গে তিনি আরো লিখেছেন, ‘আপনারা এই চিত্রশিল্পীদের যা খুশি বলতে পারেন, কিন্তু এরা তার থেকেও অনেক বেশি কিছু। আদতে আমাদেরই একজন। এরা আমাদের সমাজকে প্রতিফলিত করে, নারী শরীর নিয়ে সমাজের রক্ষণশীলতা ও নীতি পুলিশগিরিকেই তুলে ধরে। সোশ্যাল মিডিয়ার নীতির পরিবর্তন করতে গেলে আগে আমাদের পালটাতে হবে।’

আজকাল প্রায়ই সোশ্যাল মিডিয়ায় বডি-শেমিংয়ের শিকার হয় মেয়েরা। যদিও এটা সোশ্যাল মিডিয়ায় মিডিয়ার সমস্যা নয়, সমস্যা সমাজের। তাই এই পোস্টের মাধ্যমে নারী শরীরকে শালীনতার মাপকাঠিতে মাপা সমাজকে একহাত নিয়েছেন তিনি। আর এবার নায়িকাদের বয়স নিয়ে প্রশ্ন করার সপাটে চড় মারলেন তিনি। সূত্র: কলকাতা ২৪×৭

অমৃতবাজার/সুজন