ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ জুলাই ২০১৯ | ১ শ্রাবণ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

নরসিংদীর পলাশে গণ পরিবহনের তীব্র সংকট, চরম ভোগান্তিতে জনগণ


নরসিংদী প্রতিনিধি,

প্রকাশিত: ০৬:৪৭ পিএম, ২৫ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার | আপডেট: ০৭:৫৫ পিএম, ২৫ জুন ২০১৯, মঙ্গলবার
নরসিংদীর পলাশে গণ পরিবহনের তীব্র সংকট, চরম ভোগান্তিতে জনগণ

 

নরসিংদী পলাশ উপজেলা ৪টি উপজেলা ও ১টি পৌরসভা নিয়ে গঠিত হলেও  নাই কোন গণ পরিবহন। নেই কোন লোকাল কিংবা বিরতীহীন এসি বাস সার্ভিস। পলাশের জনগণের যাতায়াত ব্যবস্থা নেওয়ার কেহ নেই।  অনেক বৎসর যাবত যাতায়াত ব্যবস্থার চরম ভোগান্তি হচ্ছে। একসময় পলাশ, ঘোড়াশাল, ডাঙ্গা, চরসিংন্দুর হইতে ব্যাপক পরিমানে বাস চলা চল করত ।

বর্তমানে সবকটি  বাস্ট্যান্ড হতে বাস চলাচল বন্ধ  দীর্ঘবৎসর যাবত। কিছুদিন পূর্বে ডাঙ্গাকে শিল্প জোন হিসেবে ঘোষণা করা হলেও গণ পরিবহনের কোন ব্যবস্থা করা হয়নি। নরসিংদী জেলার পলাশ উপজেলা ও ঘোড়াশাল পৌরসভাসহ বাংলাদেশের  নামকরা শিল্প এলাকা , এখানে দেশের বৃহত্তম ঘোড়াশাল বিদুৎ কেন্দ্র, দুটি সারকারখানা , কয়েকটি ডাইং ও টেক্সটাইল মিল, ওমেরা এলপি গ্যাস উৎপাদন ফ্যাক্টরী, প্রাণ- আর.এফ.এল গ্রুফ অব ইন্ডাস্ট্রিয়াল পার্ক , দেশ বন্ধু সুগারমিল ও পলিমার, সিমেন্ট ফ্যাক্টরী, পেপার মিল , ব্যাটারী  উৎপাদন কারখানা, বড় বড় কয়েকটি জুট মিলসহ অসংখ্য ক্ষুদ্র মাঝারী ও বড় বড় শিল্প-কারখানা থাকায় লক্ষ লক্ষ শ্রমিক কাজ করে। লক্ষ লক্ষ শ্রমিক ও জনগণের বসবাস পলাশ উপজেলায়। 

বাংলাদেশের সবজেলার সাধারণ মানুষের কর্মসংস্থান ও বসবাস থাকা সত্ত্বেও নেই গণ পরিবহনের সুয়োগ।  একমাত্র সিএনজি অটো রিক্সাই যাতায়াতের ভরসা। এই সুযোগে সিএনজি অটো রিক্সাওয়ালারা ভাড়া তিনগুণ বেশি আদায় করছে । পলাশ বাস্ট্যান্ড ও ওয়াপদা গেইট হইতে সিনজি ভাড়া ৪০ টাকা আদায় করিতেছে । গণ পরিবহন থাকিলে ভাড়ার মূল্য হতো ২০ টাকা। 

যাত্রীরা চরশ দুর্ভোগে পড়ে ঢাকা গাজীপুর, সিলেটসহ দেশের বিভিন্ন স্থানে আসা যাওয়া  করতে হলে রাত্রে ও দিনে বাইপাস, ভেলানগর, পাঁচদোনা গিয়ে গন্তব্য স্থানে বাসে করে চরম ভোগান্তির সমুক্ষীন হয়। সাবেক  বাস পরিবহনের শ্রমিক নেতাদের সাথে কথা বললে পলাশ উপজেলার  জনপ্রতিনিধিরা এ ব্যাপারে কোন কর্নপাত করেননা। যত ভোগান্তি জনসাধারণের এখানে সরকারি বেসরকারি লোকাল বিরতিহীন বাস সার্ভিস এর চাহিদা রয়েছে। 

পলাশ ঘোড়াশাল ডাঙ্গা চরসিংন্দুর হইতে ঢাকা গাজীপুর, নরসিংদী পাঁচদোনা মাধবধী বাস চলাচলের ব্যবস্থা করা অতীব জরুরী।  সরকারী বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের উদ্যোগ গ্রহন করা উচিত। নতুবা জনগণ ভোগান্তির মধ্যে থাকিবে।  এ ব্যাপারে  বিভিন্ন মেইল ফ্যাক্টরীর শ্রমিক ও জনগণের সাথে কথা বললে ক্ষোভে ফেটে পড়ে এবং দ্রুত গণ পরিবহনের চালু করার দাবী জানান।

অমৃতবাজার/জাহিদ/এএস