ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১২ ডিসেম্বর ২০১৯ | ২৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

অভিনেত্রী নওশাবার মামলা হাই কোর্টে স্থগিত


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৬:৩৪ পিএম, ২০ নভেম্বর ২০১৯, বুধবার
অভিনেত্রী নওশাবার মামলা হাই কোর্টে স্থগিত

 

অভিনেত্রী কাজী নওশাবা আহমেদ। তার বিরুদ্ধে করা মামলার কার্যক্রম ছয়মাসের জন্য স্থগিত করেছেন হাইকোর্ট। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে গুজব ছড়ানোর অভিযোগে তার বিরুদ্ধে এ মামলা করা হয়।

বুধবার (২০ নভেম্বর) বিচারপতি মো. রেজাউল হক ও বিচারপতি ভীষ্মদেব চক্রবর্তীর হাইকোর্ট বেঞ্চ রুলসহ এ আদেশ দেন। রুলে ওই মামলা কেন বাতিল করা হবে না, তা চার সপ্তাহের মধ্যে রাষ্ট্রপক্ষের কাছে জানতে চেয়েছেন আদালত।

আদালতে আবেদনের পক্ষে ছিলেন ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়ুয়া। রাষ্ট্রপক্ষে ছিলেন ডেপুটি অ্যাটর্নি জেনারেল আমিনুর রহমান চৌধুরী টিকু।

এ বিষয়ে গণমাধ্যমকে ব্যারিস্টার জ্যোর্তিময় বড়ুয়া বলেন, ‘মামলাটি দায়ের করা হয়েছে ২০১৮ সালের ৫ আগস্ট তথ্যপ্রযুক্তি আইনে। কিন্তু তথ্যপ্রযুক্তি আইন বিলুপ্ত হয়ে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইন ২০১৮ কার্যকর হয়েছে একই সালের ৮ অক্টোবর।

নতুন আইনের ৬১ ধারা মতে, তথ্যপ্রযুক্তি আইনের কোনো মামলা বিচারাধীন থাকলে তা ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনেও চলমান থাকবে। কিন্তু এ মামলার চার্জিশট দেওয়া হয় ২০১৯ সালের ৩০ এপ্রিল। অভিযোগ আমলে নেওয়া হয়েছে ৩ সেপ্টেম্বর। তাই এ মামলার কার্যক্রম অবৈধ। এই কারণে তা বাতিল চেয়ে আবেদনের পর ৬ মাসের স্থগিতাদেশ দিয়ে রুল জারি করেছেন হাইকোর্ট।’

উল্লেখ্য, নিরাপদ সড়কের দাবিতে আন্দোলন চলাকালে ২০১৮ সালের ৪ আগস্ট ফেসবুক লাইভে গুজব সৃষ্টির অভিযোগে উত্তরা থেকে নওশাবা আহমেদকে আটক করেছিল র‍্যাপিড অ্যাকশন ব্যাটালিয়ন (র‍্যাব)।

এর পরদিন ৫ আগস্ট র‍্যাব-১ এর কর্মকর্তা আমিরুল ইসলাম বাদী হয়ে তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি আইনে রাজধানীর উত্তরা পশ্চিম থানায় নওশাবার বিরুদ্ধে মামলা দায়ের করেন। এরপর এ দিনই মামলাটিতে তাকে গ্রেফতার দেখিয়ে কারাগারে পাঠানো হয়। একইসঙ্গে মেট্রোপলিটন ম্যাজিস্ট্রেট মাজহারুল হক তাকে চারদিনের রিমান্ডের আদেশ দেন।

প্রথম দফার রিমান্ড শেষে ১০ আগস্ট আবারও নওশাবাকে দুইদিনের পুলিশি রিমান্ডের আদেশ দেন একই অদালত।

এরপর ২০১৮ সালের ২১ আগস্ট পাঁচ হাজার টাকা মুচলেকায় নওশাবা সিএমএম আদালতের দেওয়া জামিনে মুক্তি পান।

অমৃতবাজার/এএস