ঢাকা, মঙ্গলবার, ২৫ জুন ২০১৯ | ১১ আষাঢ় ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ধর্ষণের শিকার ছাত্রীকে আর্থিক সহযোগিতায় বিএনপি নেত্রীরা


মাদারীপুর প্রতিনিধি,

প্রকাশিত: ১১:৩০ এএম, ২৬ মে ২০১৯, রোববার
ধর্ষণের শিকার ছাত্রীকে আর্থিক সহযোগিতায় বিএনপি নেত্রীরা

 

মাদারীপুরে পুলিশের নায়েক মোক্তার হোসেন (৫০) কর্তৃক যৌননির্যাতিত স্কুল ছাত্রীকে শনিবার দুপুর ২টার দিকে ঢাকা থেকে সদর হাসপাতালে দেখতে গেলেন কেন্দ্রীয় বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান বেগম সেলিনা রহমান ও মহিলাদলের সাধারন সম্পাদক সুলতানা আহম্মেদ। এ সময় নির্যাতিত স্কুল ছাত্রীর নানুর হাতে আর্থিক অনুদান তুলে দেন।

জানা গেছে, মাদারীপুর পুলিশ লাইনের নায়েক মোক্তার হোসেন শহরের টিবি ক্লিনিক সড়কে দীর্ঘ দিন থেকে ভাড়া থাকেন। কয়েক দিন পূর্বে মোক্তারের গর্ভবতী স্ত্রী গ্রামের বাড়ি চলে যায়। এই সুযোগ গত ১৯মে রোববার রাতে শহরের টিভি ক্লিনিক সড়কের প্রতিবেশী এক স্কুল ছাত্রীকে ঘরে ডেকে নেয় পুলিশ সদস্য। এসময় দরজা বন্ধ করে স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণ করে। বিষয়টি টের পেয়ে স্থানীয়রা বাইরে থেকে দরজা বন্ধ করে দেয়। পরে পুলিশ সদস্য মোক্তার হোসেন স্কুল ছাত্রীকে পেছনের ভেন্টিলেটর দিয়ে ফেলে দেয়। এতে করে স্কুল ছাত্রীর গুরুতর আহত হয়। পরে স্থানীয়রা উদ্ধার করে মাদারীপুর সদর হাসপাতালে ভর্তি করে। এ সংবাদটি বিভিন্ন পত্রিকায় প্রকাশিত হলে ঢাকা থেকে কেন্দ্রীয় বিএনপির নেত্রীরা স্কুল ছাত্রীকে হাসপাতালে দেখতে আসে।

আর্থিক অনুদান সহ নির্যাতিত স্কুল ছাত্রী ও পরিবারের  খোঁজ- খবর নিলেন বিএনপির নেত্রীরা। এসময় নির্যাতিত স্কুল ছাত্রীর নানুর হাতে আর্থিক অনুদান তুলে দেন বিএনপির ভাইস-চেয়ারম্যান বেগম সেলিনা রহমান ও মহিলাদলের সাধারন সম্পাদক সুলতানা আহম্মেদ। এ সময় অন্যান্যের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন মহিলাদলের সহ-সভাপতি জেবা খান, সাংগঠনিক সসম্পাদক পারভীন আক্তার, সহ-সম্পাদক সারমিন ইসলাম ডেইজী । এ সময় মাদারীপুর জেলা বিএনপির সাধারন সম্পাদক জাহান্দার আলী জাহান, সিনিয়র যুগ্ম-সাধারন সম্পাদক নজরুল ইসলাম লিটু, সাংগঠনিক সম্পাদক এ্যাড. জামিনুর হোসেন মিঠু, সদর উপজেলা বিএনপির সভাপতি এ্যাড. জাফর আলী মিয়া, পৌর বিএনপির সভাপতি এ্যাড. শরীফ সাইফুল কবীর প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

অমৃতবাজার/শফিক/এএস