ঢাকা, রোববার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০১৯ | ৭ আশ্বিন ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

গোসল করতে গিয়ে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের শিকার, ধর্ষক আটক


মাদারীপুর প্রতিনিধি,

প্রকাশিত: ০৮:৪০ পিএম, ০৯ এপ্রিল ২০১৯, মঙ্গলবার
গোসল করতে গিয়ে স্কুল ছাত্রী ধর্ষণের শিকার, ধর্ষক আটক

 

মাদারীপুরের শিবচরে ১ম শ্রেনীর এক স্কুল ছাত্রীকে ধর্ষণের অভিযোগ পাওয়া গেছে।

শিশুটির বাসারই আরেক বখাটের ভাড়াটিয়ার বিরুদ্ধে এই অভিযোগ আনা হয়েছে। পুলিশ এ ঘটনায় ঘটনাস্থল পরিদর্শন শেষে ধর্ষককে আটক করেছে।

পুলিশ ও ভিকটিমের পরিবার জানায়, উপজেলার উমেদপুর ইউনিয়নের চরকমলাপুর গ্রামের বাসিন্দা ফেরি করে আচার বিক্রেতা তার স্ত্রী, দুই মেয়ে ও দুই ছেলেকে নিয়ে একই উপজেলার বাঁশকান্দি ইউনিয়নের শেখপুর বাজার সংলগ্ন একটি বাড়িতে ভাড়া থাকে।

সোমবার দুপুরে আচার বিক্রেতার মেঝ মেয়ে ৫নং ছলেনামা সরকারী প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেনীর ছাত্রী বাসার পার্শবর্তী একটি পুকুরে গোসল করতে যায়। এসময় পুকুর পাড়ে একই বাড়ির আরেক ভাড়াটিয়া রুবেল বিশ্বাসের ছোট ভাই নাসির বিশ্বাস (১৪) বড়শি দিয়ে মাছ ধরছিল।

স্কুল ছাত্রী মেয়েটি গোসল করতে গেলে আশপাশে কেউ না থাকার সুযোগে নাসির রশি দিয়ে মেয়েটির হাত বেঁধে মেরে ফেলার ভয় দেখিয়ে ধর্ষণ করে পালিয়ে যায়।

পরে মেয়েটি চেষ্টা করে হাতের বাঁধন খুলে কাঁদতে কাঁদতে বাসায় আসে। এসময় মেয়েটির রক্তক্ষরন দেখে তার মা কারন  জিজ্ঞেস করলে মেয়েটি ঘটনা খুলে বলে।

পরে মেয়েটিকে শিবচর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে আনলে কর্তব্যরত চিকিৎসক প্রাথমিক চিকিৎসা শেষে শিবচর থানায় খবর দেয়।

খবর পেয়ে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে অভিযুক্ত ধর্ষক নাসিরকে আটক করে ও মেয়েটিকে উন্নত চিকিৎসার জন্য মাদারীপুর সদর হাসপাতালে প্রেরণ করে। আটক নাসির বরিশাল জেলার উজিরপুর উপজেলার হারুন বিশ্বাসের ছেলে। সে তার বড় ভাই শেখপুর এলাকার অটো চালক রুবেলের ভাড়া বাসায় থেকে স্থানীয় একটি হোটেলে শ্রমিকের কাজ করে। এ ব্যাপারে শিবচর থানায় মামলা হয়েছে।

শিবচর থানার পরিদর্শক (তদন্ত) আনোয়ার হোসেন বলেন, স্কুল ছাত্রী মেয়েটিকে একা পেয়ে নাসির ধর্ষণ করেছে বলে অভিযোগের প্রেক্ষিতে ঘটনাস্থল পরিদর্শন করেছি। মেয়েটির সাথে কথা বলে ঘটনার বিবরণ শুনে নাসিরকে আটক করা হয়েছে। এ ব্যাপারে মামলা হয়েছে।

অমৃতবাজার/এস.স্বপন/এএস