ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৩ মে ২০১৯ | ৯ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের ১৪ চিকিৎসককে শোকজ


ঝিনাইদহ প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ১২:০৭ এএম, ১৫ মার্চ ২০১৯, শুক্রবার | আপডেট: ১২:১৩ এএম, ১৫ মার্চ ২০১৯, শুক্রবার
ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের ১৪ চিকিৎসককে শোকজ

সঠিক সময়ে কর্মস্থলে উপস্থিত না থাকাসহ নানা কারণে ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের ১৪ জন চিকিৎসককে কারণ দর্শানোর নোটিশ (শোকজ) দেওয়ার পাশাপাশি তিন কার্য দিবসের মধ্যে জবাব দিতে বলা হয়েছে।

বৃহস্পতিবার দুপুরে জেলা সিভিল সার্জন ও হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত তত্তাবধায়ক রাশেদা সুলতানা এ আদেশ দেন।

শোকজপ্রাপ্তরা হলেন- সিনিয়র কনসালটেন্ট আ স ম আব্দুর রহমান (অজ্ঞান), নাক কান গলা বিশেষজ্ঞ রাশেদ আলী মোড়ল, হৃদরোগ বিশেষজ্ঞ গোলাম রব্বানী, হাড় জোড় বিশেষজ্ঞ গাজী আহসান উল মুনীর, সার্জারি বিশেষজ্ঞ তারিখ আক্তার খান, গাইনি বিশেষজ্ঞ চলন্তিকা রানী, দন্ত বিশেষজ্ঞ ওমর খৈয়াম, হাড় জোড় বিশেষজ্ঞ শাহ আলম প্রিন্স, মেডিকেল অফিসার শাহিন ঢালী, ফাল্গুনী রানী, ইমামুল হক ও জুনিয়র শিশু বিশেষজ্ঞ হুমায়ন শাহেদসহ ১৪ জন।

এর মধ্যে হুমায়ন শাহেদ কেবল বিনা অনুমতিতে কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকার কারণে শোকজ চিঠি পেয়েছেন।

রোগীদের অভিযোগ ও হাসপাতাল সুত্রে জানা যায়, প্রতিদিন সকাল ৮টা থেকে দুপুর আড়াইটা পর্যন্ত অফিস সময় হলেও ঝিনাইদহ সদর হাসপাতালের বেশির ভাগ চিকিৎসক যথা সময়ে কর্মস্থলে উপস্থিত হন না। অনেক সময় দুপুর ১টা বাজার সাথে সাথেই অনেক চিকিৎসকরা প্রাইভেট প্রাকটিস করার জন্য ক্লিনিকে নতুবা বাড়ির পথ ধরেন।

এছাড়া হাসপাতালে বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকদের রাতের বেলা রাউন্ড দেবার বিধান থাকলেও মেডিসিন, সার্জারি ও হৃদরোগের চিকিৎসকরা রাউন্ড দেন না। এমনকি দুইজন বিশেষজ্ঞ সার্জন থাকার পরও রোগীদের হরহামেশাই অন্যত্র রেফার্ড করা হয়।

বিভিন্ন সময় চিকিৎসকরা সদর হাসপাতালে আসা রোগীদের ক্লিনিকে যেতে বাধ্য করেন বলে অভিযোগ করেন পিত্তথলিতে অপারেশন করিয়ে চিকিৎসা নিতে আসা শৈলকুপা উপজেলার ভাটই গ্রামের হাসিনা বেগম।

ঝিনাইদহ সিভিল সার্জন ও হাসপাতালের ভারপ্রাপ্ত তত্ত্বাবধায়ক রাশেদা সুলতানা বিষয়টি নিশ্চিত করে জানান, যথা সময়ে কর্মস্থলে উপস্থিত না হওয়া ও নির্ধারিত সময়ের আগেই হাসপাতাল ত্যাগ করার কারণে ১৪ জন চিকিৎসকদের বিরুদ্ধে এ নোটিশ জারী করা হয়।

অমৃতবাজার/শাহজাহান/আরবি