ঢাকা, সোমবার, ২৬ আগস্ট ২০১৯ | ১০ ভাদ্র ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ভয়াবহ ক্যামিকেল দিয়ে বানানো হচ্ছে আখের গুড়


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০২:৫৪ পিএম, ১০ মে ২০১৯, শুক্রবার
ভয়াবহ ক্যামিকেল দিয়ে বানানো হচ্ছে আখের গুড়

রাজবাড়ীতে চক পাউডার, ফিটকিরি, চিনি, বার্নিশ কালার, ময়দা ও রং দিয়ে তৈরি করা হচ্ছে আখের গুড়। এমনি উপকরণে তৈরি ২৫০ মণ ভেজাল গুড় জেলার পাংশা উপজেলার মৈশালা এলাকা থেকে জব্দ করেছে জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর। 

সেইসঙ্গে এর কারিগর তাপস পালকে ৫০ হাজার টাকা জরিমানা করা হয়েছে। একইসঙ্গে  ওই ভেজাল গুড়ের কারখানা সিলগালা করা হয়েছে। 

দেখতে গুড়ের মতো দেখালেও আসলে এগুলো কৃত্রিম রং, চক পাউডার, ফিটকিরি আর চিনির মিশ্রণে তৈরি। 

পবিত্র রমজান মাসে রোজাদারদের গুড়ের নামে এসব অখাদ্যই খাওয়াচ্ছে অসাধু ব্যবসায়ীরা। পবিত্র রমজান মাসে আখের গুড়ের সরবতের চাহিদা বেড়ে যায়। আর এই সুযোগকে কাজে লাগাতে অসাধু ব্যবসায়ীরা প্রশাসনের কিছু  দুর্নীতিবাজ ব্যক্তিকে অর্থ দিয়ে ম্যানেজ করে অহরহ ভেজাল আখের গুড় তৈরি করে খাঁটি আখের গুড় হিসেবে অধিক দামে বিক্রি করছে। আর এতেই রোজাদাররা নানা রোগে ভুগছেন।

শুক্রবার রাজবাড়ী জেলা জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তর ভোক্তা আইনের ৪২ ধারায় ওই ভেজাল গুড় ব্যবসায়ীকে জরিমানা এবং গুড় তৈরির মালামাল ধ্বংস করেন। 

এ সময় জব্দকৃত পাঁচ বস্তা ভালো চিনি ও চার কুলা গুড় স্থানীয় একটি এতিমখানায় বিতরণ করা হয়। 

জেলা জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. শরিফুল ইসলাম এর সত্যতা নিশ্চিত করেন। 

জানা গেছে, গোপন সংবাদের ভিত্তিতে জেলা জাতীয় ভোক্তা অধিকার সংরক্ষণ অধিদপ্তরের সহকারী পরিচালক মো. শরিফুল ইসলামের নেতৃত্বে এই অভিযান পরিচালিত হয়। এ সময় অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন পাংশা থানার ওসি আহসান উল্লাহ, সিভিল সার্জন কার্যালয়ের স্যানিটারি ইন্সপেক্টর ও নিরাপদ খাদ্য পরিদর্শক সূর্য কুমার প্রামাণিক।

অমৃতবাজার/পিকে