ঢাকা, সোমবার, ১৮ নভেম্বর ২০১৯ | ৪ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

শরীয়তপুরের মেয়েকে উত্ত্যক্ত করায় যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৩:৩৪ পিএম, ২২ অক্টোবর ২০১৯, মঙ্গলবার
শরীয়তপুরের মেয়েকে উত্ত্যক্ত করায় যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা

শরীয়তপুরের ডামুড্যা উপজেলায় মেয়েকে জড়িয়ে ধরে উত্ত্যক্ত করায় মো. মামুন বেপারী (২২) নামে এক যুবককে ছুরিকাঘাতে হত্যা করার অভিযোগ উঠেছে।


সোমবার রাত সাড়ে ৮টার দিকে ডামুড্যা উপজেলার পূর্ব ডামুড্যা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের বড়নওগাঁ গ্রামে এ ঘটনা ঘটে।

নিহত মো. মামুন বেপারী ওই গ্রামের জলিল বেপারীর ছেলে।

এ ঘটনায় সাহেব আলী মাল (৩৮) ও তার ভাই বিল্লাল মালকে (১৯) জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

স্থানীয়রা জানান, উপজেলার পূর্ব ডামুড্যা ইউনিয়নের ৭নং ওয়ার্ডের বড়নওগাঁ গ্রামের সাহেব আলী মালের মেয়েকে দীর্ঘদিন ধরে রাস্তাঘাটে কুপ্রস্তাব ও উত্ত্যক্ত করতেন একই গ্রামের জলিল বেপারীর ছেলে মামুন বেপারী।

সোমবার বিকালে মেয়েটি বাড়ির পাশে গেলে মামুন আবার কুপ্রস্তাব ও জড়িয়ে ধরার চেষ্টা করেন।

এ ঘটনা মেয়েটি তার বাবা সাহেব আলীর কাছে বলে। সাহেব আলী মামুনের বাড়িতে গিয়ে এ বিষয়ে প্রতিবাদ করলে দুজনের মধ্যে বাকবিতণ্ডা হয়। একপর্যায়ে সাহেব আলী মামুন বেপারীর পেটে ছুরিকাঘাত করে আহত করে।

মামুন আহতাবস্থায় ঘর থেকে দা এনে সাহেব আলী ও তার ভাই বিল্লাল মালকে কুপিয়ে আহত করে।

পরে মাটিতে লুটিয়ে পড়লে মামুনকে ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে যাওয়া হয়। এ সময় কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত বলে ঘোষণা করেন।

এ ঘটনায় সাহেব আলী ও তার ভাই বিল্লালকে ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্স থেকে জিজ্ঞাসাবাদের জন্য আটক করেছে পুলিশ।

ডামুড্যা উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সের মেডিকেল অফিসার ডা. ফাতেমা মাহজাবিন জানান, শরীরে ক্ষত অবস্থায় রোগী মামুনকে হাসপাতালে নিয়ে আসেন স্বজনরা। পরীক্ষা করে দেখি হাসপাতালে আনার আগেই তার মৃত্যু হয়েছে।

ডামুড্যা থানা পুলিশের ওসি মেহেদী হাসান বলেন, ময়নাতদন্তের জন্য নিহত মামুনের মরদেহ শরীয়তপুর সদর হাসপাতালের মর্গে পাঠানো হয়েছে।

অমৃতবাজার/ কেএসএস