ঢাকা, সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯ | ৬ কার্তিক ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

রেনু হত্যা: আরো ৩ আসামি কারাগারে


অমৃতবাজার রিপোর্ট 

প্রকাশিত: ০৯:৪৮ পিএম, ২৭ জুলাই ২০১৯, শনিবার
রেনু হত্যা: আরো ৩ আসামি কারাগারে

 

রাজধানীর বাড্ডা প্রাইমারি স্কুলের সামনে ছেলেধরা সন্দেহে তসলিমা বেগম রেনু হত্যা মামলায় গ্রেফতারকৃত আরও তিন আসামিকে রিমান্ড শেষে কারাগারে পাঠানোর আদেশ দিয়েছেন আদালত।

শনিবার চারদিনের রিমান্ড শেষে আসামিদের আদালতে হাজির করে তদন্ত শেষ না হওয়া পর্যন্ত কারাগারে আটক রাখার আবেদন করেন মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা। শুনানি শেষে ঢাকা মহানগর হাকিম ধীমান চন্দ্র মন্ডল আসামিদের কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন।

কারাগারে যাওয়া আসামিরা হলেন- মো. শাহীন, মো. বাচ্চু মিয়া ও মো. বাপ্পি।

গত ২২ জুলাই এই তিন আসামির চারদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত। মামলায় এ পর্যন্ত ১৩ আসামিকে গ্রেফতার করা হয়েছে।

এদিকে রিমান্ড চলাকালীন গত ২৬ জুলাই রেনু হত্যার প্রধান অভিযুক্ত ইব্রাহিম ওরফে হৃদয় হোসেন মোল্লা আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। একই দিন ছেলেধরা গুজব রটনাকারী রিয়া খাতুনও আদালতে স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন।

জবানবন্দি গ্রহণ শেষে আদালত দুই আসামিকেই কারাগারে পাঠানোর আদেশ দেন। গত ২৫ জুলাই রাজধানীর বাড্ডা থেকে রিয়া খাতুনকে গ্রেফতার করা হয়। আর গত ২৪ জুলাই ইব্রাহিম ওরফে হৃদয় হোসেন মোল্লার পাঁচদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

গত ২৫ জুলাই আসামি মো. সোহেল রানা, আসাদুল ইসলাম. মো. বিল্লাল, মো. রাজু ও মুরাদের তিনদিন করে রিমান্ড মঞ্জুর করেন আদালত।

এ ছাড়া এ মামলায় গত ২৩ জুলাই আসামি মো. কামাল হোসেন ও আবুল কালাম আজাদের চারদিনের রিমান্ড মঞ্জুর করা হয়।

আজ রোববার এই দুই আসামিকে রিমান্ড শেষে আদালতে হাজির করা হবে।এরও গত ২২ জুলাই মামলার অপর আসামি জাফর হোসেন স্বীকারোক্তিমূলক জবানবন্দি দেন। জবানবন্দি রেকর্ড শেষে তাকেও কারাগারে পাঠানো হয়।

প্রসঙ্গত, গত ২০ জুলাই সকালে উত্তর বাড্ডা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সামনে ছেলেধরা সন্দেহে গণপিটুনিতে তাসলিমা বেগম রেনু নিহত হন। 

এ ঘটনায় রেনুর বোনের ছেলে নাসির উদ্দিন বাদী হয়ে অজ্ঞাত আসামিদের বিরুদ্ধে রাজধানীর বাড্ডা থানায় হত্যা মামলাটি দায়ের করেন। নিহত রেনুর ১১ বছরের এক ছেলে ও চার বছরের এক মেয়ে রয়েছে।

অমৃতবাজার/এএস