ঢাকা, সোমবার, ২৩ অক্টোবর ২০১৭ | ৭ কার্তিক ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

মসজিদের জায়গা দখলের প্রতিবাদে মুসল্লিদের মানববন্ধন


বাগেরহাট প্রতিনিধি

প্রকাশিত: ০৭:৫০ পিএম, ১২ অক্টোবর ২০১৭, বৃহস্পতিবার
মসজিদের জায়গা দখলের প্রতিবাদে মুসল্লিদের মানববন্ধন

বাগেরহাটের চুলকাঠী বাজারে জামে মসজিদের জায়গা দখলের অভিযোগ উঠেছে। এক পক্ষ মসজিদের জায়গা ঘিরে রেখেছে। পাল্টাপাল্টি অভিযোগ রয়েছে ওই জায়গা নিয়ে। এ নিয়ে এলাকার মুসল্লীদের মধ্যে ক্ষোভ ও উত্তেজনা দেখা দিয়েছে। মসজিদের জায়গা দখল মুক্ত করতে বৃহস্পতিবার এলাকার মুসল্লিরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেছেন।

এলাকাবাসী জানায়, খুলনা-মংলা মহাসড়কের পাশে বাগেরহাট সদর উপজেলার চুলকাটী বাজারে ৫০ বছর আগে ‘চুলকাটী বাজার জামে মসজিদ’ প্রতিষ্ঠা করা হয়। সেই থেকে এলাকার মুসল্লীরা ওই মসজিদে নামাজ আদায় করে আসছেন। প্রায় ১৭ শতক জমির উপর ওই মসজিদ। মসজিদের সামনে কয়েকটি দোকানঘর রয়েছে। কিন্তু মসজিদের কিছু জায়গা নিয়ে এলাকার মৃত জালাল উদ্দিন শেখের ওয়ারেশদের সাথে মামলা রয়েছে।

এলাকার মুসল্লীদের অভিযোগ, বুধবার স্থানীয় পাইকপাড়া গ্রামের মৃত জালাল উদ্দিন শেখের ছেলে বাবু শেখ ও জামাতা আনোয়ারুল ইসলাম লোকজন নিয়ে মসজিদের সামনের কিছু জায়গা টিনের বেড়া দিয়ে ঘিরে রাখে। খবর পেয়ে আইনশৃংখলা রক্ষাকারী বাহিনীর সদস্যরা এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনে।



মোজাফ্ফর ফকির, রেজাউল ইসলাম, হোসেন ফকির, আব্দুর রাজ্জাক শেখ, সৈয়দ আবুল কালামসহ এলাকার বেশ কয়েকজন মুসল্লীর সাথে কথা হলে তারা জানান, ১৯৬৪ সালে চুলকাটী বাজারে ওই মসজিদ প্রতিষ্টা করা হয়। এলাকার মুসল্লীরা ওই মসজিদে নামাজ আদায় করে। জালাল উদ্দিনের কাছ থেকে ক্রয়কৃত জমি থেকে ২০১০ সালে মাহামুদুল হাসান ১৭ শতক জমি মসজিদের নামে মৌখিক ভাবে দান করেন। এর পরে গত ১০ অক্টোবর মাহামুদুল হাসান ওই জমি মসজিদের নামে রেজিস্ট্রি করে দিয়েছে।

তাদের অভিযোগ, জালাল উদ্দিন শেখের মৃত্যুর পর তার ছেলে বাবু শেখ ও জামাতা আনোয়ারুল ইসলাম মসজিদের ওই জায়গা নিজের দাবি করে আসছে। এ নিয়ে উভয় পক্ষের মধ্যে মামলা রয়েছে। বুধবার বাবু শেখ ও জামাতা আনোয়ারুল ইসলাম বেশ কিছু লোকজন নিয়ে টিনের বেড়া দিয়ে মসজিদের সামনের জায়গা ঘিরে রাখে।

আনোয়ারুল ইসলাম পাল্টা অভিযোগ করে বলেন, তারা মূল মালিকের কাছ থেকে জমি ক্রয় করেছে। তাদের জমির সাথে মসজিদের জায়গার কোন সম্পৃক্ততা নেই। এমনকি মসজিদ এবং তাদের ক্রয়কৃত জমি আলাদা দাগে। কিছু মানুষ তাদের উচ্ছেদ করার জন্য মসজিদের নাম ব্যবহার করে তাদের জায়গা দখলে রেখেছে।



বাগেরহাট চুলকাটী তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ পরিদর্শক অসিত কুমার রায় জানান, ওই জায়গা নিয়ে আদালতে মামলা বিচারধীন রয়েছে। আদালতের মাধ্যমে মিমাংসা করার জন্য পুলিশের পক্ষ থেকে বলা হয়েছে এবং বিরোধে না জড়ানোর জন্য উভয় পক্ষকে স্থিতিশীল অবস্থায় থাকতে বলা হয়েছে।

এ দিকে মসজিদের জায়গা দখলমুক্ত করতে বৃহস্পতিবার সকালে খুলনা-মোংলা মহাসড়কের পাশে চুলকাটী বাজারে মসজিদের সামনে এলাকার মুসল্লীরা মানববন্ধন কর্মসূচি পালন করেন। মুসল্লীরা বলছেন, দখলমুক্ত না হলে তারা আন্দোলনে যেতে বাধ্য হবে।

অমৃতবাজার/ইমরুল/রেজওয়ান

Loading...