ঢাকা, সোমবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৭ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

মানুষ না খেয়ে থাকবেনা, দেশে পর্যাপ্ত খাদ্য মজুদ আছে


নওগাঁ প্রতিনিধি:

প্রকাশিত: ১২:৪৪ পিএম, ০৯ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার | আপডেট: ১২:৪৫ পিএম, ০৯ আগস্ট ২০১৯, শুক্রবার
মানুষ না খেয়ে থাকবেনা, দেশে পর্যাপ্ত খাদ্য মজুদ আছে

 

মানুষ না খেয়ে থাকবে না। আমাদের দেশে পর্যাপ্ত পরিমানে ধান উৎপাদন হয়েছে এবং চালও আছে পর্যাপ্ত পরিমানে। আমরা ইতিমধ্যে ১০লক্ষ মেট্রিকটন চাল রপ্তানীর অর্ডার পেয়েছি। আমরা ১৫লক্ষ মেট্রিকটন চাল রপ্তানী করবো।

এরকম ভাবে আমাদের নওগাঁতে এবারে ৩লক্ষ ৩৩হাজার মেট্রিকটন আম উৎপাদন হয়েছে। এর মধ্যে আমার নির্বাচনি এলাকা (সাপাহার, পোরশা, নিয়ামতপুর) ৩ ভাগের ২ ভাগ আম উৎপাদন হয়েছে। যা সারাদেশের মধ্যে ১ম স্থান অধিকার করেছে।

শুধু আমে নয় সব রকম ফলের গাছ রোপন করতে হবে। আমাদের সব ফলে সমৃদ্ধ হতে হবে। গাছ কাটা যাবেনা। কেউ গাছ কাটলে তাৎক্ষনিক তাকে হাজতে পাঠানোর জন্য প্রশাসনকে তিনি বলেন। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারন অধিদপ্তরের আয়োজনে “পরিকল্পিত ফলচাষ, যোগাবে পুষ্ঠি সম্মত খাবার”শ্লোগানের মধ্য দিয়ে গতকাল বৃহস্পতিবার বিকালে সরাইগাছি কাতিপুর কালিনগর স্কুল মাঠে ৩দিন ব্যাপি ফলদ বৃক্ষ মেলার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় কথাগুলি বলেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার এমপি।

তিনি আরও বলেন, আমরা উন্নয়নের জন্য ৩ টি প্রকল্প হাতে নিয়েছি। শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের বিল্ডিং, রাস্তাঘাট সহ আরও উন্নয়ন হবে। স্থানীয় সরাইগাছিতে বিভিন্ন প্রতিষ্ঠানের প্রশিক্ষন কেন্দ্র হবে বলে তিনি জানান। আগামী ৫বছরে তার নির্বাচনী এলাকার একটি রাস্তাও কাঁচা থাকবেনা বলে তিনি তার বক্তব্যে বলেন।

এসময় তিনি তার দলের নেতা কর্মী ও স্থানীয় প্রশাসনকে সাধারন জনসাধারনকে হয়রানী না করার কথা বলেন। মেলা প্রাঙ্গনে উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাজমুল হাদিম রেজার সভাপতিত্বে ও উপ-সহকারী কৃষি কর্মকর্তা আব্দুল হাইয়ের পরিচালনায় অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন পোরশা  উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান অধ্যক্ষ শাহ মঞ্জুর মোরশেদ চৌধুরী। স্বাগত বক্তব্য রাখেন কৃষি কর্মকর্তা মাহফুজ আলম।

অন্যান্যের মাধ্যে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা পরিষদ ভাইস চেয়ারম্যান কাজিবুল ইসলাম, সহকারী কমিশনার (ভূমি) সোহরাব হোসেন, উপজেলা আওয়ামীলীগের সাধারন সম্পাদক আলহাজ্ব মোফাজ্জল হোসেন, সহসভাপতি ওবাইদুল্লা শেখ, প্রেস ক্লাব সভাপতি হাবিবুর রহমান হাবিব সহ স্থানীয় বিভিন্ন দপ্তরের কর্মকর্তাবৃন্দ।

অমৃতবাজার/বেলাল/এএস