ঢাকা, রোববার, ২১ অক্টোবর ২০১৮ | ৬ কার্তিক ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

যশোরেও দু’দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব শুরু


যশোর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৯:২০ পিএম, ২০ জুলাই ২০১৮, শুক্রবার
যশোরেও দু’দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব শুরু

‘সৃজনে উন্নয়নে বাংলাদেশ’ প্রতিপাদ্যে সারা দেশের সাথে একযোগে যশোরেও শুরু হয়েছে দু’দিনব্যাপী সাংস্কৃতিক উৎসব। দেশব্যাপী সাংস্কৃতিক কর্মকান্ডে আরো বিকশিত এবং কিশোর-তরুণ সমাজসহ সর্বস্তরের জনগণকে বাংলাদেশের নিজস্ব সংস্কৃতির প্রতি আকৃষ্ট করতে শুক্রবার বিকেলে যশোর টাউন হল ময়দানে শতাব্দী বটমূলে রওশন আলী মঞ্চে উৎসব শুরু হয়। সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয়ের আয়োজনে ও জেলা প্রশাসন, জেলা শিল্পকলা একাডেমি ও জেলা তথ্য অফিসের সহযোগিতায় এ উৎসবের প্রথম দিনে যশোরের সাংস্কৃতিক সংগঠনগুলোর শিল্পীরা আবৃত্তি, সংগীত ও নৃত্য পরিবেশন করে।

অনুষ্ঠানে বঙ্গবন্ধুকে নিবেদিত কবিতা পাঠ, দেশাত্মবোধক, লোকসংগীতসহ স্থানীয় সংস্কৃতিকে প্রতিনিধিত্বকারী বিষয়গুলোকে গুরুত্ব দিয়ে অনুষ্ঠানমালা সাজানো হয়।

সাংস্কৃতিক অনুষ্ঠানের মাঝে আলোচনাসভায় প্রধান অতিথি ছিলেন যশোর জেলা পরিষদের চেয়ারম্যান সাইফুজ্জামান পিকুল। সভাপতিত্ব করেন যশোরের জেলা প্রশাসক মো. আব্দুল আওয়াল। বিশেষ অতিথি ছিলেন প্রেসক্লাব যশোরের সভাপতি জাহিদ হাসান টুকুন, সম্মিলিত সাংস্কৃতিক জোটের সভাপতি ডিএম শাহিদুজ্জামান ও জেলা শিল্পকলা একাডেমির সাধারণ সম্পাদক মাহমুদ হাসান বুলু।

আলোচকবৃন্দ বলেন, দেশের তরুণ সমাজসহ সর্বস্তরের মানুষের মধ্যে দেশের নিজস্ব সংস্কৃতির জাগরণ সৃষ্টির লক্ষ্যে সংস্কৃতি বিষয়ক মন্ত্রণালয় নিরন্তর প্রচেষ্টা চালিয়ে যাচ্ছে। এরই ধারাবাহিকতায় দুই দিনব্যাপী ‘সাংস্কৃতিক উৎসব’ আয়োজন করা হচ্ছে। সরকারকে সাংস্কৃতিক বান্ধব উল্লেখ করে আগামী প্রজন্মের মধ্যে বাঙালী সংস্কৃতি লালনে বিশেষ জোর দিয়ে বক্তারা বলেন, তরুণরাই আগামীতে দেশের মূল চালিকাশক্তি। তরুণদের সংস্কৃতি চর্চায় বেশি মনোযোগী করতে হবে। অসাম্প্রদায়িক ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনাসমৃদ্ধ বাংলাদেশ গড়তে সংস্কৃতিচর্চার বিকল্প নেই। প্রতিটি স্কুল কলেজে শিক্ষার্থীদের সাংস্কৃতিক শিক্ষার ব্যবস্থা করতে হবে। শিক্ষা মন্ত্রণালয় বেশ কিছু বিদ্যালয়ে বাদ্যযন্ত্র দেয়ার মাধ্যমে যার প্রক্রিয়া ইতোমধ্যে শুরু করেছে।

উল্লেখ্য, উৎসব উপলক্ষে সাংস্কৃতিক মন্ত্রণালয়ের পৃষ্ঠপোষণকৃত বিদ্যালয়গুলোকে নিয়ে সকালে জেলা শিল্পকলা একাডেমিতে বিভিন্ন বিষয়ভিত্তিক সাংস্কৃতিক প্রতিযোগিতার আয়োজন করা হয়।

অমৃতবাজার/প্রণব/মিঠু