ঢাকা, বৃহস্পতিবার, ১৪ ডিসেম্বর ২০১৭ | ৩০ অগ্রহায়ণ ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

দুবাই প্রবাসীর শিশু সন্তানসহ স্ত্রী গত চার দিন ধরে নিখোঁজ


গোপালগঞ্জ সংবাদদাতা

প্রকাশিত: ০৬:৩৫ পিএম, ০৬ ডিসেম্বর ২০১৭, বুধবার
দুবাই প্রবাসীর শিশু সন্তানসহ স্ত্রী গত চার দিন ধরে নিখোঁজ

গোপালগঞ্জের মুকসুদপুর থেকে ফরিদপুর যাবার পথে দুবাই প্রবাসীর শিশু সন্তানসহ তার স্ত্রী গত চার দিন ধরে নিখোঁজ রয়েছে। গত রোববার(৩রা ডিসেম্বর) দুপুর সাড়ে ১২ টার দিকে ফরিদপুর যাওয়ার পথে তারা নিখোঁজ হন।

নিখোঁজরা হলেন-মুকসুদপুর উপজেলার গোপীনাথপুর গ্রামের দুবাই প্রবাসী আমিনুল ইসলামের স্ত্রী শিউলি সুলতানা(৩৪) ও তার ২ বছরের শিশু পূত্র আরাফাদ মোল্যা। এব্যাপারে মুকসুদপুর থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করা হয়েছে।

সাধারন ডায়রী সূত্রে জানাগেছে, গত রোববার(৩রা ডিসেম্বর) দুপর সাড়ে ১২ টার দিকে মুকসুদপুর থেকে ফরিদপুর যাওয়ার উদ্দেশ্যে বাড়ী থেকে বের হন। এরপর থেকে তারা আর বাড়ীতে ফিরে না আসায় আত্মীয়-স্বজনদের বাড়িতে তাদের খোঁজ করা হয়। তারপরেও তাদের আর কোন খোঁজ-খবর পাওয়া পায়নি।

নিখোঁজ হওয়া গৃহবধূর স্বামী দুবাই প্রবাসী আমিনুল ইসলাম মোবাইল ফোনে জানান, আমার শিশু পুত্র আরাফাদ মোল্যা অসুস্থ হয়ে পড়লে তাকে ডাক্তার দেখানোর জন্য ফরিদপুর যাবার জন্য বাসা থেকে বের হন। এরপর মোবাইল ফোনের মাধ্যমে জানায় বাস না পাওয়ায় একটি মাইক্রেবাসে করে ফরিদপুর যাচ্ছেন। এর কিছু সময় পর আমার স্ত্রী ফোন করে আবারো জানান, তার কাছে সোনার গহনা রয়েছে। এসময় আমি তাকে সাবধানে রাখতে বলি। আসতে দেরি হওয়ায় দেড়ঘন্টা পর স্ত্রীর মোবাইলে ফোন করলে বন্ধ পাই। এরপর স্ত্রী আর সন্তানের কোন খোঁজ পাইনি। বিভিন্ন স্থানে খোঁজ করেও তাদের কোন সন্ধান পাওয়া যায় নি।

নিখোঁজ হওয়া গৃহবধূর ভাই সাংবাদিক হুসাইন আহমদ জানান, মুকসুদপুর কলেজ মোড় বাসষ্ট্যান্ড থেকে ওই মাইক্রোবাসে ওঠে আমার বোন ও ভাগ্নে। কিন্তু, আজ চার দিন পার হলেও তাদের কোন খোঁজ পাওয়া যায় নি। এব্যাপারে আমার দুলাভাই বাদী হয়ে মুকসুদপুর থানায় একটি সাধারন ডায়েরী করেছেন।

মুকসুদপুর থানার অফিসার ইনচার্জ (ওসি) আজিজুর রহমান জানান, ওই গৃহবধূ ও তার শিশু পূত্র ফরিদপুরের সালতা থেকে নিখোঁজ হয়েছেন। আমরা তাদেরকে খুঁজে বের করার জন্য অভিযান অব্যাহত রেখেছি।

অমৃতবাজার/রাজীব/মিঠু

Loading...