ঢাকা, রোববার, ১৬ ডিসেম্বর ২০১৮ | ১ পৌষ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

শাকিব-অপু`র ডিভোর্স কার্যকর হয়নি


অমৃতবাজার ডেস্ক

প্রকাশিত: ০৪:১০ পিএম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, বৃহস্পতিবার | আপডেট: ০৫:১০ পিএম, ২২ ফেব্রুয়ারি ২০১৮, বৃহস্পতিবার
শাকিব-অপু`র ডিভোর্স কার্যকর হয়নি

বিভিন্ন গণমাধ্যমে (২২ ফেব্রুয়ারি) বৃহস্পতিবার বলা হয়েছে বাংলা চলচ্চিত্রের আলোচিত জুটি শাকিব-অপু’র সংসার অধ্যায়ের অবসান ঘটলো আজ। তারকা এই দম্পতি দু`জনের আর এর মধ্যে সমঝোতা হয়নি। তাই আইন অনুযায়ী আজ বৃহস্পতিবার ঢালিউডের আলোচিত জুটি শাকিব-অপুর বিবাহ বিচ্ছেদ কার্যকর ছচ্ছে বলেও লিখেছেন অনেকেই। আসলেই কি আজ ডিভোর্স কার্যকর হয়ে যাচ্ছে? নাকি শুধুই গুঞ্জন।

শাকিব খান তার স্ত্রী অপু বিশ্বাসের সঙ্গে সংসার টিকিয়ে রাখতে চান না, এমন ইঙ্গিত আগেই দিয়েছেন। অপু বিশ্বাসও ডিভোর্স মেনে নিয়েছেন বলে সম্প্রতি গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন। তিনি এখন নিজের মত করে নতুন জীবনের পরিকল্পনা করবেন বলে জানান।

শাকিব খান গত বছরের ২২ নভেম্বর বিবাহবিচ্ছেদের কাগজে স্বাক্ষর করেন। সেই হিসেবে আজ তিন মাস পূর্ণ হলো। কিন্তু পারিবারিক আইন অধ্যাদেশ, ১৯৬১ অনুযায়ী ‘নোটিশপ্রাপ্তির ৩০ দিনের ভিতর চেয়ারম্যান পক্ষদ্বয়ের মধ্যে পুনর্মিলন স্থাপনের উদ্দেশ্যে একটি সালিশি কাউন্সিল গঠন করিবেন এবং এই কাউন্সিল পুনর্মিলন ঘটাইবার জন্য সমস্ত প্রকার প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করিবেন।’

এ আইনের আলোকেই শাকিব ও অপুর বিষয়টি এগোচ্ছে বলে জানিয়েছেন ঢাকা সিটি করপোরেশনের (অঞ্চল-৩) প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা হেমায়েত হোসেন। বিভিন্ন গণমাধ্যমে শাকিব-অপুর বিচ্ছেদ কার্যকরী হচ্ছে, এমন খবরের পরিপ্রেক্ষিতে হেমায়েত হোসেন গণমাধ্যমকে বলেন, ‘আমার চোখেও পড়েছে এমন দু-একটি নিউজ, যে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসের বিচ্ছেদ আজ কার্যকর হলো। বিষয়টা আসলে তা নয়। শাকিব খান যেদিন স্বাক্ষর করেছিলেন, সেদিন থেকে তিন মাস পর কার্যকর হবে ব্যাপারটা এমন নয়। আমরা সিটি করপোরেশন তাদের তিন মাসে তিনবার ডাকব, সেই তৃতীয়বার বিষয়টির ফয়সালা হবে। যে কারণে আজ তাদের বিচ্ছেদ বা পুনরায় সংসার শুরু কোনোটাই হচ্ছে না।’

হেমায়েত হোসেন আরো বলেন, ‘এর আগে আমরা দুবার তাদের ডেকেছি। প্রথমবার অপু বিশ্বাস এলেও শাকিব খান বা উনার কোনো প্রতিনিধি আসেননি। দ্বিতীয়বার তাঁরা কেউই আসেননি। আগামী ১২ মার্চ আমাদের তৃতীয় বৈঠক। সেখানে যদি তাঁরা না আসেন, তা হলে আমরা মামলা খারিজ করে দেবো। তাঁরা যেহেতু কেউ আসছেন না, আমরা বুঝে নেব তারা আর একসঙ্গে থাকতে চান না। আর এ বিষয়ে একজন এসে লাভ নেই। এলে দুজনকেই আসতে হবে।’

গত বছরের ডিসেম্বরে নিজ উকিলের মাধ্যমে অপু বিশ্বাসকে তালাকের নোটিশ পাঠান শাকিব খান। তালাকের একটি কপি ঢাকা উত্তর সিটি করপোরেশনে পঠানো হয়। গত ২৪ ডিসেম্বর একটি চিঠির মাধ্যমে সিটি করপোরেশনে ১৫ জানুয়ারি হাজির হতে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাসকে বলা হয়। সেদিন শুধু অপু বিশ্বাস সিটি করপোরেশনে যান। শাকিব খান তখন থাইল্যান্ডে একটি ছবির গানের শুটিংয়ে ব্যস্ত ছিলেন। দ্বিতীয়বার ১২ ফেব্রুয়ারি তাঁদের ডাকা হলে শাকিব খান ও অপু বিশ্বাস দুজনে অনুপস্থিত থাকেন। এখন আগামী ১২ মার্চ তৃতীয় ও শেষবারের জন্য তাঁদের আবারও ডাকা হয়েছে। এদিন যদি তাঁরা না উপস্থিত হন, তাহলে বিবাহবিচ্ছেদ কার্যকর হয়ে যাবে’।

উল্লেখ্য, শাকিব খান বর্তমানে তার সাম্প্রতিক সিনেমার কাজ নিয়ে ব্যাস্ত সময় পাড় করছেন অন্যদিকে অপু বিশ্বাস ইতিমধ্যেই বেশ কিছু ষ্টেজ শো ও নতুন সিনেমার জন্য নিজের ফিটনেস ফেরাতে অক্লান্ত পরিশ্রম করে যাচ্ছেন।

অমৃতবাজার/সুজন