ঢাকা, শুক্রবার, ২৬ এপ্রিল ২০১৯ | ১৩ বৈশাখ ১৪২৬ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামে ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেটের ভ্রাম্যমাণ আদালত, আটক ২


চট্টগ্রাম প্রতিনিধি,

প্রকাশিত: ১০:৩০ পিএম, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, বৃহস্পতিবার | আপডেট: ১০:৩২ পিএম, ২১ ফেব্রুয়ারি ২০১৯, বৃহস্পতিবার
চট্টগ্রামে ভুয়া ম্যাজিস্ট্রেটের ভ্রাম্যমাণ আদালত, আটক ২

 

ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট পরিচয়ে একের পর এক চাঁদাবাজি-প্রতারণা করেই যাচ্ছেন কথিত আলোচিত কণ্ঠ পত্রিকার সম্পাদক মিজান উল্লাহ সমরকন্দি ও বেসরকারি উন্নয়ন সংস্থা স্বীকৃতি’র নির্বাহী পরিচালক পারভীন আকতার। বুধবার (২০ ফেব্রুয়ারি) রাতেও নগরীর আকবর শাহ থানার কর্ণেলহাট এলাকায় একটি প্রতিষ্ঠানে কথিত অভিযান চালাতে গিয়েছেন তারা।

এ সময় ফারদিন আহমেদ (২৪) নামের এক সহযোগিসহ মিজান উল্লাহ সমরকন্দি (৩৮) ধরা পড়লেও পালিয়ে গেছেন পারভীন আকতার (৩৫)। 

পুলিশ জানায়, কর্ণেলহাট এলাকায় একটি হারবাল প্রতিষ্ঠানে অভিযান চালাতে গিয়েছিল তারা। এ সময় পারভীন নিচে গাড়িতে বসা ছিলেন। মিজান ও ফারদিন প্রতিষ্ঠানে ঢুকে অভিযানের কথা বলে ২০ হাজার টাকা দাবি করেন। তারা ৫ হাজার টাকা দেন।

আরো টাকার জন্য চাপ দিলে ওই প্রতিষ্ঠানের একজন কর্মকর্তার সাথে তাদের কথা কাটাকাটি হয়। বিষয়টি দেখে আশপাশের মানুষজন জড়ো হয়ে মিজান ও ফারদিনকে ধরে ফেলে। তখন গাড়ি দিয়ে পালিয়ে যায় পারভীন।

আটক মিজান উল্লাহ সমরকন্দির বাড়ি চট্টগ্রামের সাতকানিয়া উপজেলার পুরানগড় এলাকায়। ফারদিনের বাড়ি কিশোরগঞ্জের বাজিতপুর এলাকায়। 

আকবরশাহ থানার ওসি জসিম উদ্দিন বলেন, আটককৃতরা জানিয়েছে এর আগেও চট্টগ্রামের বিভিন্ন স্থানে প্রতারণা করতে গিয়ে তারা ধরা পড়েছেন। ছাড়া পেয়ে ফের প্রতারণায় জড়িয়ে পড়েন তারা। 

এর আগে গত বছরের ৬ মে রাঙ্গুনিয়ার রাজানগর ইউনিয়নের রাণীরহাট বাজারে প্রাইভেট কার নিয়ে যান মিজান, পারভীন ও তাদের এক সহযোগি। তারা নিজেদের ভ্রাম্যমাণ আদালতের ম্যাজিস্ট্রেট ও সাংবাদিক পরিচয় দিয়ে চাঁদাবাজি করতে গিয়ে স্থানীয় ব্যবসায়ীদের হাতে আটক হন। পরে স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যানের হস্তক্ষেপে মুচলেকায় ছাড়া পান তারা।

অমৃতবাজার/এএস