ঢাকা, বুধবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৭ | ৪ আশ্বিন ১৪২৪ বঙ্গাব্দ

এলাকাবাসির উন্নয়নে সংসদে জোর দাবি জানালেন এমপি মনির


নিজস্ব সংবাদদাতা

প্রকাশিত: ১১:০৩ পিএম, ১৯ জুন ২০১৭, সোমবার | আপডেট: ১২:১৪ এএম, ২০ জুন ২০১৭, মঙ্গলবার
এলাকাবাসির উন্নয়নে সংসদে জোর দাবি জানালেন এমপি মনির

সোমবার ১৬তম জাতীয় সংসদ অধিবেশন ২০১৭-১৮ অর্থ বছরে বাজেটের উপর আলোচনায় অংশ গ্রহন করেন যশোর-২ আসনের সংসদ সদস্য অ্যাড. মনিরুল ইসলাম মনির। এ সময় তিনি তার নির্বাচনী এলাকা ঝিকরগাছা-চৌগাছাবাসির পক্ষে বিভিন্ন উন্নয়নের জোর দাবি জানান।

এ সময় তিনি সাধারণ মানুষের বিভিন্ন দাবি-দাওয়াসমূহ জাতীয় সংসদে তুলে ধরেন। তন্মধ্যে বিড়ি শিল্প শ্রমিকদের কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা করা, পৌরসভা কর্মকর্তা-কর্মচারীদের বেতন-ভাতা জাতীয় করণ, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান এমপিও ভুক্তকরণ, মেডিটেশন সেবাকে ভ্যাট অব্যাহতি, কমিউনিটি ক্লিনিকের সিএইচসিপিদের রাজস্ব খাতে নেওয়া, গ্রাম পুলিশের বেতন-ভাতা বৃদ্ধি। যশোর বিমান বন্দরকে আন্তর্জাতিক মানের বিমান বন্দর করা।

যশোর পৌরসভাকে সিটি কর্পোরেশন উন্নীত, দুই উপজেলায় অডিটোরিয়াম কাম-কমিউনিটি সেন্টার, বাঁকড়াকে প্রশাসনিক, নারায়ণপুর, পাশাপোল ও বাঁকড়াতে ১০ (দশ) শয্যা বিশিষ্ট হাসপাতালসহ পুরনো পাঁকা রাস্তা দ্রুত সংস্কার, দুই উপজেলায় মিনি ষ্টেডিয়াম, নতুন পাঁকা রাস্তা, স্কুল-কলেজ, মাদ্রাসা নতুন বিল্ডিং নির্মাণের দাবি জানান।

মনিরুল ইসলাম তার নির্বাচনী এলাকায় সরকারের বিভিন্ন কার্যক্রমের জন্য শেখ হাসিনাকে ধন্যবাদ জানিয়ে উন্নয়নমূলক কর্মকাণ্ড তুলে ধরেন। তিনি বলেন, আমার দুই উপজেলায় প্রায় ৫০০ কোটি টাকার উন্নয়নমূলক কাজ হয়েছে। ২০১৭ সালের মধ্যে শতভাগ বিদ্যুৎ এর কাজ হচ্ছে। দুই উপজেলায় দুটি কলেজ সরকারিকরণ হয়েছে।

আরবি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন কওমী মাদ্রাসার স্বীকৃতি, প্রাথমিক শিক্ষাকে জাতীয়করণ, ৫ কোটি ৬০ লক্ষ ৮৩ হাজার টাকা ব্যয়ে চৌগাছা ব্রিজ, ৬ কোটি ৮৭ লক্ষ ৭৩ হাজার টাকা ব্যয়ে নারায়ণপুর ব্রিজ নির্মাণ, ৭৫ কোটি ৭ লক্ষ টাকা ব্যয়ে যশোর-চৌগাছা রাস্তা উন্নয়ন, ঝিকরগাছা উপজেলায় একটি গ্রোথসেন্টার উন্নয়নের কাজে ২৪ কোটি টাকা ব্যয়, ৮ কোটি ৪ লক্ষ ৮৬ হাজার টাকা ব্যয়ে ব্রিজ নির্মাণ, ৩৮ কোটি ৮০ লক্ষ ৭০ হাজার টাকা ব্যয়ে ৭০ কি. মি. সড়ক উন্নয়ন, ১৬ কোটি ২০ লাখ ৫ হাজার টাকা ব্যয়ে ৭৪ কি.মি. পল্লী সড়ক উন্নয়ন করা হয়েছে। এজন্য আমি বিদ্যুৎমন্ত্রী ও স্থানীয় সরকারমন্ত্রীকে ধন্যবাদ জানাই।
 
তিনি তার আলোচনায় সরকারের উন্নয়নমূলক কাজ হিসেবে যশোরে প্রায় ৩’শ কোটি টাকা ব্যয়ে নির্মিত শেখ হাসিনা সফট্ওয়্যার টেকনোলজি পার্ক স্থাপন, ২’শ কোটি টাকা ব্যয়ে বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন, ছাত্রাবাস, ছাত্রীনিবাস, ল্যাব স্থাপন। শত কোটি টাকা ব্যয়ে যশোর মেডিকেল কলেজের স্থায়ী ক্যাম্পাস।

৩’শ কোটি টাকা ব্যয়ে যশোরের প্রাণ ভৈরব নদ খননের জরুরী উদ্যোগ গ্রহন। রাজধানী ঢাকা থেকে মাওয়ার পদ্মা সেতুর উপর দিয়ে জাজিরা-ভাঙা-নড়াইল-যশোর পর্যন্ত রেললাইন তৈরি এবং দেশের বৃহত্তম স্থলবন্দর বেনাপোলের আধুনিকায়নের কাজ বিশেষভাবে উল্লেখযোগ্য। কপোতাক্ষ ও ভৈরব নদী খননের কাজ হচ্ছে বলে জাতীয় সংসদে তুলে ধরেন।

অমৃতবাজার/রেজওয়ান

Loading...