ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ২৪ মে ২০১৮ | ১০ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৫ বঙ্গাব্দ

লোকসংস্কৃতি উৎসবের সমাপনী দিনেও মরমী সুরে মাতোয়ারা যশোর


যশোর প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৯:৩৪ পিএম, ২১ এপ্রিল ২০১৮, শনিবার
লোকসংস্কৃতি উৎসবের সমাপনী দিনেও মরমী সুরে মাতোয়ারা যশোর

খ্যাতিমান শিল্পীরা তাদের মনোমুগ্ধকর পরিবেশনার মধ্য দিয়ে যশোরে অনুষ্ঠিত দু’দিনব্যাপী লোকসংস্কৃতি উৎসব সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে সম্পন্ন হয়েছে। যশোরের সংগীতপ্রেমীদের উচ্ছাস আর আনন্দের বন্যায় ভাসিয়ে শনিবার সমাপ্ত হয় এ উৎসব।

এদিন দেশবরেণ্য বাউল শিল্পী দিদার শাহ, সুজাতা পারভীন, শাহাবুল, ভগীরথ মালোসহ তাদের ব্যতিক্রমী উপস্থাপনা ও স্বকীয় ঢঙের গান উপস্থিত সকলের মন ভরিয়ে দেয়। এছাড়া ঢাকার গানকবির দল তাদের নান্দনিক উপস্থাপনায় উপস্থিত সংগীতপ্রেমীদের মাতিয়ে দেন।

‘ফিরে চল মাটির টানে’ শ্লোগানকে সামনে রেখে উদীচী যশোরের আয়োজনে স্থানীয় ঐতিহাসিক টাউন হল ময়দানের রওশন আলী মঞ্চের শতাব্দী বটমূলে শুক্রবার বিকেলে এ উৎসব শুরু হয়।

সমাপনী দিনের শুরুতে বিকেল ৫টা ৩১ মিনিটে প্রথম মত এদিনও সমবেতভাবে ‘আমার সোনার বাংলা আমি তোমায় ভালবাসি’ জাতীয় সংগীত ও ‘আরশির সামনে একা একা দাঁড়িয়ে যদি ভাবি কোটি জনতার মুখ দেখব, হয়না হয়না হয়না, কে বলেছে হয়না, এসো এ মঞ্চে উদীচী এমনই এক আয়না’ উদীচীর সংগঠন সংগীত পরিবেশিত হয়।

সন্ধ্যার পর আলোচনা সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন যশোর- ৫ মণিরামপুর আসনের সংসদ সদস্য স্বপন ভট্টাচার্য্য। আলোচক ছিলেন উদীচী যশোরের উপদেষ্টা অ্যাডভোকেট একেএম মঞ্জুরুল হক, একরাম উদ দ্দৌল্লা ও অধ্যাপক সন্তোষ হালদার। সভাপতিত্ব করেন উদীচী যশোরের সভাপতি ডিএম শাহিদুজ্জামান। উৎসব ঘোষণাপত্র পাঠ করেন উদীচী যশোরের আলমগীর কবির আলম। স্বাগত বক্তব্য দেন উদীচী যশোরের সাধারণ সম্পাদক সাজ্জাদুর রহমান খান বিপ্লব।

বক্তারা বলেন, বাঙালির সমৃদ্ধ লোকসংস্কৃতি বিশ্বব্যাপী সমাদৃত। যে সংস্কৃতি অসাম্প্রদায়িক চেতনায় উদ্বুদ্ধ হতে অনুপ্রেরণা জুগিয়ে যাচ্ছে। এ সমৃদ্ধ ঐতিহ্যের ধারক-বাহক হিসেবে আমরা গর্বিত।

আলোচকবৃন্দ আরো বলেন, ঐতিহ্য অনুসন্ধানে বাংলার মানুষের হাসি-কান্না, আনন্দ- বেদনার সকল অনুভূতির মূর্ত প্রকাশ ঘটেছে তার লোক- ঐতিহ্য আর লোকসংস্কৃতির মাঝে। তাই আমাদের সংস্কৃতি আমাদের ধমনীতে আরো ব্যাপ্ত করতে ফিরে যাই ‘মাটির টানে’ আপন শেকড়ে, আপন আলয় খুঁজে ফিরি আপন সত্ত্বাকে। আলোচকবৃন্দ এমন উৎসব আয়োজন করায় উদীচী যশোরকে ধন্যবাদ জানান।

আলোচনাসভার আগে স্থানীয় লোকশিল্পী আঁচল, সামসুন্নাহার, রীপা, সালভী আফরোজ জয়ী, পপি, নীতু শীল, স্বর্ণালী, মকবুল, তাপস বিশ্বাসসহ বিভিন্ন শিল্পী একক সংগীত পরিবেশন করেন।

সুষ্ঠু ও সুন্দরভাবে এ উৎসব সমাপ্তি হওয়ায় লোকসংস্কৃতি উৎসব উদযাপন পর্ষদ-১৪২৫ এর আহবায়ক শেখ মারুফ হাসান ও সদস্য সচিব শেখ মাসুদ পারভেজ সকলের প্রতি কৃতজ্ঞতা জানিয়ে আগামীতে আরও বৃহৎ কলেবরে এ উৎসব আয়োজনের প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।

অমৃতবাজার/প্রণব/শাওন