ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৬ অক্টোবর ২০১৮ | ১ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

চট্টগ্রামে দুই তরুণীকে গণধর্ষণ: ছয় যুবকের স্বীকারোক্তি


চট্টগ্রাম প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০১:৩৬ পিএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার | আপডেট: ০১:৪০ পিএম, ২৫ সেপ্টেম্বর ২০১৮, মঙ্গলবার
চট্টগ্রামে দুই তরুণীকে গণধর্ষণ: ছয় যুবকের স্বীকারোক্তি

চট্টগ্রাম নগরীর নিউ মার্কেট মোড়ের জলসা মার্কেটে চাকুরি খুঁজতে যাওয়া দুই তরুণীকে গণধর্ষণের ঘটনায় গ্রেফতার ছয় যুবক দায় স্বীকার করে আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন।

চট্টগ্রাম অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম মহিউদ্দিন মুরাদের আদালত আব্দুল আউয়াল ওরফে ডালিমের (৩০) জবানবন্দি রেকর্ড করেন। মহানগর হাকিম আবু সালেম মোহাম্মদ নোমানের আদালত রেকর্ড করেছেন ফারুকের (২৭) জবানবন্দি। অভিযুক্ত কবির (২৭) ও জাহাঙ্গীর আলমের (২৪) জবানবন্দি রেকর্ড করেছেন মহানগর হাকিম শফি উদ্দিনের আদালত। মহানগর হাকিম আল ইমরান খানের আদালতে জবানবন্দি দিয়েছেন বাবলু (২৮) ও সেলিম (৩৫)। তবে এ ঘটনায় এনাম (২৭) ও রুবেল (২৫) নামের দুইজন পলাতক আছেন।

কোতোয়ালী থানার পরিদর্শক (তদন্ত) মো. কামরুজ্জামান বলেন, গ্রেফতার হওয়ার ছয়জনই গণধর্ষণের ঘটনায় নিজেদের দায় স্বীকার করেছেন আদালতে দেয়া জবানবন্দিতে। এরপর আদালতের আদেশে তাদেরকে কারাগারে পাঠিয়ে দেওয়া হয়।

গ্রেফতারকৃতরা আদালতে জবানবন্দিতে জানিয়েছেন, ১৭ বছরের এক তরুণী এক সময় জলসা মার্কেটে চাকরি করতো। ওই মার্কেটের ৫ম তলার জয়ন্তী বোরকা হাউসের মালিক রাশেদ জানায়, তার দোকানে একজন কর্মচারী লাগবে। সে হিসেবে ওই তরুণী ১৬ বছর বয়সী তার এক বান্ধবীকে নিয়ে গত রোববার দুপুর ২টার দিকে সেখানে যায়।

কথা বলে চলে আসার সময় রাশেদের দোকানের এক মেয়ের মোবাইল হারিয়ে গেছে বলে ডালিম ও সেলিম নামের দুইজন তাদেরকে আটকিয়ে জিজ্ঞাসাবাদ করে। সন্ধ্যা ৬টার দিকে প্রথমে রাশেদের রুমে বসিয়ে মোবাইল চুরি করেছে কিনা জানতে চাওয়া হয়। এরপর সেলিমের দোকানে নিয়ে যাওয়া হয়। সেখানে অভিযুক্ত আটজনই উপস্থিত ছিল।

এরপর সন্ধ্যা সাড়ে ৬টার দিকে সালিশের কথা বলে দুই কিশোরীকে মার্কেটের ৯ম তলার ছাদে নিয়ে যায় তারা। এরপর আটজনই পালাক্রমে দুই কিশোরীকে জোরপূর্বক ধর্ষণ করে।

কোতোয়ালী থানার ওসি মোহাম্মদ মহসীন বলেন, গ্রেফতারকৃতরা আদালতে অভিযোগ স্বীকার করেছে। বাকি দুইজনকে গ্রেফতারের চেষ্টা চলছে।

অমৃতবাজার/দিদারুল/সুজন