ঢাকা, শনিবার, ২৩ নভেম্বর ২০১৯ | ৮ অগ্রহায়ণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

বোরহানউদ্দিনের ঘটনায় আসামি ৫ হাজার


অমৃতবাজার রিপোর্ট

প্রকাশিত: ০৬:৫৪ পিএম, ২১ অক্টোবর ২০১৯, সোমবার
বোরহানউদ্দিনের ঘটনায় আসামি ৫ হাজার

 

ফেসবুক আইডি হ্যাক করে নবীকে (সা.) কটূক্তির জেরে ভোলার বোরহানউদ্দিনে পুলিশের সঙ্গে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনায় পুলিশের পক্ষ থেকে মামলা হয়েছে। রোববার দিনগত রাতে দায়ের করা এ মামলায় আসামি করা হয়েছে অজ্ঞাতনামা ৫ হাজার জনকে।

বর্তমানে বোরহানউদ্দিনসহ পুরো জেলায় আতঙ্ক বিরাজ করছে। ঘটনাস্থল ওই উপজেলায় বিজিবি মোতায়ন করা হয়েছে। পুনরায় যাতে অনাকাঙ্খিত পরিস্থিতির সৃষ্টি না হয় সেজন্য তৎপর রয়েছে আইন শৃঙ্খলাবাহিনী। এজন্য পার্শ্ববর্তী জেলা থেকে অতিরিক্ত পুলিশ আনা হয়েছে। জেলাজুড়ে নিষিদ্ধ করা হয়েছে যে কোনও সভা সমাবেশ।

ফলে, রোববারের ঘটনায় পূর্বঘোষিত ‘মুসলিম ঐক্য পরিষদের’ ব্যানারে যে সমাবেশের ডাক দেয়া হয়েছিল, তা স্থগিত করা হয়েছে। তবে, ভোলা প্রেসক্লাবে সংবাদ সম্মেলন করবেন বলে গণমাধ্যমকে জানিয়েছেন আয়োজকদের অন্যতম নেতা মাওলানা মিজানুর রহমান।

প্রসঙ্গত, গত শুক্রবার বিকালে বিপ্লব চন্দ্র শুভর নিজের ছবি সংবলিত ফেসবুক আইডি থেকে আল্লাহ ও রাসুল (সা.)–কে গালাগাল ও কুরুচিপূর্ণ মন্তব্য করে কয়েকজন ফেসবুক বন্ধুর কাছে ম্যাসেজ পাঠানো হয়।

পুলিশের ভাষ্যমতে, ওই দিন রাতেই বোরহাউদ্দিন থানায় গিয়ে একটি জিডি করেন বিপ্লব চন্দ্র শুভ। সেখানে তিনি তার ফেসবুক আইডি হ্যাকের কথা জানান।

ইতিমধ্যে তার আইডি থেকে যাদের ম্যাসেজ পাঠানো হয় তারা ম্যাসেজটি স্ক্রিনশট নিয়ে ফেসবুকে দিলে লোকজন প্রতিবাদ জানানো শুরু করে। এ নিয়ে বিভিন্ন মসজিদ থেকে কয়েক দফায় বিক্ষোভ প্রদর্শন হয়। এরই ফলশ্রুতিতে ‘তৌহিদী জনতার’ ব্যানারে গতকাল রোববার প্রতিবাদ সমাবেশের আয়োজন করা হয়। সমাবেশে পুলিশের সঙ্গে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে।

এতে পুলিশের গুলিতে মাদ্রাসা শিক্ষার্থীসহ ৪ জন নিহত ও ১০ পুলিশসহ অন্তত শতাধিক ব্যক্তি আহত হন। তবে পুলিশের পক্ষ থেকে দাবি করা হয়েছে, সংঘর্ষে যে চারজন নিহত হয়েছেন, তাদের মধ্যে দু’জনের মাথা ভোঁতা অস্ত্র দিয়ে থেঁতলানো ছিল।

বোরহানউদ্দিন থানার ওসি গণমাধ্যমকে জানান, হত্যা, পুলিশের ওপর হামলা ও বিশৃঙ্খলার অভিযোগে রোববার রাতে বোরহান উদ্দিন থানার এসআই আজিজুল হক এ মামলা দায়ের করেন। এতে অজ্ঞাতনামা চার থেকে পাঁচ হাজার জনকে আসামি করা হয়েছে।

এদিকে, ভোলা পুলিশ সুপার জানিয়েছেন, ফেসবুকে এ কটূক্তির ঘটনায় হিন্দু বিপ্লব চন্দ্র শুভ, মো. শাকিব ও লিমনসহ তিনজনের বিরুদ্ধে ডিজিটাল নিরাপত্তা আইনে মামলা (নং ১৭) দেয়া হয়। এ মামলায় তাদের ভোলা কোর্টে পাঠানো হয়েছে।

আর জেলা প্রশাসক মোহাম্মাদ মাসুদ আলম ছিদ্দিক জানান, কেউ যেন অনুমতি ছাড়া সভা, সমাবেশ ও মিছিল করতে না পারে সে ব্যাপারে সতর্ক করে দেয়া হয়েছে।

অমৃতবাজার/এএস